| |

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে প্রশাসক টিটুর নেতৃত্বে বরণ করতে প্রস্তুত মহানগরবাসী

আপডেটঃ ৭:৪৭ অপরাহ্ণ | অক্টোবর ৩০, ২০১৮

Ad

আলোকিত ডেস্কঃ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে বরণ করতে প্রস্তুত ময়মনসিংহ মহানগরবাসী।

 

আগামী শুক্রবার ২ নভেম্বর ময়মনসিংহের সার্কিট হাউজ মাঠে বিকাল ৩টায় জনসভায় বক্তব্য রাখবেন। জননেত্রী শেখ হাসিনার আগমন উপলক্ষে ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন অপরুপ সাঝে সজ্জিত হয়েছে মহানগরের সর্বত্র মানুষের মাঝে আনন্দের জোয়ার বইছে। গভীর আগ্রহ ও ময়মনসিংহ বিভাগের উন্নয়নের প্রত্যাশা নিয়ে অপেক্ষা করছে ময়মনসিংহবাসী।

 

সার্কিট হাউজ মাঠে জনসভায় যোগদানের পূর্বে তিনি দেড় শত উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্ধোধন করবেন। যার মধ্যে রয়েছে প্রস্তাবিত আধুনিক বিভাগীয় শহরের ভিত্তি প্রস্ত স্থাপন। বিভাগীয় কমিশনার, রেঞ্জ ডিআইজি’র কার্যালয়, বিভাগীয় সার্কিট হাউজ, ময়মনসিংহ মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, ময়মনসিংহ মহিলা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট,

 

নেত্রকোণায় শেখ হাসিনার বিশ্ববিদ্যালয়, নেত্রকোণা মেডিকেল কলেজ, নেত্রকোণা স্টেডিয়াম, জামালপুরে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়, শেখ হাসিনা কম্পোজিট জুট টে´টাইল মিল, শেখ হাসিনা টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ, শেখ রাসেল টেক্সটাইল ইনস্টিটিউট, ময়মনসিংহ, বাংলাদেশের বৃহৎ ও আন্তর্জাতিকমানের বঙ্গবন্ধু নভো থিয়েটার, ব্রহ্মপূত্র নদের ওপারে নতুন শহররক্ষা বাধ, বিভাগীয় স্টেডিয়াম,

 

শহরের কেওয়াটখালিতে ব্রহ্মপূত্র নদের উপর সেতু নির্মাণসহ ময়মনসিংহ, জামালপুর, শেরপুর ও নেত্রকোণা জেলা ও বিভাগীয় পর্যায়ের প্রায় দেড় শত প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তি স্থাপন করবেন।

 

তন্মধ্যে ময়মনসিংহ জেলায় শিক্ষা প্রকৌশল বিভাগের ১৬১ কোটি টাকার ১৭টি প্রকল্প প্রকল্পের ভিত্তি ও উদ্বোধনী ফলক উন্মোচন করবেন প্রধানমন্ত্রী। ময়মনসিংহ মহানগরে সুদৃশ্য তোরন ও রাস্তার মোড়ে বিভিন্ন রকমারী প্যানা ও ফ্যাস্টুন দিয়ে সাজানো হয়েছে।

 

আওয়ামী লীগ সরকারের আমলের উন্নয়ন কর্মকন্ডের বিবরন সম্মিলিত পোষ্টারে ছেয়ে গেছে সারা মহানগর। নবগঠিত সিটি কর্পোরেশনের প্রশাসক ইকরামুল হক টিটুর তত্ত্বাবধানে মহানগরের সর্বত্র প্রস্ততি চলছে উন্নয়নের মানুষ কণ্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বরণ করে নেওয়ার।

 

জরুরি ভিত্তিতে রাস্তা মেরামত ও সার্কিট হাউজ মাঠ সংলগ্ন এলাকাগুলি সাজানো হচ্ছে সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে। সার্কিট হাউজ মাঠ সংলগ্ন আবুল মনসুর রোড, জয়নাল আবেদিন পৌর পার্কসহ এলাকাগুলিকে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করা হচ্ছে ও রাস্তার সংস্কার কাজ দ্রুত গতিতে সম্পন্ন করা হচ্ছে সিটি কর্পোরেশরেন উদ্যোগে।

 

মহানগরের অন্যান্য রাস্তাগুলিকে আবর্জনামূক্ত ও চলাচলের উপযোগী করার জন্য দিবা রাত্রী কাজ করা হচ্ছে প্রশাসক ইকরামুল হক টিটুর সরাসরি তত্ত্বাবধানে। শহরের সর্বত্র মশা নিরোধ ঔষধ ছিটাচ্ছেন সেনেটারি ইন্সপেক্টর দিপক মজুমদারসহ সংশ্লষ্টি সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তা কর্মচারীরা। জনসভায় উপস্থিত জনগনের পানীয় জলের ব্যবস্থা করেছে সিটি কর্পোরেশন।

 

তাছাড়া অস্থায়ীভাবে সৌচাগাড় নির্মাণ করা হচ্ছে। মহানগরকে সুন্দর ও দৃষ্টিনন্দন করার জন্য প্রশাসক ইকরামুল হক টিটু দিন রাত নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। প্রশাসক টিটুর সাথে কথা বললে তিনি বলেন, আমার নেত্রী আওয়ামী লীগের সভানেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ময়মনসিংহে আগমন আমাদের জন্য সৌভাগ্যের ব্যাপার।

 

যেহুতু ময়মনসিংহের সিটি কর্পোরেশনের মধ্যে সার্কিট হাউজ মাঠটি অবস্থিত যেখানে আমার প্রিয় নেত্রী ময়মনসিংহ বিভাগের উন্নয়নের বার্তাগুলি জনতার মাঝে পৌছে দিবেন এদিক দিয়ে চিন্তা করলে আমরা মহানগরের জনগন ময়মনসিংহ বিভাগের উন্নয়নের ইতিহাসের সাক্ষী হয়ে থাকব।

 

তিনি বলেন, ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের গ্যাজেট ও আমাকে প্রশাসক নিয়োগ করায় জননেত্রী শেখ হাসিনাকে ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনবাসীর পক্ষ থেকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানাই। প্রশাসক টিটু বলেন, আমাদের প্রিয় নেত্রী বাংলাদেশের উন্নয়নের পথ-প্রদর্শক উনাকে আগামী শুক্রবার ২রা নভেম্বর বরণ করে নেওয়ার জন্য সার্বিকভাবে প্রস্তুত আছে ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন।

ব্রেকিং নিউজঃ