| |

এডভোকেট সাদেক খান মিল্কী টজুর রাজনৈতিক সংক্ষিপ্ত জিবন বৃত্তান্ত

আপডেটঃ ৬:৩৩ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ২১, ২০১৯

Ad

রুহুল আমিন:  এডভোকেট সাদেক খান মিল্কী টজু তিনি একজন সচ্ছ আর্দশবান রাজনীতি বিদ । ভালোবাসেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবকে ।ভালোবাসেন জননেএী শেখ হাসিনা ও তার সহ পরিবার বর্গকে । ভালোবাসেন আওয়ামীলীগ পরিবার কে । তিনি ১৯৭৮ সালে ময়মনসিংহ শহর ছাএলীগের যুগ্ম আহবায়ক নির্বাচিত হয়ে ওনি আওয়ামী রাজনৈতিক ক্যারিয়ার শুরু করেন । ১৯৭৯ সালে জেলা ছাএলীগের কার্যকরী সদস্য হোন । ১৯৮০ সালে জেলা ছাএলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হোন । ১৯৮১ সালে আ মোকসুর ছাএ সংসদের সাধারণ সম্পাদক হোন । ১৯৯০ সালে শ্বৈরাচার এরশাদ সরকার বিরুধী আন্দোলনে রাজপথে লড়াকু নেতৃত্ব দেন । ১৯৯১ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ময়মনসিংহ সদর ৪ আসনে আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী পক্ষে গনজোয়ার সৃষ্টি করেন । ১৯৯৫ সালে খালেদা জিয়ার সরকার পতন আন্দোলনে রাজপথে লড়কু নেতৃত্ব দেন । ১৯৯৭ সালে শহর আওয়ামীলীগের কার্যকরী সদস্য নির্বাচিত হোন । ২০০১ সালে শহর আওয়ামীলীগের যুগ্ম আহবায়ক নির্বাচিত হোন । ২০০১ সালের শেষের দিকে বিএনপি জামাত সরকারের নামানো অপারেশন ক্লিন হার্ট নামক বাহিনী কতৃর্ক নির্যাতিত হোন । তারও তিনি থেমে থাকেননি প্রতিটি ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে কোন ভয় ভীতির তোয়াক্কা না করে আওয়ামীলীগের কমিটি সাজিয়ে দেন । তার ফলে তিনি ২০০২ সালে শহর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নিবাাচিত হোন । তার পর বিএনপি জামাত সরকারের সাজানো মিথ্যা বোমা হামলার আসামী হোন । কোটে জামিন নিয়ে ২০১৬ নাগাত চালিয়ে যান শহর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদকের দায়িত্ব । ২০১৮ সালে ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামীলীগের সহ~সভাপতি নির্বাচিত হোন । ২০১৯ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ময়মনসিংহ সদর ৪ আসনে নৌকার মনোনয়ন চেয়ে ব্যর্থ হোন । তারপর ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়রপদে মনোনয়ন চেয়ে সেখানেও ব্যর্থ হোন । তারপরেও তিনি থেমে থাকেননি চালিয়ে যাচ্ছেন দলীয় সভা সমাবেশের মত সকল কর্মসুচী । এমন দলপরিশ্রমী নেতা কে আগামীতে জননেএী শেখ হাসিনা যথা জায়গায় যথার্থ মুল্যায়ন করবেন বলে আমরা কর্মিরা মনে করি । আওয়ামীলীগের জয় হোক জননেএী শেখ হাসিনার জয় হোক । পরিশেষে জননেএী শেখ হাসিনার দীর্ঘায়ু জীবন কামনা করি । জয়বাংলা জয়বঙবন্ধু ।

ব্রেকিং নিউজঃ