| |

আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী সাবেক সাংসদ রুহুল আমীন মাদানীর গণসংযোগ

আপডেটঃ ১২:৩৬ পূর্বাহ্ণ | নভেম্বর ০২, ২০১৮

Ad

ফয়জুর রহমান ফরহাদ, ত্রিশাল অফিস ঃ ময়মনসিংহের ত্রিশালে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার আগমন ও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ময়মনসিংহ ৭ আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশী আওয়ামী লীগের সাবেক সংসদ ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সম্মানিত সদস্য আলহাজ¦ হাফেজ রুহুল আমিন মাদানী। তিনি দীর্ঘদিন যাবত বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ বিশে^র দরবারে উন্নয়নের রোল মডেল এই উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে ত্রিশাল উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নের ওয়ার্ড পর্যায়ের তৃণমুল নেতাকর্মীদের সাথে মতবিনিময় গণসংযোগ ও সাধারন ভোটারের দ্বারে দ্বারে গিয়ে উন্নয়ন বার্তার লিফলেট পৌচ্ছে দিচ্ছেন, শেখ হাসিনার সরকার বার বার দরকার শেখ হাছিনার সালাম নিন নৌকা মার্কায় ভোট দিন। সাবেক সংসদ মাদানীর তার বক্তব্য তিনি বলেন, আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অনুপ্রানিত হয়েএবং রর্তমান প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বেকে বুকে ধারন করে মরতে চাই। তিনি বলেন একাদশ সংসদ নির্বাচন হতে পারে আমার জীবনের শেষ নির্বাচন তাই প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে দাবী জনাচ্ছি তিনি যেন আমার জীবনের শেষ ইচ্ছা টুকু, আমার বিশ^াস পুরন করেন। দল থেকে যদি মনোনয়ন না পায় তাহলে নেত্রী যাকে মনোনয়ন দিবেন আমার নেতা কর্মীদের নিয়ে আমি তার নির্বাচনী কার্যক্রমে অংশ গ্রহন করব।
ময়মনসিংহ ৭ ত্রিশাল সংসদীয় আসন রাজনৈতিক কৌশলগত কারণে জাতীয় পার্টিও (জাপা) প্রার্থীকে ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় আওয়ামী লীগ। এ ব্যাপারে সাবেক যুবলীগের সাংগঠনিক সস্পাদক জিয়াউর রহমান জানান, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে যাতে বহিরাগতদের মনোনয়ন দেয়া না হয়। জিয়াউর রহমান আরো বলেন, স্থানীয় হিসেবে রুহুল আমীন মাদানীর জনপ্রিয়তায় এগিয়ে আছেন তাকে ত্রিশালের মানুষ এমপি হিসেবে দেখতে চায়।
একাদশ নির্বাচনে মনোনয়ন দিলে আসনটি ফিরে পাবে বলে আমার বিশ^াস। সাবেক সংসদ সদস্য হাফেজ রুহুল আমীন মাদানী ৬নং ত্রিশাল ইউনিয়নের সতের পাড়া গ্রামে এক সমভ্রান্ত পরিভারে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ১৯৯৬ সালে আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন নিয়ে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। তিনি এমপি থাকাকালীন সময়ে ত্রিশাল উপজেলার ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন বলে জনশ্রুতি রয়েছে। এছাড়াও ব্যক্তিগতভাবে তিনি মসজিদ, মাদ্রাসা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন করে যাচ্ছেন, তিনি সাংসদ সদস্য থাকাকালীন সময় ত্রিশাল উপজেলা এলাকায় ১৫০ কি: মি: পাকা রাস্তা, ৯০টি প্রাইমারী,উচ্চ বিদ্যালয়,মাদ্রাসার বিন্ডিং নির্মান করেছেন। ১৯ টি বড় ব্রীজ ্ও ছোট ব্রীজ করেছেন শতাধিক এবং সকল হাইস্কুল, মাদ্রাসা,কলেজগুলো এমপ্ওি ভুক্ত করেছেন। এই জন্যই ত্রিশালবাসী তাকে উন্নয়নের রুপকার হিসেবে আক্ষায়িত করেছেন।সৌদি আরবের মদিনা বশ্ববিদ্যালয় থেকে উচ্চডিগ্রীধারী হাফেজ রুহুল আমীন মাদানী জনপ্রিয় জননেতা হিসেবে ত্রিশালবাসীর অন্তরে স্থান করে নিয়েছেন।যুদ্ধাপরাধের অভিযোগে দায়ের হওয়া মামলায় এম এ হান্নান কারাবন্দি থাকায় আগামী নির্বাচন ঘিরে এই আসনের আওয়ামী রাজনীতিতে নতুন সমীকরণ তৈরি হয়েছে। নৌকায় চড়ে আগামী ভোটের বৈতরণী পাড়ি দিতে মাঠে নেমেছেন ক্ষমতাসীন দলের সাবেক তিন এমপিসহ একাধিক উদীয়মান নেতারাও।

 

 

 

 

ব্রেকিং নিউজঃ