| |

আমিনুল হক শামীমের বিরুদ্ধে মিথ্যা সংবাদ পরিবেশন করায় “দৈনিক নয়াদিগন্ত ” ও “দৈনিক মানবকন্ঠের” বিরুদ্ধে মামলা দায়ের | সমন জারী

আপডেটঃ ৮:১৪ অপরাহ্ণ | আগস্ট ০৮, ২০১৭

Ad

স্টাফ রিপোর্টার: দৈনিক নয়াদিগন্তের সম্পাদক আলমগীর মহিউদ্দিন, প্রকাশক শামছুল হুদা ও দৈনিক নয়াদিগন্তের ময়মনসিংহ প্রতিনিধি সাইফুল ইসলাম এবং দৈনিক মানবকন্ঠের সম্পাদক আনিস আলমগীর, প্রকাশক জাকারিয়া চৌধুরী,

 

নিজস্ব প্রতিবেদক হাবিব রহমান এর বিরুদ্ধে জেলা ময়মনসিংহের বিজ্ঞ সিনি: ম্যাজিস্ট্রেট ১নং আমলী আদালতে দন্ডবিধি আইনের ৫০০/৫০১ ধারা মোতাবেক মামলা দায়ের করেছেন সি.আই.পি, সাবেক এফ.বি.সি.সি.আই এর পরিচালক এবং বর্তমান ময়মনসিংহ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ড্রাস্টিজের সভাপতি মো: আমিনুল হক শামীম।

 

মামলার আর্জিতে আমিনুল হক শামীম উল্লেখ করেন গত ৫/৮/২০১৭ইং তারিখে দৈনিক নয়াদিগন্ত পএিকায় “ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামীলীগের প্রস্তাবিত কমিটি নিয়ে বিতর্ক কেন্দ্রের কাছে ৪ এমপির লিখিত অভিযোগ” এবং দৈনিক মানবকন্ঠ পএিকায় “এবার আওয়ামীলীগের পদ বানিজ্যের অভিযোগ” শিরোনামে এক যুগে তাহাদের পএিকায় সংবাদ প্রকাশ করে।

 

সূএ হিসেবে ৪জন এমপি ও আওয়ামীলীগ নেতাদের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। উক্ত পএিকায় আমিনুল হক শামীম ফ্রিডম পার্টি ও বিএনপির সাথে যুক্ত ছিলেন বলে উল্লেখ করা হয়েছে কিন্তু এমন তথ্য ৪জন এমপি ও আওয়ামীলীগ নেতাগনের প্রতিবেদনে উল্লেখিত বিষয় সমূহের উল্লেখ নাই।

 

বিবাদীগন পরস্পরের যোগসাযশে তাহাদের পএিকাসমূহের বিষয়টি মানহানিকর বলিয়া জানা সত্বেও এবং বিশ্বাস করার যুক্তি সঙ্গত কারন না থাকা সত্বেও মুদ্রন করিয়াছেন। যাহা বাদী আমিনুল হক শামীম তার বিরুদ্ধে এক দল কুৎসা রটনাকারী তথ্য সন্ত্রাসী পরনিন্দাকারী মানহানিকারী ব্যক্তিবর্গের সম্মিলিত অপপ্রয়াস বলে মনে করেন।

 

তিনি আরও মনে করেন বিবাদীগন পরস্পরের যোগসাযশে সিন্ডিকেশনের মাধ্যমে কুচক্রী মহলের কু-উদ্দেশ্য চরিতার্থ করার মানুষে সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গের বিরুদ্ধে মানহানিকর অপমানজনক ও কুৎসারটনা করে তাহাদের সম্পাদিত ও প্রকাশিত দৈনিক পএিকা সমূহে প্রচার ও প্রকাশ করিয়া মানহানিকর কাজে লিপ্ত রহিয়াছে।

 

প্রকাশ থাকে যে বাদী একজন সম্ভ্রান্ত বংশীয় বিশিষ্ট শিল্পপতি এবং বিভিন্ন সামাজিক জনসেবামূলক কাজকর্মের সাথে সম্পৃত। তিনি যথেষ্ট সুনামের সাথে বাংলাদেশ সহ দেশে বিদেশে ব্যবসা বানিজ্য পরিচালনা করিয়া আসিতেছেন। এফ.বি.সি.সি আই এর পরিচালক পদে ৩ বারের মধ্যে ২ বার তিনি সর্বোচ্চ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছিলেন।

 

এফ.বি.সি.সি.আই এর পরিচালক থাকা অবস্থায় বিভিন্ন সময় বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে ব্যবসায়ী প্রতিনিধি হিসেবে বিদেশে সফর করেছেন ও বিদেশী ব্যবসায়ীদের সাথে দ্বিপাক্ষিক আলোচনায় অংশগ্রহন করেছেন। বাদী যদি কখনো ফ্রিডম পার্টি ও বিএনপির সাথে যুক্ত থাকতেন তাহলে এটি সম্ভব হতনা।

 

বিবাদীগনের এহনো জঘন্য কার্যকলাপে বাদীর সামাজিক রাজনৈতিক ও ব্যবসায়ীক মর্যাদা ক্ষুন্ন হয়েছে বিধায় উল্লেখিত বিবাদীগনের বিরুদ্ধে দন্ডনীয় ফৌজদারী মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মামলা পরিচালনাকারী এড: পীযুষ কান্তি সরকার।

 

এ সয়ম তাকে মামলার কাজে সহযোগিতা করেন এড: মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল, এড: শফিকুল ইসলাম, এড: মোজাক্কের হোসেন, এড: মামুনুর রহমান পুরকায়স্ত প্রমুখ।

 

জেলা ময়মনসিংহের বিজ্ঞ সিনি: ম্যাজিস্ট্রেট ১নং আমলী আদালতের বিজ্ঞ ম্যাজিস্ট্রেট খালেদা ইয়াসমিন মামলাটি আমলে নিয়ে আগামী ২২/১০/১৭ইং তারিখে স্বশরীরে উপস্থিত হয়ে জবাব প্রদানের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন।

 

মামলার ব্যাপারে আমিনুল হক শামীমের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন বিবাদীগনের বিরুদ্ধে ৫০ কোটি টাকা ক্ষতিপূরনের দাবিতে আর একটি মানহানির মামলা দায়ের করা হবে ।

ব্রেকিং নিউজঃ