| |

দুই বোনকে উত্যক্ত করার প্রতিবাদ করায় ত্রিশালে ভাইকে পিটিয়েছে বখাটে

আপডেটঃ 10:32 pm | July 10, 2017

Ad

ফয়জুর রহমান ফরহাদ ॥  সহোদর দুই বোনকে উত্যক্ত করার প্রতিবাদ করায় ভাইকে পিটিয়েছে প্রত্যয়ন চন্দ্র দাস ফনি নামে এক বখাটে যুবক। ঘটনাটি ঘটেছে ময়মনসিংহের ত্রিশাল পৌরশহরের নওধার এলাকায়।

 

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে একই এলাকার শ্রী রাখাল চন্দ্র দাসের ছেলে প্রত্যয়ন চন্দ্র দাস ফনি শ্রী হিরু বর্মনের বড় মেয়েকে কলেজে যাওয়া আসার পথে উত্যক্ত করত।

 

পরে স্থানীয় ভাবে কয়েক দফা দেন দরবার করে মেয়েকে আর কোনদিন কোন ভাবে হয়রানী বা উত্যক্ত না করার শর্তে তিনশত টাকার ষ্ট্যাম্পে অঙ্গিকার নামা সম্পাদন করা হয়।

 

এরপর শ্রী হিরু বর্মন ওই মেয়ে ও স্ত্রীকে নিয়ে ময়মনসিংহ শহরে বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করতে থাকেন। তবু থেমে থাকেনি বখাটে ফনি। শুরু হয় মোবাইল ফোনে এসএমএসের মাধ্যমে উত্যক্ত।

 

ঈদের কয়েকদিন আগে শ্রী হিরু বর্মনের ছোট মেয়েকে রাস্তা দিয়ে চলার পথে শরীরে থুথু দেয়। পর পর দু’বোনকে উত্যক্ত করায় এর প্রতিবাদ করেন তাদের ভাই সৌরভ বর্মন সজল। এরই জের ধরে শুক্রবার সৌরভকে বখাটে প্রত্যয়ন চন্দ্র দাস ফনিসহ কয়েকজন মিলে বেধম মারধর করে।

 

পরে স্থানীয়রা উদ্ধার করে সৌরভকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপালে ভর্তি করে। এদিকে ফনি যে সকল ফোন নাম্বার থেকে হিরু বর্মনের বড় মেয়েকে এসএমএস দিয়ে বিরক্ত করা হয় বলে অভিযোগ পাওয়া যায়।

 

তারমধ্যে দুটি নাম্বার খোলা পাওয়া গেলেও একটি নাম্বারে তার সাথে কথা বলার পরও তিনি বলেন, আমি ফোন ব্যবহার করিনা। উত্যক্তের কথা স্বীকার করলেও মারধরের বিষয়টিও অস্বীকার করেন তিনি।

 

হিরু বর্মন জানান, সৌরভকে নিয়ে মমেক হাসপাতালের ৬ নাম্বার ওয়ার্ডে আছি। ছেলে একটু সুস্থ হলেই ওই বখাটে ছেলের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা করা হবে।এ ব্যাপারে রাখাল চন্দ্র দাস বলেন, আমার ছেলে এখন আর উত্যক্ত করে না। মারামারির বিষয়টি আমি জানি না।

ব্রেকিং নিউজঃ