| |

বর্তমানে মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন চলছে —জিএম সালেহ উদ্দিন

আপডেটঃ 9:34 pm | August 08, 2017

Ad

মো: নাজমুল হুদা মানিক ॥ ২০১৬ সালের এস এস সি/সমমান ও এইচ এস সি / সমমান পরীক্ষায় উর্ত্তীন গরীব ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে ময়মনসিংহ জেলা পরিষদের বৃত্তি বিতরন অনুষ্ঠান ২০১৭ ভাষা শহীদ আব্দুল জব্বার মিলনায়তনে ৮ আগষ্ট অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 

ময়মনসিংহ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ইউসুফ খান পাঠান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ও কৃতি শিক্ষার্থীদের মাঝে চেক বিতরন করেন ময়মনসিংহ বিভাগের বিভাগীয় কমিশনার জিএম সালেহ উদ্দিন।

 

ময়মনসিংহ জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এ এইচ এম লোকমান এর সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ও চেক বিতরন করেন বাংলাদেশ পুলিশ ময়মনসিংহ রেঞ্জের ডিআইজি নিবাস চন্দ্র মাঝি,

 

ময়মনসিংহ জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক ও ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব এডভোকেট জহিরুল হক খোকা, ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল, ময়মনসিংহ জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান (১)আলহাজ্ব মমতাজ উদ্দিন মন্তা প্রমুখ।

 

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ময়মনসিংহ জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান (৩) মোছা: ফারজানা শারমিন বিউটি, জেলা পরিষদ সদস্য মোছা: আসমাউল হোসনা শিমুল, সাংবাদিক এম এ আজিজ, ডা: মাফরুহা পারভীন, কৃতি শিক্ষার্থী মাফিক মাহফুজ, মার্জিয়া চৌধুরী সাকি প্রমুখ।

 

এসময় ময়মনসিংহ জেলা পরিষদ সদস্য মো: মহিবুল হক, বেগম জোৎনা আরা মুক্তি, মোছা: দিলরুবা আক্তার কাজল, মোছা: আঞ্জুমান আরা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 

ময়মনসিংহ জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এ এইচ এম লোকমান জানান, এ বছর জেলার এস এস সি/সমমান ও এইচ এস সি/সমমান পরীক্ষার ১৩৪৪ জন কৃতি শিক্ষার্থীকে বৃক্তি প্রদান করা হচ্ছে।

 

তাদের মধ্যে ময়মনসিংহ সদর উপজেলার ৪২৩ জন ও ৮ জন মুক্তিযোদ্ধা কোটায় বৃত্তির জন্য অন্তভৃক্ত হয়েছে। ময়মনসিংহ বিভাগের বিভাগীয় কমিশনার জিএম সালেহ উদ্দিন বলেন, প্রতিটি শিক্ষার্থদের বন্ধু নির্বাচনে সচেতন হতে হবে। কারন অসৎ বন্ধুদের কারনে অনেক সুন্দর জীবন ধবংস হয়ে যায়।

 

তিনি বলেন, বর্তমানে মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন চলছে। তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের মনে রাখতে হবে তাদের শিক্ষা যেন দেশের জন্য, সমাজের জন্য উপকারে আসে। তাদের কোন ভুলের কারনে সমাজে কোন অশান্তি যেন বিরাজ না করে। তিনি বলেন, প্রতিটি শিক্ষার্থীকে প্রতিযোগিতায় উত্তীর্ন হওয়ার জন্য যোগ্য হয়ে গড়ে উঠতে হবে।

 

নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে হলে যোগ্যতা থাকতে হবে নয়ত টিকতে পারবে না। তিনি বলেন, কোচিং ও সিট নির্ভর শিক্ষা বাস্তব জীবনে শিক্ষার্থীদের প্রান শক্তি কমিয়ে দেয়। অথচ তারা জানেনা সিলেবাসের শিক্ষাই জ্ঞান অর্জনের জন্য যথেষ্ট।

 

