| |

২০২১ সালের আগেই বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের এবং ২০৪১ সালে উন্নত দেশ হিসাবে গড়ে উঠবে – এড জহিরুল হক খোকা

আপডেটঃ 7:06 pm | February 10, 2016

Ad

স্টাফ রিপোর্টারঃ ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় আধুনিকমানের পৌর সাধারণ পাঠাগার কাম অডিটরিয়াম উদ্বোধন করেন ময়মনসিংহ জেলা পরিষদের প্রশাসক ও জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ জহিরুল হক।
ফলক উন্মেচন ও ফিতা কেটে উদ্বোধন শেষে এড জহিরুল হক বলেন, জ্ঞান অর্জনের একমাত্র পথ বই। এ পাঠাগারটি ঐতিয্যবাহী মুক্তাগাছার মানুষকে আলোকিত ও উজ্জল করবে। মানুষ বিশ্বাস ভঙ্গ করলেও বই বিশ্বাস ভঙ্গ করেনা। তিনি সকলকে বই পড়ার প্রতি মনোযোগী হওয়ার আহবান জানিয়ে বলেন, শিক্ষিত জনগোষ্টি জাতিকে উন্নত শিখরে নিতে পারে। জননেত্রী শেখ হাসিনা তা উপলব্দি করে জাতিকে শিক্ষিত করে তুলতে কাজ করছেন। এ লক্ষ্যে বছরের প্রথম দিনে নতুন প্রজন্মের হাতে ৩৩ কোটি বই বিনামুল্যে তুলে দিয়েছেন। এছাড়া বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে জাতিকে আধুনিক জ্ঞান সম্পন্ন মানব সম্পদ হিসাবে গড়ে তুলতে তথ্য প্রযুক্তি নির্ভর শিক্ষায় শিক্ষিত করতে ডিজিটাল বাংলাদেশ রূপকল্প বাস্তবায়নে কাজ করছেন। দেশে উন্নয়ন তরান্বিত হয়েছে। আর সেই উন্নয়নকে বাধাগ্রস্থ করতে বিএনপি জামাত জোট জালাও পোড়াওয়ের রাজনীতি করে। উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে সকলের সহযোগীতা কামনা করে তিনি আরো বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকার শিক্ষা, কৃষি, স্বাস্থ্য যোগযোগসহ বিভিন্ন খাতে অভাবনীয় সফলতা অর্জন করে দেশকে মধ্যম আয়ের দেশে নিয়ে যেতে চেষ্ঠা চালিয়ে যাচ্ছেন। দেশবাসীর সহযোগীতায় শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকলে আল্লাহর রহমতে ২০২১ সালের আগেই বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের এবং ২০৪১ সালে উন্নত দেশ হিসাবে গড়ে উঠবে।

Mymensingh PIC 01
মুক্তাগাছার পৌরসভার শতবর্ষ উদযাপন উপলক্ষে ১৯৭৬ সালে তৎকালীন মেয়র তালেব আলীসহ স্থানীয়দের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত জরাঝীর্ণ পাঠাগারটি স্থানীয়বাসী পুণর্নিমানের জন্য দীর্ঘদিন ধরে দাবী করে আসছিল। ময়মনসিংহ জেলা পরিষদের প্রশাসক এডভোকেট মোঃ জহিরুল হক পাঠাগারটি আধুনিকমানের দ্বিতল ভবন নির্মাণ করার উদ্দোগ নেন। যার নীচতলায় লাইব্রেরী ও উপর তলায় বিশাল অডিটরিয়াম নির্মাণ করা হয়। এক কোটি ২১ লাখ টাকা ব্যয়ে সাশ্রয়ী অর্থে একই ভবনে লাইব্রেরী ও অডিটরিয়াম নির্মাণ করা হয়।
বুধবার দুপুরে মুক্তাগাছা থেকে নির্বাচিত এমপি সালাহ উদ্দিন মুক্তি, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আব্দুল আউয়াল, পৌর মেয়র আব্দুল হাই আকন্দ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ডঃ উম্মে আফছারী জহুরা, সহকারী প্রকৌশলী ওয়াহিদুজ্জামান, পাঠাগারের সাধারণ সম্পাদক উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আবুল কাশেম, উপসহাকারী প্রকৌশলী মোঃ আব্দুর রউফ, জেলা প্রশাসকের ব্যক্তিগত সহকারী হুমায়ুন কবির হিমেল উপস্থিত ছিলেন।

ব্রেকিং নিউজঃ