| |

র‌্যাব কর্তৃক বিপুল পরিমান মাদকদ্রব্য ও দেশীয় অস্ত্রসহ গ্রেফতার ০১

আপডেটঃ 8:36 pm | May 31, 2017

Ad

প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ বর্তমানে আমাদের দেশের যুব সমাজের অধঃপতনের অন্যতম প্রধান কারণ মাদকাসক্তি। দেশের যুবসমাজের একটি বড় অংশ আশংকাজনকভাবে মাদক হিসেবে ব্যবহৃত ইয়াবা ট্যাবলেটের প্রতি আসক্ত হয়ে পড়ছে।

কান্ডে জড়িয়ে পড়ছে। “বাংলাদেশ আমার অংহকার” এই স্লোগান নিয়ে র‌্যাব যুব সমাজকে মাদকের ভয়াল থাবা থেকে রক্ষার জন্য প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই দেশব্যাপী বিভিন্ন মাদক ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে আপোষহীন অবস্থানে থেকে নিরলস ভাবে কাজ করে আসছে-যা দেশের সর্বস্তরের জনসাধারন কর্তৃক ইতোমধ্যেই বিশেষভাবে প্রশংসিত হয়েছে।

তারই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব-১৪, সিপিসি-৩, ভৈরব ক্যাম্প কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরব থানাধীন শ্রীনগর পশ্চিমপাড়া গ্রামস্থ জনৈক শাহান মিয়ার বসত বাড়িতে মাদকদ্রব্য ক্রয়-বিক্রয় ও এলাকায় সন্ত্রাসী কর্মকান্ড পরিচালনাকারী ধৃত মাদক ব্যবসায়ী মোঃ সুমন মিয়াকে গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাবের একটি চৌকস দল কিছুদিন ধরে উক্ত বাড়ি ও এলাকায় নজরদারি সহ বিভিন্ন প্রকার তথ্য সংগ্রহ  করে আসছিল।

এরই প্রেক্ষিতে র‌্যাবের একটি চৌকস আভিযানিক দল গত ৩০/০৫/১৭ ইং তারিখে ১৬.০০ ঘটিকায় কোম্পানী কমান্ডার মেজর শেখ নাজুমল আরেফিন পরাগ এর নের্তৃত্বে উক্ত স্থানে অভিযান পরিচালনা করার জন্য রওনা হয়।

জনৈক শাহীন মিয়ার বাড়ির নিকট পৌছা মাত্রই আসামী মোঃ সুমন মিয়া (৩০), পিতা- মোঃ শাহান মিয়া, সাং- শ্রীনগর, থানা-ভৈরব, জেলা- কিশোরগঞ্জ দৌঁড়ে পালানোর চেষ্টা করলে তাকে হাতেনাতে আটক করে তার শয়ন কক্ষ তল্লাশী করে ১৫৩০ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট ও ১০ টি দেশীয় অস্ত্র (বল্লম) উদ্ধার করে।

ধৃত মাদক ব্যবসায়ীকে উদ্ধারকৃত মাদকদ্রব্য ও দেশীয় অস্ত্রসহ ১৯৯০ (সংশোধনী ২০০৪) ইং সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ১৯ (১) টেবিল ৯ (খ) ধারা ও ১৮৭৮ সালের অস্ত্র আইনের ১৯-ক মোতাবেক কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরব থানায় পৃথক দুইটি মামলা মূলে থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

ব্রেকিং নিউজঃ