| |

ফুলবাড়ীয়ায় যাচাই বাছাইয়ে রাজাকার বলায় তিন মুক্তিযোদ্ধা সংজ্ঞাহীন

আপডেটঃ 8:19 pm | April 25, 2017

Ad

সেলিম হোসাইন, ফুলবাড়ীয়া প্রতিনিধিঃ গেজেট ও লাল তালিকাভূক্ত মুক্তিযোদ্ধাদের যাচাই বাছাই চলাকালে ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়ায় গত দুই দিনে এক মুক্তিযুদ্ধার মৃত্যু ও তিন মুক্তিযোদ্ধাকে রাজাকার বলায় জ্ঞান হারিয়ে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন।

অসুস্থ মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে একজনকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্য দুইজনকে স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা প্রদান করা হয়। সোমবার উপজেলা পরিষদে মুক্তিযোদ্ধা যাচাই বাছাই চলাকালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ কনস্টেবল মুক্তিযোদ্ধা ভাতা প্রাপ্ত আলাউদ্দিন (৬৫) মুক্তিযোদ্ধার মৃত্য হলে রাত ৯টায় গার্ড অব অনার না দিয়ে জানাযা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন সম্পন্ন করা হয়।

একজন মুক্তিযোদ্ধার রাষ্ট্রীয় মর্যাদা না দিয়ে দাফন হওয়ায় ব্যাপক ক্ষোভ প্রকাশ করেন স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধাসহ এলাকাবাসী। গতকাল মঙ্গলবার দুপুর একটার দিকে পরিষদ মিলনায়তনে তালিকাভূক্ত দেড়শতাধিক মুক্তিযোদ্ধার যাচাই বাছাই অনুষ্ঠিত হয়।

তার মধ্যে ১৫ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল। যাচাই বাছাই চলাকালে যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা ফয়জুর রহমান (৭০), মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেন (৬৯) ও মুক্তিযোদ্ধা শমসের আলী (৭২) প্রকাশ্যে রাজাকার বলার সাথে সাথে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন।

রাধাকানাই গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেন (৬৯) হল রুমে অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাকে প্রথমে ফুলবাড়ীয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্্র পরে অবস্থার অবনতি হলে মুমুর্ষূ অবস্থায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

উপজেলার বাকতা ইউনিয়নের চাঁদপুর গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক পুুলিশ সদস্য আলাউদ্দিন (৬৫) সোমবার মুক্তিযোদ্ধা যাচাই বাছাইয়ে এসে উপজেলা পরিষদের ভিতরে মৎস্য অফিসের সামনে অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে দ্রুত তাকে ফুলবাড়ীয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

রাত ৯ টার সময় নিজ বাড়ীতে পারিবারিক গোরস্থানে রাষ্ট্রীয় মর্যাদা ছাড়াই তাকে দাফন করা হয়। সরকারী ভাতা প্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক পুলিশ সদস্যকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদা ছাড়াই দাফন করায় এলাকায় ক্ষোভ বিরাজ করছে।

মৃত মুক্তিযোদ্ধার ভাতিজা জাহাঙ্গীর আলম জানান, লাশের জানাজার জন্য উপজেলা সদরে ব্যাপক মাইকিং করা হয়েছে। বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার জানার পরও রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় লাশ দাফনের ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় মোবাইলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার লীরা তরফদারকে জানানো হয়।

রাত ১১ টার সময় তিনি খোজখবর নেন। উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার এবি সিদ্দিক সাংবাদিকদের জানান, আলাউদ্দিন মুক্তিযোদ্ধা যাচাই বাছাইয়ে বাদ পড়েছেন। স্বাধীনতার পর আলাউদ্দিন পুলিশে যোগদান করেন।

তিনি আমার কাছে কখনও আসেননি। মুক্তিযোদ্ধা যাচাই বাছাই কমিটির সভাপতি ও সাবেক এম.এন.এ অধ্যাপক আনম নজরুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, যাচাই বাছাইয়ের জন্য তিনি আমাদের সামনে হাজির হতে পারেননি। এর আগেই তিনি মারা যান।

তবে পুরুনো তালিকায় তার নাম থাকলেও অবশ্যই সে রাষ্ট্রীয় মর্যাদা পায়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার লীরা তরফদার জানান, সূর্যাস্তের সাথে রাষ্ট্রীয় মর্যাদা জড়িত। রাতে রাষ্ট্রীয় মর্যাদা দেয়া যায় না।

তবে শোনার পর রাত ১১ টার দিকে তিনি মৃত মুক্তিযোদ্ধার বাড়ীতে গিয়ে দাফনের কাফনের খরচের টাকা দিয়ে আসেন। তিনি আরও বলেন, সংজ্ঞাহীন মুক্তিযোদ্ধাদের খোজখবর নেয়া হচ্ছে।

ব্রেকিং নিউজঃ