| |

মাদক সম্ম্রাটদের আতঙ্কের নাম ডিবি ওসি আশিকুর রহমান

আপডেটঃ 11:24 am | August 06, 2017

Ad

জাহিদুল ইসলাম জীবন : ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা সংস্থা ডিবি ওসি আশিকুর রহমান ইতিমধ্যে মাদকের বিরুদ্ধে জেহাদ ঘোষনা করেছে । এক মাসে প্রায় ৯,৭০,৪০০ টাকার মাদক উদ্ধার।
গত জুলাই মাসের ৫ তারিখ জেলা গোয়েন্দা শাখায় ডিবি ওসি আশিকুর রহমান যোগদান করেন। যোগদান করে মাদক, সন্ত্রাস, মুক্ত করার অঙ্গিকার করেন তিনি। তাই গত জুলাই মাসে প্রায় লক্ষ লক্ষ টাকার মাদক উদ্ধার করেছে ডিবি পুলিশ।

 

ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা সংস্থা ডিবি ওসি আশিকুর রহমান নেতৃত্বে তদন্ত ওসি মাজহারুল ইসলাম কে সাথে নিয়ে এসআই ও এএসআই সদস্যদের নেতৃত্ব গত জুলাই মাসে ময়মনসিংহ বিভিন্ন এলাকায় মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করে বিপুল পরিমান মাদক উদ্ধার করা হয়।

 

অপরদিকে জেলা গোয়েন্দা সংস্থা ডিবি ওসি নেতৃত্বে ময়মনসিংহ জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে মাদক উদ্ধারের ঘটনায় ডিবি পুলিশকে ধন্যবাধ জানিয়েছেন স্থানীয় এলাকাবাসী ও সুশীল সমাজসহ স্থানীয় রাজনৈতিক ব্যাক্তিবর্গ। সে সাথে ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা সংস্থা সুযোগ্য ওসিকে মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রাখার দাবি জানিয়েছেন সুশিল সমাজ।

 
অপরদিকে, মাদক উদ্ধারের ক্ষেত্রে ডিবি পুলিশকে সহযোগিতা করায় ময়মনসিংহ বাসীকে ধন্যবাদসহ মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রাখার ঘোষনা দেন ডিবি ওসি ।
সূত্রে জানা যায়, জেলা গোয়েন্দা সংস্থায় গত জুলাই মাসে ৩১টি মামলা রুজু করেছে । এর মধ্যে মাদক মামলা রুজু হয়েছে ২৮টি আর মাদক মামলার আসামী গ্রেপ্তার হয়েছে আনুমানিক ৩৬জন।

 

গত জুলাই মাসে প্রায় লক্ষ লক্ষ টাকার মাদক উদ্ধার করেছে বলে পুলিশের তথ্যমতে জানা যায়। এভাবে মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করা হলে আইন শৃঙ্খলা যথেষ্ট পরিমান উন্নতি করবে এমনটাই দাবী করেছেন ময়মনসিংহ সুশীল সমাজের মানুষ। বিগত বছরের তুলনায় ডিবি মাদক মামলা ও উদ্ধার তুলনা অনেক বেশি।

 

ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা সংস্থা ডিবি ওসি আশিকুর রহমান ৬ জুলাই কর্মস্থলে যোগদানের পর থেকে ময়মনসিংহ জেলা আইনশৃংখলা উন্নতির পাশাপাশি এক সময়ে মাদকের নগরী ময়মনসিংহ বর্তমানে মাদকমুক্ত পরিচিতি লাভ করেছে বলে দাবি করেছেন সাধারণ মানুষ। ইতিপূর্বে ময়মনসিংহ জেলার সন্ত্রাস, মাদক, চাঁদাবাজ, অস্ত্র ব্যবসায়ীদের আতঙ্কের নাম হয়ে দাড়িয়েছে ডিবি ওসি।
জেলা গোয়েন্দা সংস্থা ডিবি ওসি আশিকুর রহমান জানান, ময়মনসিংহ ডিবি পুলিশ মাদক উদ্ধারে জিরো টলারেন্সে নামিয়ে আনার জন্য চেষ্টা করছি পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম স্যারের নির্দেশে।

 

ময়মনসিংহ আইনশৃংখলা নিয়ন্ত্রনের লক্ষ্যে ডিবি পুলিশ সর্বদাই অক্লান্ত পরিশ্রম করে আসছে। আইনশৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক এবং ময়মনসিংহ জেলা থেকে মাদকমুক্ত রাখার জন্য যা করনীয় সবকিছু করা হবে বলেও জানান।

 

ময়মনসিংহ থেকে মাদক-সন্ত্রাস-জঙ্গী মুক্ত করার জন্য সবকিছু করা হবে। তাই ময়মনসিংহকে মাদক-সন্ত্রাস-জঙ্গীমুক্ত রাখার জন্য সবার সহযোগিতা কামনা করছি। সে সাথে মাদকের বিরুদ্ধে জেহাদের ঘোষনা দিয়ে তিনি বলেন, মাদক ব্যবসার কিংবা সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সাথে যত বড়ই প্রভাবশালী ব্যাক্তিই জড়িত থাকুক না কেন কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না।

 

কারন বর্তমান সরকার উন্নয়নের পথে অগ্রসর। সন্ত্রাস-জঙ্গীবাদ-মাদকমুক্ত রাখার জন্য বদ্ধ পরিকর। তাই সরকারের এই স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্য দেশের মধ্যে আংশিক ময়মনসিংহ জেলার আইনশৃংখলা নিয়ন্ত্রনের দায়িত্ব আমার উপর সরকার অর্পিত করেছেন।

 

যে কোন কিছুর বিনিময়ে নিজের জীবন বাজি রেখে হলেও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ে তুলার চেষ্টায় নিজেকে সর্বদাই নিয়োজিত রাখবে এই প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।

ব্রেকিং নিউজঃ