| |

সাংবাদিকরা যে মতাদর্শে বিশ্বাস করুক না কেন পেশাগতভাবে তারা এক এবং অভিন্ন… প্রদীপ ভৌমিক

আপডেটঃ ৭:১৭ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৮

Ad

স্টাফ রিপোর্টার : দৈনিক উর্মি বাংলা প্রতিদিন ৭ম বর্ষে পদার্পণ করায় ময়মনসিংহ বিভাগীয় প্রেসক্লাবে জাগজমকপূর্ণভাবে কেক কাটার মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি উদযাপিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন পত্রিকাটির ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক সুমন ভৌমিক।

প্রধান অতিথি ছিলেন ময়মনসিংহ বিভাগীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি এ.কে.এম ফখরুল আলম বাপ্পী চৌধুরি, বিশেষ অতিথি ছিলেন দৈনিক মাটি ও মানুষ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক আশিক চৌধুরী, দৈনিক আলোকিত ময়মনসিংহ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক প্রদীপ ভৌমিক, ময়মনসিংহ প্রতিদিনের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক খায়রুল আলম রফিক, পত্রিকাটির আইন উপদেষ্টা এড. আব্দুর রহমান আল হোসাইন তাজ, দৈনিক সমাচার পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক আব্দুল হালিম, বিভাগীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এইচ.এম ফারুকসহ প্রমুখ। এছাড়াও ময়মনসিংহে কর্মরত বিভিন্ন সাংবাদিক ও জেলা, উপজেলা থেকে আগত সাংবাদিকবৃন্দ।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই উপস্থিতিদের করতালির মাধ্যমে আমন্ত্রিত অতিথিরা আসন গ্রহণ করেন। এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন পত্রিকাটির প্রকাশক আব্দুল লতিফ লায়ন। তিনি পত্রিকাটির উত্তোরোত্তর সফলতা কামনা করেন। দৈনিক উর্মি বাংলা প্রতিদিনের স্টাফ রিপোর্টার রোকসানা আক্তারের পরিবেশনায় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন এ.কে.এম ফখরুল আলম বাপ্পী চৌধুরী। তিনি বলেন, সাংবাদিকদের ঐক্যের কোনো বিকল্প নেই। প্রতিদিনই তারা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করে সাধারণ মানুষের ও প্রশাসনের দ্বারগোড়ে পৌছে দেয়। কিন্তু তাদের বিপদ আপদে খর্গ ধারণকারীদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে কেউ আসে না। সাংবাদিকের প্রতিবাদ সাংবাদিকের কলম।

দৈনিক আলোকিত ময়মনসিংহ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক প্রদীপ ভৌমিক বলেন, সাংবাদিকরা জাতির ধর্পণ। প্রতিদিন খেয়ে না খেয়ে সংসারের চিন্তা না করে পাঠকদের খোড়াকে সংবাদ সংগ্রহের কাজে ব্যস্ত থাকেন। তাদের উপর অনেক সংবাদ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা ক্ষোব্ধ হন। এমনকি, মামলা মোকদ্দমায়ও জড়িয়ে যান। আমাদের ঐক্য এগুলো নিরসনের সহায়ক হবে। তিনি আরও বলেন সাংবাদিকরা যে মতাদর্শে বিশ্বাস করুক না কেন পেশাগতভাবে তারা এক এবং অভিন্ন।

দৈনিক ময়মনসিংহ প্রতিদিন পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক খায়রুল আলম রফিক বলেন, এই মুহুর্তে সাংবাদিকদের ঐক্য খুব জরুরী। তিনি তার অভিজ্ঞতার আলোকে বলেন, ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের রোগীদের দুর্ভোগ, চিকিৎসা অবহেলা, খাদ্য বিতরণে অনিয়ম ও নানাবিদ পরিস্থিতি নিয়ে তিনি ও তার সহযোগি অনেক দৈনিকে একাধিক সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার পর আক্রোশমূলক ভাবে শুধু তাকে আসামী করে কথিত ঠিকাদার মামলা দেয়। সত্য হউক বা মিথ্যা হউক, যা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ করার কথা ছিলো।

ময়মনসিংহ বিভাগীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এইচ.এম ফারুক বলেন, সাংবাদিকরা আজ সত্য প্রকাশ করে নির্যাতিত-নিপিড়িত হচ্ছে। আর সাংবাদিকের শত্রু কথিত সাংবাদিকরা। এটি পরিহার করতে হবে।
দৈনিক উর্মি বাংলা পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক সুমন ভৌমিক সভাপতির বক্তব্যে বলেন, আমি পা পা করে অনেক দূর যেতে চাই। সত্য ও সমৃদ্ধির বাহক হিসেবে প্রতিষ্ঠানটির সঞ্চালনা করে শিল্পকে ধরে রেখে জীবিকা নির্বাহ করতে চাই। এটি হউক ময়মনসিংহ বিভাগের প্রথম শ্রেণির কোন দৈনিক পত্রিকা। সকলের দোয়া ও সহযোগিতা কামনা করে তার শুভেচ্ছা বক্তব্য সম্পন্ন করেন।

উর্মি বাংলা প্রতিদিন পত্রিকার আইন উপদেষ্টা এড. আব্দুর রহমান আল হোসেন তাজ বলেন, সাংবাদিকরা কাক ডাকা ভোর থেকেই সংবাদ সংগ্রহের কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। তিনি সাংবাদিকদের অক্লান্ত পরিশ্রমের ফসল হিসেবে সংবাদ মানুষের দর্পণে আসে। তিনি তার পত্রিকার প্রশংসা করতে গিয়ে বলেন, উর্মি বাংলা সত্য ও ন্যায় সংঙ্গত সংবাদ প্রকাশ করে। আমি তার সফলতা কামনা করি।

উর্মি বাংলা পত্রিকার বার্তা সম্পাদক বদরুল আমীন বলেন, সাংবাদিকরা সত্য ও ন্যায় প্রকাশে বদ্ধপরিকর। তিনি প্রতিটি সাংবাদিকের ন্যায় ও সত্য প্রকাশের জন্য অনুরোধ জানান।

দৈনিক মাটি ও মানুষ পত্রিকার বার্তা সম্পাদক বেলাল হোসেন প্রান্ত বলেন, সাংবাদিকদের ঐক্যের কোনো বিকল্প নেই। তিনি সাংবাদিকদের কাছ থেকে প্রকৃত সাংবাদিকতা আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

সভা সঞ্চালনায় আশিক চৌধুরী বলেন, সংবাদপত্র রাষ্ট্রের চতুর্থ স্তম্ভ। সাংবাদিকদের বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ রাষ্ট্র ও জাতির কাছে গ্রহণযোগ্য। তথা কথিত নোংড়ামি পরিহার করে ঐক্যবদ্ধ হয়ে সত্য সংবাদ প্রকাশে সাংবাদিকদের কোনো বিকল্প নেই। তিনি এ সময় সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে সভা সমাপ্তি করেন।