| |

গ্রামীণ ব্যাংক শ্রম আইন না মানায় ৩ হাজার কর্মচারীর ভাগ্য অনিশ্চিত

আপডেটঃ 11:33 pm | October 09, 2017

Ad

ইব্রাহিম মুকুট ॥ নোবেল লরিয়েট ড. ইউনুসের প্রতিষ্ঠান গ্রামীণ ব্যাংক সারাদেশে ৩ হাজার কর্মচারীর সাথে চরম প্রহসন চালিয়ে যাচ্ছে। গরীবের ব্যাংক বলে প্রচার করা এই প্রতিষ্ঠানে ও সাধারণ কর্মচারীদেরকে ক্রীতদাস করে রেখে তাদের শ্রম শোষণ করা হচ্ছে।

 

শ্রম আইন লঙ্গন করে ৮ ঘন্টার বদলে দিনরাত ২৪ ঘন্টা পরিশ্রম করানো হচ্ছে। দৈনিক শ্রম ভিত্তিক এই কামলাদেরকে কোন নিয়োগপত্র দেয়া ছাড়াই বছরের পর বছর চাকরি করানো হচ্ছে। অথচ এদের চাকরি স্থায়ী করানোর কোন উদ্যোগ নেই।

 

বরং নিজেদের অধিকারের আওয়াজ তুলতেই তাদেরকে কৌশলে হয়রানিসহ চাকুরিচ্যুত করা হচ্ছে। ময়মনসিংহ জোনাল গ্রামীণ ব্যাংকের আওতায় এই ধরনের কর্মকান্ড চলছে ব্যাপক মাত্রায়।

 

ময়মনসিংহ জোনে প্রায় সাড়ে ৩’শ শ্রমিকের মানবাধিকার চরম মাত্রায় বিপন্ন হচ্ছে। শ্রম বিভাগে অভিযোগ করেও যার কোন প্রতিকার হচ্ছে না। বরং কর্মচারীরা চাকরি হারানোর ভয়ে দিশেহারা।

 

০৯/১০/২০১৭ সোমবার বিকালে ময়মনসিংহ বিভাগীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদিক সম্মেলনে গ্রামীণ ব্যাংকের প্রহসন ও হয়রানির চিত্র তুলে ধরেন ভুক্তভোগীরা।

 

৬ দফা দাবী মেনে নিয়ে কর্মচারীদের নিয়োগপত্র প্রদান ও চাকরি স্থায়ী করার দাবি জানানো হয়। জনার্কীণ সাংবাদিক সম্মেলনে বক্তব্য দিতে গিয়ে কর্মচারীরা তাদের চাকরি নিরাপত্তার জন্যে উদ্বেগ প্রকাশ করেন।

 

ভুক্তভোগীদের পথে লিখিত বক্তব্য তুলে ধরেন জিয়াউর রহমান। গ্রামীণ ব্যাংক শ্রম আইন অমান্য করে কাজের লোক পদের ৪র্থ শ্রেণীর যেসব কর্মচারীর চাকরি নিয়ে ছিনিমিনি খেলছে তাদের দিকে দৃষ্টি দেওয়ার জন্য সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করাছি।

ব্রেকিং নিউজঃ