| |

ফেব্রুয়ারির ঐতিহ্য

আপডেটঃ ১:২৮ অপরাহ্ণ | ফেব্রুয়ারি ০৭, ২০১৬

Ad
আলোকিত ময়মনসিংহ : ফেব্রুয়ারি মাস এলে বাংলাদেশের মানুষ স্বাধিকার চেতনার বজ নির্ঘোষ শোনে। এই চেতনার ভিত্তিতে গড়ে উঠেছিল মাতৃভাষার মর্যাদা রক্ষার আন্দোলন। শহীদের রক্তের বিনিময়ে এবং সকল শ্রেণির মানুষের আত্মত্যাগে সেই সংগ্রাম সফল হতে পেরেছিল। সংগ্রামী চেতনা ও ঐক্যবোধের শক্তি দিয়েছিল গণজাগরণের সেই আন্দোলন। সেই সাফল্য ও বিজয় আমাদের জাতির এক উজ্জ্বল অধ্যায়। এই ঐতিহ্যের ধারাবাহিকতায় শুরু হয় আর্থ-রাজনৈতিক অধিকার আদায়ের আন্দোলন, যার পরিণতি স্বাধীনতার যুদ্ধ। সেই যুদ্ধেও জনগণের সংগ্রামী চেতনা ও ঐক্যবোধ স্বস্তির উত্স হয়েছিল। মুক্তিযুদ্ধ যে আমাদের জাতীয় জীবনে সবচেয়ে গৌরবজনক ইতিহাসের মাইলফলক হতে পেরেছিল— তার পেছনে ছিল ভাষা আন্দোলনের ঐতিহ্য।
ফেব্রুয়ারি মাস এলেই এ দেশের মানুষ মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠার বিষয়ে নতুন করে সচেতন হয়। প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তির হিসাব হয় তখন। স্বাধীনতার পর প্রাপ্তি যেমন এসেছে, কিছু যে অপ্রাপ্তি রয়ে গিয়েছে এই উপলব্ধি ঘটে। প্রাপ্তি নিয়ে আমরা সন্তোষ প্রকাশ করি। অপ্রাপ্তির জন্য আমাদের দাবি সোচ্চার হয়ে উঠে। লেখকের লেখায়, গায়কের গানে, শিল্পীর ছবিতে এর প্রতিফলন দেখা যায়। যে আদর্শের আলোকে ভাষা আন্দোলন হয়েছিল, মুক্তিযুদ্ধের যে চেতনায় স্বাধীনতা এসেছিল, সেই আদর্শ ও চেতনা সকলের জন্য সুখী ও সমৃদ্ধ দেশ গড়ার লক্ষ্যে আমাদের উদ্বুদ্ধ করে।
সকল শ্রেণির মানুষের একতাবদ্ধ অংশগ্রহণেই যে দেশ গড়ার পদক্ষেপ বলিষ্ঠ হয়ে উঠতে পারে— ফেব্রুয়ারি মাস এলেই আমাদের মনে সেই বিশ্বাস দৃঢ় হয়। সুখী-সমৃদ্ধ দেশে বাস করার অধিকার যেমন জাতি-ধর্ম-শ্রেণি নির্বিশেষে সকলের, তার জন্য যার যার দায়িত্ব পালনও সর্বজনীন বলে স্বীকার করতে হবে। অধিকার প্রতিষ্ঠায় আমরা যেমন দাবি অব্যাহত রাখবো, সেই সঙ্গে নিঃস্বার্থভাবে আমাদের কাজ করে যেতে হবে নিজ নিজ ক্ষেত্রে। ফেব্রুয়ারি এলে এ কথা স্পষ্ট হয়ে ওঠে। একেই বলা যায় ফেব্রুয়ারির ঐতিহ্য।

ব্রেকিং নিউজঃ