| |

যৌন নিপীড়নের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিতে প্রয়োজনে আইন পরিবর্তন: প্রধানমন্ত্রী

আপডেটঃ ১০:১০ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ৩০, ২০১৯

Ad

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘যৌন নিপীড়নের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করতে প্রয়োজনে আইনের পরিবর্তন আনা হবে।’ একইসঙ্গে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ নিয়ন্ত্রণে গোয়েন্দা সংস্থাসহ আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর তৎপরতার পাশাপাশি জনসচেতনতা গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

সোমবার রাতে জাতীয় সংসদের অধিবেশনে সন্ত্রাস ও যৌন নিপীড়নের বিরুদ্ধে একটি প্রস্তাবের ওপর সংসদ নেতার বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের মসজিদ এবং শ্রীলঙ্কার গির্জা ও হোটেলে সন্ত্রাসী হামলা, ফেনীর সোনাগাজীতে মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাতক পুড়িয়ে হত্যার মতো ঘটনার বিরুদ্ধে একটি সাধারণ আলোচনার প্রস্তাব উত্থাপন করেন আওয়ামী লীগের নেতা তোফায়েল আহমেদ।

১৪৭ বিধিতে আনা প্রস্তাবটির ওপর বক্তব্য দেন সরকার ও বিরোধীদের বেশ কয়েকজন সংসদ সদস্য। এ সময় শ্রীলঙ্কার সন্ত্রাসী হামলায় নিহত জায়ান চৌধুরীর মৃত্যুতে শোক জানান সংসদ সদস্যরা।

আর নুসরাতকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় ক্ষোভ ও ঘৃণা প্রকাশ করে এ ধরনের নৃসংস ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে আইনের পরিবর্তন আনারও দাবি জানান সংসদ সদস্যরা।

পরে সংসদ নেতা তাঁর বক্তব্যে যৌন নিপীড়ন রোধে সরকারের নেওয়া নানা পদক্ষেপের কথা জানান। যৌন নিপীড়নের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চত করতে সরকারের কঠোর অবস্থান তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘যারাই এ ধরনের ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকবে দলমত নির্বিশেষে, কে করছে তা আমি দেখব না। সবার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। যারাই এ ধরনের যৌন নিপীড়ন করবে তাদের যেন সর্বোচ্চ শাস্তি হয়, সেজন্য প্রয়োজনে আমরা আইনে পরিবর্তন আনব।’

একইসঙ্গে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ নিয়ন্ত্রণে সরকারের বিভিন্ন বাহিনীর ভূমিকার পাশাপশি জনগণের সহযোগিতা চান প্রধানমন্ত্রী। সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও যৌননিপীড়নের বিরুদ্ধে উত্থাপিত প্রস্তাবটি সংসদে কণ্ঠভোটে পাস হয়।

ব্রেকিং নিউজঃ