| |

অনলাইনে ব্যবসা-বাণিজ্য এখন বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয়

আপডেটঃ ৮:০৯ অপরাহ্ণ | জুলাই ১৮, ২০১৮

Ad

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, বিশ্বব্যাপী অনলাইনে স্বল্প সময়ে এবং স্বল্প খরচে ব্যবসা-বাণিজ্য এখন জনপ্রিয়। তাই আমদানি-রফতানিতে ব্যবহৃত দেশের নৌ ও স্থল বন্দরকে আধুনিক করতে হবে।

বুধবার (১৮ জুলাই) সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে বাংলাদেশ রিজিওনাল কানেকটিভিটি প্রকল্প-১ (বিআরসিপি) এর আওতায় ন্যাশনাল ট্রেড অ্যান্ড ট্রান্সপোর্ট ফেসিলিটেশন কমিটির প্রথম সভায় সভাপতিত্বকালে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, প্রতিযোগিতামূলক বিশ্ব বাণিজ্যে সফলতা অর্জন করতে হলে বাণিজ্য অবকাঠামো সুবিধা বৃদ্ধির বিকল্প নেই। দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য প্রসারে উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা এবং ব্যবসায়ীদের প্রয়োজনীয় সহযোগিতা নিশ্চিত করতে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে হবে। এ জন্য সংশ্লিষ্ট সব মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ করতে হবে। যাতে যথা সময়ে প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন করা যায়।

উল্লেখ্য, আঞ্চলিক বাণিজ্য সম্প্রসারণের লক্ষ্যে ব্যবসা-বাণিজ্য সংশ্লিষ্ট ভূ-অবকাঠামো এবং পদ্ধতিগত অবকাঠামোর উন্নয়ন, নারী উদ্যোক্তাদের ব্যবসা-বাণিজ্য সম্প্রসারণে সমন্বয় এবং দক্ষতা বৃদ্ধিমূলক সহায়তার মাধ্যমে অর্থনৈতিক ক্ষতায়ন এবং রফতানি বাণিজ্য সম্প্রসারণে সার্বিক সমন্বয়ে সহায়তার উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ রিজিওনাল কানেকটিভিটি প্রকল্প-১ (বিআরসিপি) গ্রহণ করা হয়েছে।

বিশ্বব্যাংক এবং বাংলাদেশ সরকারের যৌথ অর্থায়নে প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হচ্ছে। এতে নিবিড়ভাবে কাজ করছে বাংলাদেশ স্থল বন্দর কর্তৃপক্ষ, বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় রাজস্ব বোর্ড।

সভায় কমিটির সদস্য হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব শুভাশীষ বসু, সড়ক বিভাগের সিনিয়র সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম, লেজিসলেটিভ ও সংসদ বিভাগের সিনিয়র সচিব মোহাম্মদ শহিদুল হক, অর্থ বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব আব্দুর রউফ তালুকদার, রেল বিভাগের সচিব মোফাজ্জেল হোসেন, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আব্দুস সামাদ, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব শ্যাম সুন্দর শিকদার, আইসটি ডিভিশনের সচিব জুয়েনা আজিজ অর্থনৈকি সম্পর্ক বিভাগ, শিল্প মন্ত্রণালয়, কৃষি মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ এবং কমিটির অন্যান্ন সদস্যগণ উপস্থিত ছিলেন।

প্রকল্প বিষয়ে উপস্থাপনা তুলে ধরেন প্রকল্প পরিচালক ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ডব্লিউটিও সেলের মহাপরিচালক মুনীর চৌধুরী।