| |

ময়মনসিংহ সিটি নির্বাচনে খরচ হবে ১৩ কোটি টাকা

আপডেটঃ ১১:৩৫ পূর্বাহ্ণ | এপ্রিল ১৯, ২০১৯

Ad

ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের সম্ভাব্য ব্যয়ের বাজেট ধরা হয়েছে প্রায় ১৩ কোটি টাকা। নির্বাচন পরিচালনা, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এবং ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) এই তিন খাতে এ অর্থ খরচ হবে। তবে এ নির্বাচনে সবচেয়ে বেশি খরচ ধরা হয়েছে ইভিএম ব্যবহার বাবদ।

নির্বাচন কমিশনের (ইসি) বাজেট শাখা সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

দেশের ১২তম ও সর্বশেষ এই সিটি করপোরেশনটিতে ভোট হবে আগামী ৫ মে।

ইসি সূত্র জানায়, ময়মনসিংহ সিটি ভোটে নির্বাচন পরিচালনার খরচ ধরা হয়েছে দেড় কোটি টাকা। এই অর্থ খরচ হবে রিটার্নিং কর্মকর্তা, সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তাদের সম্মানি, অপ্যায়ন, ভোটকেন্দ্রের কক্ষ তৈরি, কেন্দ্রের মালামাল পরিবহন ও কাগজ, কালি খাতে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পিছনে সম্ভাব্য খরচ ধরা হয়েছে আড়াই কোটি টাকা। এছাড়াও ইভিএম ব্যবহারের জন্য প্রশিক্ষণ, মক ভোটিং বাবদ প্রায় ৯ কোটি টাকা খরচ করা হবে।

উল্লেখ্য, ময়মনসিংহ সিটি নির্বাচনের ১৩০টি ভোট কেন্দ্রের সব কয়টিতে ইভিএম ব্যবহার করা হবে। ১৩০টি কেন্দ্রের প্রতিটিতে ৩টি করে ৩৯০টি ইভিএম ব্যবহার করা হবে। একই সঙ্গে ব্যাকআপ হিসাবে সমসংখ্যক মেশিন প্রস্তুত রাখা হবে।

এর আগে গত ২৫ মার্চ ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে ইসি। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী আগামী ৫ মে এই সিটিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন ছিল গত ৮ এপ্রিল। মনোনয়নপত্র যাচাই বাচাই হয় গত ১০ এপ্রিল। মনোনয়নপত্র বাতিলের বিরুদ্ধে আপিল দায়ের হয় ১১ থেকে ১৩ এপ্রিল। আপিল নিষ্পত্তি ১৪ থেকে ১৬ এপ্রিল, প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ১৭ এপ্রিল, প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ ১৮ এপ্রিল এবং ভোট গ্রহণ ৫ মে।

দেশের ১২তম ও সর্বশেষ সিটি করপোরেশন ময়মনসিংহ। ৩৩ সাধারণ ওয়ার্ড ও ১১টি সংরক্ষিত ওয়ার্ড নিয়ে এই সিটি গঠিত হয়েছে।

২০১৮ সালের ২ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে প্রশাসনিক পুনর্বিন্যাস-সংক্রান্ত জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির (নিকার) বৈঠকে ময়মনসিংহ বিভাগের ময়মনসিংহ জেলার ময়মনসিংহ পৌরসভাকে দেশের ১২তম সিটি করপোরেশন করার সিদ্ধান্ত নেয়। পরে ১৪ অক্টোবর ভৌগলিক সীমানা নির্ধারণ করে ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের গেজেট প্রকাশ করে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়।