| |

মশক নিধনে ও জনসচেতনতার লক্ষ্যে নিজেই নামলেন মসিকের মেয়র টিটু

আপডেটঃ ৯:১২ অপরাহ্ণ | আগস্ট ০৪, ২০১৯

Ad

ডেঙ্গু প্রতিরোধে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযানের পাশাপাশি মশক নিধন কার্যক্রম শুরু করেছে ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষ।

বুধবার (৩১জুলাই) বিকেলে নগরের গভর্নমেন্ট ল্যাবরেটরী হাই স্কুল প্রাঙ্গনে এ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো: ইকরামুল হক টিটু।

মশক নিধন কর্মসূচির অংশ হিসেবে গভর্নমেন্ট হাই স্কুলের প্রাঙ্গনে ক্যামিক্যাল স্প্রে এবং ব্লিচ পাউডার ছিটানোসহ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযানে মেয়র টিটু নিজেই নেমে এ কর্মসূচীতে অংশ নেন তিনি।

এর আগে গত কয়েকদিন পূর্বেই ডেঙ্গু প্রতিরোধে সচেতনতা বাড়াতে সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষের আয়োজনে একটি র‌্যালি বের করা হয়েছিল। এতে মসিকের মেয়র টিটুর নেতৃত্বে ‍র‌্যালিতে নগরের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ অংশ নেন।

ডেঙ্গু প্রতিরোধ ও পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযানের পূর্বে শিক্ষার্থীদের উদ্দ্যেশে মেয়র বলেন, এডিস মশার কামড়ে আক্রান্ত হয়ে ময়মনসিংহসহ সারাদেশে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়ে অনেকে অকালে মৃত্যুবরণ করছে। অনেকে বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। বাঁচতে হলে এডিস মশা নিয়মিত নিধন করতেই হবে।

তিনি বলেন, ঘর ও আশপাশের যে কোন পাত্রে বা জায়গায় জমে থাকা পানি নিয়মিত পরিষ্কার করলে এডিস মশার লার্ভা মরে যায়। ব্যবহৃত পাত্রের গায়ে লেগে থাকা মশার ডিম অপসারনে পাত্রটি ঘষে পরিষ্কার করতে হবে। যে কোনো উপায়ে এডিস মশা ধ্বংস করতে হবে।

সিটির মেয়র আরো বলেন, ডেঙ্গু একটি ভাইরাসজনিত জ্বর। যা এডিস মশার মাধ্যমে ছড়ায়। সাধারণ চিকিৎসাতেই ডেঙ্গু সেরে যায়, তবে হেমোরেজিক ডেঙ্গু জ্বর মারাত্বক হতে পারে। এডিস মশার বংশ বৃদ্ধি রোধের মাধ্যমে ডেঙ্গু রোগ প্রতিরোধ করা যায়। এ বিষয়ে প্রত্যেককে সচেতন থাকতে হবে।

এসময় সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর আসিফ হোসেন ডন, সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর মোছা: শামীমা রহমান, সিটি কর্পোরেশনের স্বাস্থ্য বিভাগের স্যানেটারী ইন্সপেক্টর দীপক মজুমদার, মেডিকেল অফিসার এইচ কে দেবনাথ, কনজারভেটিভ ইন্সপেক্টর মো: মহব্বত আলীসহ বিভিন্ন কর্মকর্তা ডেঙ্গু প্রতিরোধ ও মশক নিধন কর্মসূচিতে অংশ নেয়।

ব্রেকিং নিউজঃ