| |

মুক্তিযোদ্ধারা যদি রক্ত দিয়ে দেশ স্বাধীন না করত তবে আমরা পুলিশের উচ্চ পদে আসীন হতে পারতাম না

আপডেটঃ 10:55 pm | June 04, 2017

Ad

ইব্রাহিম মুকুট: গতকাল ময়মনসিংহ জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের উদ্যোগে মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেএ ময়মনসিংহের বিভাগের রেঞ্জ  ডি.আই.জি চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুন বিপিএম, পিপিএম এর বিদায় সম্বর্ধনা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক ছিলেন ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম পিপিএম। সভায় সভাপতিত্ব করেন ময়মনসিংহ জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হোসেন।

বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার এড. হারুন উর রশিদ, ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার পৌরসভার মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল সাত্তার। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলাম।

এ সময় বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মতিউর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা কামাল পাশা, বীর মুক্তিযোদ্ধা এড. আবুল কালাম আজাদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা সেলিম সরকার রবার্ড, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম আজাদ, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের জেলা আহ্বায়ক হুমায়ন রশিদ সোহাগ, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সদস্য সচিব রিয়াজুল ইসলাম রানা, সম্বর্ধনা অনুষ্ঠানে কোরআন তেলাওয়াত করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল ফজল তালুকদার, গীতা পাঠ করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা বিমল পাল।

 

বিদায়ী রেঞ্জ ডিআইজি কে ফুলের তোড়া দিয়ে অভিনন্দন জানান মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের হুমায়ন রশিদ সোহাগ। আলোচককে ফুলের তোড়া দেন রিয়াজুল ইসলাম রানা।

প্রধান আলোচক তার বক্তব্যে বলেন, বিদায়ের সাথে বেদনাও জড়িত তাই আমাদের ডি.আই.জি স্যারকে বিদায় দিতে আমাদের কষ্ঠ হচ্ছে তিনি ছিলেন একজন আলোকিত মানুষ, সৃষ্টিশীল মানুষ। উনার আদর্শ ও শিক্ষা আমাদের পথ দেখাবে।

যখন কোন বিপদে পরেছি উনি সাহায্য করেছেন সাহস দিয়েছেন, দিক নির্দেশনা দিয়েছেন। আমরা সহজেই বিপদ কাটিয়ে উঠতে পেরেছি। পুলিশে তিনি ছিলেন একজন সাদা মনের মানুষ। উনি দীর্ঘজীবি হউক এটাই আমার কামনা।

 

বিদায়ী ময়মনসিংহ বিভাগীয় রেঞ্জ ডি.আই.জি চৌধূরি আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, আমার সামনে যারা বসে আছেন তারা বাংলাদেশের স্রষ্ঠা তাদের আত্বত্যাগেই বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে। উর্দূ ভাষীরা একসময় আমাদের শাসন করতো প্রশাসনের উচ্চস্তরে বাঙ্গালীদের স্থান ছিল নগণ্য।

মুক্তিযোদ্ধারা যদি রক্ত দিয়ে দেশ স্বাধীন না করত তবে আমরা পুলিশের উচ্চ পদে আসীন হতে পারতাম না। তিনি বলেন, আমরা তাই মুক্তিযোদ্ধাদের কাছে চির কৃতঙ্গ। তিনি বলের, ময়মনসিংহ বাসী আমাকে কতটুকু ভালোবেসেছে তা আজ বুঝতে পারছি।

 

দেশের প্রতি ও জাতির প্রতি আমার দায়িত্ববোধ বাড়িয়ে দিয়েছে ময়মনসিংহ বাসী। আমি প্রথম ময়মনসিংহ বিভাগের ডি.আই.জি ছিলাম তার চাইতে বড় কথা আপনারা দোঁয়া করবেন আমি যেন আপনাদের প্রিয় মানুষ হয়ে থাকতে পারি।

জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের পক্ষ থেকে ওনাকে ক্রেষ্ট ও ক্রেন্দিয় মুক্তিযোদ্ধা সংসদের তথ্য ও গবেষনা সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা মাহবুবুল আলম চিশতির পক্ষ থেকে উপহার প্রদান করেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হোসেন।

ব্রেকিং নিউজঃ