| |

ফুলবাড়ীযায় জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে এক নির্মাণ শ্রমিক খুন

আপডেটঃ 9:45 pm | March 27, 2017

Ad

ফুলবাড়ীয়া প্রতিনিধিঃ ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়ায় জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে আব্দুল মোতালেব (৩৫) নামে এক হতদরিদ্র নির্মান শ্রমিক খুন হয়েছে। এ মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার ১২নং আছিমপাটুলী ইউনিয়নের পাটুলি গ্রামে।

নিহত নির্মান শ্রমিক মোতালেব পাটুলি গ্রামের মৃত আঃ কাদেরের ছেলে। এ ঘটনায় পুরো এলাকা জুড়ে ব্যাপক চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। মোতালেবের মৃত্যুর পর হত্যাকারীরা বাড়ি ঘর ছেলে পালিয়েছে বলে স্থানীয়রা জানায়।

জানা যায়, গতকাল সোমবার ফজরের নামাজ পড়ার জন্য গ্রামের মুসল্লিরা মসজিদে যাবার পথে ধান ক্ষেতের আইলের পাশে মৃত অবস্থায় মোতালেবকে পড়ে থাকতে দেখে তার পরিবারের সদস্যদের খবর দেয়।

ঘটনাটি ফুলবাড়িয়া থানায় অবহিত করা হলে দুপুর ১২ টার দিকে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

এ সময় আব্দুল মোতালেবের সাথে থাকা একটি মোবাইল সেট উদ্ধার করে পুলিশ। মোতালেবকে প্রথমে শ্বাসরোধ ও পরে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়েছে বলে পুলিশ প্রাথমিক ধারণা করছে।

এ বিষয়ে ফুলবাড়িয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল খায়ের জানায়, শ্রমিক মোতালেব হত্যার ঘটনাটি পরিকল্পিত। নিহত মোতালেবের শরীরে বেশ কয়েকটি ছুরির আঘাত এবং গলায় দাগ দেখা গেছে। জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরেই তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

ময়নাতদন্তের পর পুরো ঘটনাটির সাথে কারা জড়িত তা জানা যাবে এবং এ ঘটনায় আসামিরা বাড়ী-ঘর ছেড়ে পালিয়েছে। পরিবার সূত্রে জানা যায়, আছিমপাটুলি গ্রামের মৃত আব্দুল কাদেরের ছেলে মোতালেব ও চাচাতো ভাই জামাল মিয়াদের সাথে পাশের বাড়ির সামাদ, তার ভাই কুমেদ আলী এবং তার দুই ছেলে মহর আলী ও মুসা মিয়ার সাথে দীর্ঘদিন যাবত জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছে।

এক মাস পূর্বে মোতালেব মিয়ারা রিবোধকৃত জমিতে বোর ধানের চারা লাগাতে গেলে প্রতিপক্ষ সামাদ ও কুমেদ আলীর ছেলেরা মোতালেবসহ কয়েকজনকে বেধরক মারপিট করে গুরুতর আহত করে। পরে এ ঘটনায় মোতালেবের চাচাতো ভাই জামাল উদ্দিন ৭ ফেব্র“য়ারি ১১ জনের বিরুদ্ধে ফুলবাড়িয়া থানায় মামলা করে (মামলা নং- ৯)।

মামলায় আসামীরা হাজত থেকে জামিনে বের হয়ে আসার পর থেকেই জামাল ও মোতালেবের পরিবারকে হত্যার হুমকি দিয়ে আসছিল বলে জানায় নিহতের পরিবারের সদস্যরা।

উল্লেখ্য, ঘটনার দিন রাতে স্থানীয় বটতলা বাজারে হাফিজ উদ্দিনের বাড়িতে রাজমিস্ত্রির কাজ শেষে সেখান থেকে খাওয়া-দাওয়া করে রাত আনুমানিক ১০টায় বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দেয় বলে জানায় হাফিজ উদ্দিনের স্ত্রী সুফিয়া খাতুন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

ব্রেকিং নিউজঃ