| |

ময়মনসিংহে খাল ভরাটকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে ডিসির কাছে স্মারকলিপি

আপডেটঃ 9:08 pm | February 24, 2019

Ad

স্টাফ রিপোর্টার: ময়মনসিংহের চরঈশ্বরদিয়া মৌজার খাল ভরাটকারী ছাত্রলীগ নেতা ফজলুল হকের ভাই মোশারফ হোসেন ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের দাবিতে রবিবার দুপুরে জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি দিয়েছেন এলাকাবাসী।

বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হেকিম মন্ডল ও সাবেক ইউপি সদস্য ফজর আলীর নেতৃত্বে চরঈশ্বরদিয়া ও চরলক্ষীপুরসহ স্থানীয় এলাকাবাসী প্রায় এক হাজার গ্রামবাসীর স্বাক্ষর সম্বলিত এই স্মারকলিপি দিয়েছেন। ময়মনসিংহের জেলা প্রশাসক ড. সুভাষ চন্দ্র বিশ্বাস তার কার্যালয়ে স্মারকলিপি গ্রহনকালে খাল ভরাটকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনসহ খালটিকে খালের মতই রাখা হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন।

এদিকে ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন ও পরিব্শে অধিদপ্তর-ময়মনসিংহ কর্তৃপক্ষ আলাদা ভাবে কারণ দর্শাও নোটিস জারিসহ খাল ভরাট বন্ধ রাখতে নির্দেশ দিয়েছে মোশারফ হোসেনকে।

নোটিস পাওয়ার পরও রবিবার মোশারফ হোসেন ও তার সহযোগীরা খাল ভরাট কার্যক্রম চালু রেখেছে। এদিকে প্রধানমন্ত্রীর গাড়ির ড্রাইভার পরিচয়ে ফখর উদ্দিন তার ০১৭১২০৩৫২০৫ নম্বও মোবাইল ফোন থেকে খাল ভরাটকারী মোশারফ হোসেনের পক্ষে স্থানীয় প্রশাসনের কর্মকর্তাদের চাপ দিচ্ছেন বলে জানা গেছে। আইন মন্ত্রণালয়ের প্রশাসনিক কর্মকর্তার পরিচয়েও খাল ভরাটকারী মোশারফের পক্ষে প্রশাসনের নানা মহলে তদবিরের অভিযোগ রয়েছে।

স্থানীয় এলাকাবাসী জানায়, ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের চরঈশ্বরদিয়া মৌজার সাহেবখালী খালের সাথে ব্রহ্মপুত্র নদের সংযোগের একটি খাল কোতোয়ালি থানা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ফজলুল হকের ভাই মোশারফ হোসেন জবরদখলসহ মাটি ফেলে ভরাট করে ফেলে।

খাল ভরাট বন্ধে স্থানীয় এলাকাবাসী ময়মনসিংহের বিভাগীয় কমিশনার, ডিআইজি-ময়মনসিংহ রেঞ্জ, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন ও পরিবেশ অধিদপ্তরসহ সরকারের নানা মহলে লিখিত আবেদন জানায় গত দুই সপ্তাহ আগে।

এসময়ে খাল ভরাট নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে একাধিক খবর প্রকাশ করা হয়। ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল ও ময়মনসিংহ মহানগর আওয়ামীলীহের সাধারণ সম্পাদক মোহিত উর রহমান শান্তসহ একাধিক নেতৃবৃন্দকেও খাল ভরাটের বিষয়টি অবগত করা হয়।

কিন্তু কার্যকর ও দৃশ্যমান কোন উদ্যোগ গ্রহন না করায় ক্ষমতাধর মোশারফ হোসেন ও তার সহযোগীরা বীরদর্পে জবরদখলসহ খালটি ভরাট করে ফেলতে সক্ষম হয়। এ নিয়ে ক্ষুব্ধ ও হতবাক এলাকাবাসী।

ব্রেকিং নিউজঃ