| |

শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে নিহত জেলে পরিবারকে আর্থিক সহায়তা প্রদান

আপডেটঃ 8:39 pm | August 06, 2017

Ad

মো. আবু রায়হান, শেরপুর ঝিনাইগাতী প্রতিনিধি: শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার মালিঝিকান্দা ইউনিয়নের হাসলীগাও গ্রামের দরিদ্র মৎসজীবি মোঃ দুলাল মিয়া রাতের বেলায় নদীতে মাছ ধরতে গিয়ে নিখোঁজ হয়।

 

পরদিন খোঁজাখুজি করে মৎসজীবি দুলাল মিয়াকে মৃত্য অবস্থায় নদীতে ভাসতে দেখা যায়। দরিদ্র দুলাল মিয়া পরিবারের ৬ সদস্যের আয়ের উৎসের একমাত্র মাছ ধরাই ছিল ভরসা। প্রতিদিন মাছ ধরে বাজারে বিক্রি করে সংসার চালাতো।

 

গত ২ সপ্তাহ পূর্বে উক্ত দূর্ঘটনাটি ঘটার পর পরিবারের সবাই অসহায় হয়ে পড়ে। পুরো পরিবারে নেমে আসে অন্ধকার অবস্থা। এমন অবস্থার সংবাদ পেয়ে ঝিনাইগাতী উপজেলার চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম বাদশা মাছ ধরতে গিয়ে পানিতে পরে মৃত দুলাল মিয়ার বাড়িতে গিয়ে তার দূরাবস্থা দেখে হতবাক হন।

 

ছোট্ট একটি কুঁড়ে ঘর। ওই ঘরে দু’জন লোকই থাকার জায়গা নেই, আর এই কুঁড়ে ঘরেই গাদাগাদি করে পুরো পরিবারের লোক বসবাস করছে। ইচ্ছা থাকলেও উপায় নেই।

 

নেই জায়গা, নেই জমি, নেই কোন আয়ের পথ। আয় করে যে ব্যক্তি ৬জন সদস্যের খাদ্যের যোগান দিত সেও দূর্ঘটনায় মারা যাওয়ায় এখন পুরো পরিবার অসহায় হয়ে পড়ছে।

 

এমন পরিস্থিতি দেখে উপজেলা চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম বাদশা ওই পরিবারকে নিজের ব্যক্তিগত তহবিল থেকে ৫ হাজার টাকা ও উপজেলা পরিষদের রাজস্ব তহবিল থেকে ১০ হাজার টাকার চেক প্রদান করা হয়েছে। উক্ত চেক প্রদান করা হয় নিহত দরিদ্র মৎসজীবি দুলাল মিয়ার স্ত্রী’র নিকট।

 

উক্ত চেক বিতরণের সময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোছা. লাইলী বেগম, ঝিনাইগাতী উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি আব্বাস উদ্দিন, রাংটিয়া স্কুলের প্রধান শিক্ষক মঞ্জুরুল ইসলাম ও বিশিষ্টব্যক্তিবর্গ।

 

প্রকাশ থাকে যে, উপজেলা চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম বাদশা অসহায় পরিবারটিকে আন্তরিক ভাবে সাহায্য-সহযোগীতা প্রদানের জন্য সকলের নিকট বিনিত ভাবে অনুরোধ করেন।

ব্রেকিং নিউজঃ