| |

গ্রাম্য শালিসে মান্দাই দম্পত্তির মাথা ন্যাড়া ও জুতা পরানো ঘটনায় ফুলবাড়ীয়ায় ১২ মাতাব্বরের বিরুদ্ধে মামলা গ্রেফতার ১

আপডেটঃ ৯:১৭ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ১৭, ২০১৭

Ad

ফুলবাড়ীয়া (ময়মনসিংহ) সংবাদদাতা ঃ ফুলবাড়ীয়ায় হিন্দু সম্প্রদায়ের কুচ দম্পত্তিকে গ্রাম্য শালিসে মাথা ন্যাড়া করে গলায় জুতার মালা পরানোর ঘটনায় শালিসের ১২ মাতাব্বরে বিরুদ্ধে মামলা করেছে নির্যাতিত লক্ষী রানী কোচ। পুলিশ এ ঘটনায় রবিবার রাতে হাতিলেইট গ্রাম থেকে দুখিরাম চন্দ্র (৫৮) নামের এক কুচ সম্প্রদায়ের মাতাব্বরকে গ্রেফতার করেছে।
ফুলবাড়ীয়া থানার অফিসার ইনচার্জ রিফাত খান রাজিব জানায়,  গ্রেফতারকৃত আসামী দুখিরাম নির্যাতনের ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে এবং তার দেওয়া তথ্যমতে মামলার অন্যান্য আসামীকে ধরার জন্য টাংগাইলের জেলার মধুপুর ও ঘাটাইল উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে অভিযান চালছে।
থানায় মামলা করার পর থেকে নির্যাতিত পরিবারটি আতংকের মধ্যে রয়েছে। বিভিন্ন ভাবে হুমকি ধামকি দেওয়া হচ্ছে তাদেরকে। রবিবার রাত পনে দশটায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার লীরা তরফদার নির্যাতিত পরিবারটির বাড়িতে গিয়ে খোঁজ খবর নিয়েছেন। কয়েশ চন্দ্র কোচের পরিবারের সাথে পাশের এলাকার মুসলিম যুবক সাথে সামাজিক সম্পর্ক থাকায় অবৈধ সর্ম্পকের অভিযোগে তোলে বুধবার রাতে কোচ সম্প্রদায়ের মাতাব্বরা শালিসে কয়েশ চন্দ্র কোচ ও স্ত্রী লক্ষী রানী কোচকে শারীরিক নির্যাতন করার পর জুতার মালা পরিয়ে মাথা ন্যাড়া করে এবং ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করে একঘরে করে রাখা হয়।
কুচ দম্পত্তিকে শালিসে শরীরের শারীরিক নির্যাতন করে চুল কাটা ও জরিমানা করার অভিযোগে রবিবার সন্ধ্যায় লক্ষী রানী কোচ বাদী হয়ে রশিদ চন্দ্র কোচ (৪২), কালি মোহন কোচ (৬৫), নরেদ্র কোচ  (৪২), পাইলট চন্দ্র কোচ (৪০), বিমল চন্দ্র কোচ ( ৩৫) নবীন চন্দ্র কোচ (৫২) এ্যাবারেজ কোচ (২৮), চন্দন কোচ (৩৫), পমিলা রানী কোচ (২৮) ববিতা কোচ (৩০) সনেকা কোচ (৩০), আরতী কোচ (৩৫) সহ অজ্ঞাত ৪ জনকে আসামী করে মামলা করেন।
মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা এস,আই রাকিবুজ্জামান রাকিব বলেন, কোচ দম্পত্তি নির্যাতনের ঘটনায় একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতার করার জন্য পুলিশী অভিযান অব্যহত রয়েছে।