তিনি আরো বলেন, গতকাল নামিদামি একটি স্কুল পরিদর্শন করেছি। স্কুল পরিদর্শন করতে গিয়ে দেখলাম শতকরা ৭৫ পার্সেন্ট শিক্ষার্থী অনুপস্থিত। খোজনিয়ে জানতে পারলাম, অনুপস্থিত শিক্ষার্থীরা অনেকেই কোচিং ক্লাসে ছিল।

 

সকাল ৮টা হতে বিকাল ৫টা পর্যন্ত সকল কোচিং বন্ধ থাকতে হবে। সরকারী আইন করে এ সময় সকল কোচিং বন্ধ করা হচ্ছে। বিভাগীয় কমিশনার আরো বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে কথা বলতে হচ্ছে।

 

তিনি বলেন, এক সময় ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে জঙ্গিবাদের দৃষ্টি ছিল। সরকার এখান থেকে দৃষ্টি ফেরাতে বাধ্য হয়েছে। বাংলাদেশ পুলিশ ময়মনসিংহ রেঞ্জের ডিআইজি নিবাস চন্দ্র মাঝি বলেন, আজ আমাদের ফুল দিয়ে বরন করার কথা নয়, ফুল দিয়ে বরন করতে হবে কৃতি শিক্ষার্থীদের। আজকের দিনটি তাদের জীবনে প্রেরনা হিসাবে কাজে আসবে। উৎসাহিত হবে আগামী দিনের পথচলা।

 

তিনি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, খারাপ বন্ধুদের সঙ্গ পরিহার করতে হবে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বুকে লালন করতে হবে। ময়মনসিংহ জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক ও ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব এডভোকেট জহিরুল হক খোকা বলেন, এক সময় একটি খাবার প্যাকেট ও ফুলের স্টিক দিয়ে কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা প্রদান করা হত। আমরা সে ব্যবস্থার পরিবর্তন করেছি।

 

কৃতি শিক্ষার্থীদের প্রয়োজন মেটাতে সামান্য হলেও নগদ অর্থ উপহার দিয়ে তাদের উৎসাহিত করা হচ্ছে। ময়মনসিংহ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ইউসুফ খান পাঠান বলেন, জেলা পরিষদের সবচেয়ে ভাল কাজের মধ্যে একটি কাজ হচ্ছে বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠান আর আমরা এই অনুষ্ঠান করি আগষ্ট মাসে।

 

এটিকে আমরা পবিত্র কাজ মনে করি। তিনি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, তোমরা জাতির ভবিষ্যত, তোমরা জাতির শ্রেষ্ট সন্তান। তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের সুনাগরিক হিসাবে নিজেকে গড়ে তুলতে হবে। জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আরো বলেন, আগামীতে বৃত্তি প্রদানের টাকা আরো বাড়ানোর ব্যবস্থা করা হবে।

 

ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল বলেন, প্রতিটি শিক্ষার্থীদের মনে রাখতে হবে, তারা জাতির ভবিষ্যৎ। আগামীদিনে দেশ গড়ার কারিগর।

 

তাই তাদের কঠোর অধ্যাবসায়ের মাধ্যমে জীবনকে সুন্দর করে গড়ে তুলতে হবে। উন্নয়নের রোল মডেলকে এগিয়ে নিতে তিনি সকলের প্রতি আহবান জানিয়ে বলেন, সকলকে মনে রাখতে হবে, এখন সময় বাংলাদেশের, এখন সময় শেখ হাসিনার।

 

অনুষ্ঠানে মুমিনুন্নিসা সরকারী মহিলা কলেজের ছাত্রী সাদিকা তাসনিম নিধি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষন উপস্থাপন করে সকলের প্রসংশায় প্রসংশিত হন।

 

এসময় ময়মনসিংহ জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক ও ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব এডভোকেট জহিরুল হক খোকা তাকে ৫হাজার টাকা পুরস্কার প্রদান করেন।

ব্রেকিং নিউজঃ