| |

বিপুল পরিমাণ ইয়াবাসহ ০২ জন মাদকব্যবসায়ীকে গ্রেফতার

আপডেটঃ 5:21 pm | July 09, 2017

Ad

প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ বর্তমানে আমাদের দেশের যুব সমাজের অধঃপতনের অন্যতম প্রধান কারণ মাদকাসক্তি। দেশের যুবসমাজের একটি বড় অংশ আশংকাজনকভাবে মাদক হিসেবে ব্যবহৃত ইয়াবার প্রতি আসক্ত হয়ে পড়ছে।

 

মাদকের টাকা জোগাড়ের জন্য মাদকাসক্ত যুব সমাজ বিভিন্ন ধরনের সন্ত্রাসী কর্মকান্ড,  অবৈধ অস্ত্রের ব্যবহার, ছিনতাইসহ বিবিধ অবৈধ কর্মকান্ডে জড়িয়ে পড়ছে।

 

প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই“বাংলাদেশ আমার অহংকার”, এই স্লোগান নিয়ে র‌্যাব যুব সমাজকে মাদকের ভয়াল থাবা থেকে রক্ষার জন্য দেশব্যাপী বিভিন্ন মাদক ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে আপোষহীন অবস্থানে থেকে নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছে যা দেশের সর্বস্থরের জনসাধারন কর্তৃক ইতোমধ্যেই বিশেষভাবে প্রশংসিত হয়েছে।

 

এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব-১৪, সিপিসি-৩, ভৈরব ক্যাম্প গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, বি-বাড়িয়া জেলার জেলার সদর মডেল থানাধীন কাউতলী মোড়ের উপর মাদকদ্রব্য সংগ্রহ পূর্বক ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার উদ্দেশ্যে দুইজন লোক অপেক্ষা করছে।

 

উক্ত তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাবের একটি আভিযানিক দল অদ্য ০৮/০৭/১৭ ইং তারিখে ১৬.২০ ঘটিকায় কোম্পানী কমান্ডার মেজর শেখ নাজমুল আরেফিন পরাগ এর নেতৃত্বে উক্ত স্থানে অভিযান পরিচালনা করে ১। মোহাম্মদ আলী(১৮), পিতা-আবুল কাশেম চৌধুরী, সাং-ক্ষুদ্র বি-বাড়িয়া, থানা ও জেলা-বি-বাড়িয়া, ২। তোতা মিয়া(১৯), পিতা-মৃত আব্দু মিয়া, সাং-বড় হরণ, থানা ও জেলা- বি-বাড়িয়াদ্বয়কে ধৃত করে তাদের দেহ তল্লাশী করে ৩৯০(তিনশত নব্বই) পিস কথিত মাদকদ্রব্য ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়। এ সময় একজন মাদক ব্যবসায়ী পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।

 

পরবর্তীতে আসামীদ্বয়কে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় পলাতক ব্যাক্তির নাম হারিফ মিয়া(২০), পিতা- বকুল মিয়া, সাং-কেন্দুয়া, থানা ও জেলা বি-বাড়িয়া। ধৃত আসামীদ্বয় ও পলাতক আসামীর বিরুদ্ধে ১৯৯০ (সংশোধনী ২০০৪)ইং সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ১৯(১) টেবিল ৯(খ)/২৫ ধারা মোতাবেক বি-বাড়িয়া জেলার সদর মডেল থানায় মামলা দায়েরের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।

ব্রেকিং নিউজঃ