| |

ঈশ্বরগঞ্জে বেঞ্চে বসা নিয়ে মারধর তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী হাসপাতালে

আপডেটঃ 8:47 pm | August 13, 2017

Ad

মো. আব্দুল আউয়াল,ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) সংবাদদাতা: ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে বেঞ্চে বসাকে কেন্দ্র করে তৃতীয় শ্রেণির এক ছাত্রীকে তারই সহপাঠির বাবা মারধর করে আহত করেছে।

 

গতকাল রোববার দুপুরে ওই ঘটনাটি ঘটে। অজ্ঞান অবস্থায় মারধরের শিকার ছাত্রীটিকে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় আহত ছাত্রীর বাবা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে বিচার চেয়ে একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন।
জানা যায়, উপজেলার মাইজবাগ ইউনিয়নের বড়জোড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ালেখা করে বড়জোড়া মধ্যপাড়া গ্রামের ফেরিওয়ালা মজিবুর রহমানের মেয়ে সুমাইয়া আক্তার।

 

বিদ্যালয়ে গতকাল রোববার দুপুরে দ্বিতীয় সাময়ীক পরীক্ষায় অংশ নিতে আসে সুমাইয়া আক্তার। বিদ্যালয়ের শ্রেণি কক্ষে বেঞ্চে বসাকে কেন্দ্র করে সুমাইয়ার সাথে হাতাহাতি হয় সহপাঠী আল্পনা আক্তারের।

 

আল্পনা বিদ্যালয়ের পাশের বাড়ির বোরহান উদ্দিনের মেয়ে। সুমাইয়ার সাথে হাতাহাতির পর আল্পনা তার বাবাকে নিয়ে আসে। ওই সময় আল্পনার বাবাকে দেখে সুমাইয় ভয়ে পালানোর চেষ্টা করলে দুই শিক্ষিকা সুমাইয়াকে পঞ্চম শ্রেণির কক্ষে লুকিয়ে থাকতে বলে।

 

কিন্তু আল্পনার বাবা বোরহান উদ্দিন সুমাইয়াকে ক্লাসরুম থেকে ধরে নিযে চর-থাপ্পর ও ঘুষি মারতে থাকে। ওই সময় বিদ্যালয়ের শিক্ষক মাহমুদা নাসরিন ও আফরোজা ছাত্রীটিকে রক্ষার চেষ্টা করেন।

 

চর-থাপ্পর ও ঘুষিতে জ্ঞান হারিয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে সুমাইয়া। ওই অবস্থায় সুমাইয়াকে বিদ্যালয়ের পাশে বিদ্যালয়টির পরিচালনা কমিটির সভাপতি আবুল কালাম ভুঁইয়ার বাড়িতে নিয়ে পানি ঢালা হয়। পরে খবর পেয়ে ছাত্রীটির বাবা-মা মেয়েকে উদ্ধার করে ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

 

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সুমাইয়া জানায়, বেঞ্চে বসার সময় তার পা লাগে আল্পনার শরীরে। এ জন্যই আল্পনা তার বাবাকে ডেকে আনে। আল্পনার বাবা এসে তাকে থাপ্পর ও ঘুষি দিলে সে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। সুমাইয়ার মা খুদেজা বেগম বলেন, আমার মেয়ের কী অপরাধ ছিলো। তাকে কেন এভাবে মারধর করা হলো স্কুলে এসে। এ ঘটনার বিচার দাবি করেন তিনি।
এদিকে বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মাহমুদা নাসরীন জানান, বেঞ্চে বসাকে কেন্দ্র করে সুমাইয়া ও আল্পনার মধ্যে বিতন্ডা হয়। এর এক পর্যায়ে আল্পনার বাবা এসে সুমাইয়াকে চর দেয়।

 

তবে ঘটনার বিস্তারিত জানতে চাইলে তিনি তা জানাতে অপারগতা প্রকাশ করেন।’ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আবুল কালাম ভুঁইয়া বলেন, ছাত্রীটিকে মারধর করা হয়নি। শুধু বকাঝকা করা হয়েছে।’ এদিকে এলাকায় গিয়ে অভিযুক্ত বোরহান উদ্দিনকে না পাওয়ার তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মিতু মরিয়ম জানান, ছাত্রীকে মারধরের ঘটনায লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযোগটি থানায় পাঠানো হয়েছে। তদন্ত শেষে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ব্রেকিং নিউজঃ