| |

ময়মনসিংহ পুলিশ সুপারের দিক নির্দেশনায় ডিবি ওসির সফল অভিযান

আপডেটঃ 10:01 pm | February 10, 2016

Ad

মোঃ মেরাজ উদ্দিন বাপ্পিঃ  ময়মনসিংহ জেলার গোয়েন্দা সংস্থার পুলিশ (ডিবি) বিভিন্ন সময়ে অভিযানে আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার, মাদক উদ্ধার ও খুনসহ বিভিন্ন মামলার অভিযুক্তদের দ্রুত গ্রেফতারে ময়মনসিংহ জেলায় আইনশৃঙ্খলায় স্থিতিশীল রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রেখেছে বলে জেলার রাজনৈতিক মহলসহ ব্যবসায়ীরা দাবী করেন।
এ ব্যাপারে অনুসন্ধ্যান চালিয়ে দেখা যায় জেলার পুলিশ সুপার মঈনুল হকের দিক নির্দেশনা ও তদারকিতে গোয়েন্দা সংস্থার অফিসার ইনচার্জ ইমারত হোসেন গাজীর নেতৃত্বে বিভিন্ন স্থনে অভিযান চালিয়ে আগ্নেয়াস্ত্র ও বিস্ফোরক উদ্ধার, অটো উদ্ধার, মোটর সাইকেল উদ্ধারসহ গত ১০ মাসে ২৮৫ গ্রাম হেরোইন, ২৯২২ পিস ইয়াবা, ১৫১ কেজি গাঁজা, ২২৬ বোতল ফেনন্সিডিল, ২০ লিটার দেশীয় মদ, ৪৬ বোতল বিদেশী মদ, ৯৭ টি নেশা জাতিয় ইনজেকশন, ৩ টি ককটেল, ৫ টি মোটর সাইকেল উদ্ধার করেছেন। সেই সাথে ঘটনার সাথে জড়িত ২২১ জনকে আটক করেছেন। এসকল ব্যাপারে ১২৬ টি মামলা রুজু হয়েছে।
অনুসন্ধ্যানে দেখা যায়, ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ সুপার মঈনুল হক ডিবিকে বিশ্বস্থ মনে করে বিভিন্ন সময়ে মাদক, অস্ত্র উদ্ধার ও সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারের জন্য ডিবি পুলিশকে দ্বায়িত্ব দিয়ে থাকেন। প্রতিটি দ্বায়িত্বই সফলতার মূখ দেখেছে। এগুলো ছাড়াও ময়মনসিংহ শহরসহ বিভিন্ন স্থানে হত্যা আসামীগুলো ডিবি পুলিশ গ্রেফতার করে সংশ্লিষ্ট থানা গুলোতে সোপর্দ করেছে। ময়মনসিংহ শহরে শেষ রাতে ছিনতাই ঠেকাতে ডিবি পুলিশ নিয়মিত টহল দিয়ে থাকে।
ডিবি সূত্রে জানাগেছে, গত মার্চ/১৫, ১৭টি নিয়মিত মামলা হয়েছে, ২১ জন গ্রেফতার হয়েছে। এ মাসে ১৪ টি নেশার ইনজেকশন, ১০ লিটার মদ, ৫২ বোতল ফেন্সিডিল, ৭০০ গ্রাম গাঁজা, ১০ পিস ইয়াবা, ১৯ গ্রাম হেরোইন উদ্ধার হয়। এপ্রিল/১৫, ২০ গ্রাম হেরোইন, ২৭৩ পিস ইয়াবা, ৫০০ গ্রাম গাঁজা, ৭ বোতল ফেন্সিডিল, ১০ লিটার দেশি মদ, ২ বোতল বিদেশী মদ, ৪২ টি ইনজেকশন, ১ টি রাম দা, ১ টি বডি দা, ২ টি লোহার ছুরি ও ৩ টি মোটর সাইকেল উদ্ধার করে, ২০ মামলা রুজু করে, ৩১ জনকে আটক করেন। মে/১৫, ২৭ গ্রাম হেরোইন, ২৭৬ পিস ইয়াবা, ১ কেজি সাড়ে ৪০০ গ্রাম গাঁজা জব্দকরে, ১৪ টি মামলায়, ১৮ জনকে আটক করেছে।
জুন/১৫, ২১ গ্রাম হেরোইন, ৩৪  পিস ইয়াবা, ২৩ কেজি ২’শ গ্রাম গাঁজা, ৩৩ বোতল ফেন্সিডিল ও ১০ টি নেশার ইনজেকশন জব্দ করে, ১৬ টি মামলায়, ২০ জনকে আটক করেছে। জুলাই/১৫, ৪৬ গ্রাম হেরোইন, ৮ পিস ইয়াবা, ১ কেজি ৯’শ গ্রাম গাঁজা জব্দ করে, ১৪ টি মামলা, ১৫ জনকে গ্রেফতার করেছে। আগষ্ট/১৫, ২০ গ্রাম হেরোইন, ২৭ পিস ইয়াবা, ১১৭ কেজি ৬’শ গ্রাম গাঁজা, ৫ বোতল বিদেশী মদ, ১৬ টি নেশার ইনজেকশন, ৩ টি ককটেল জব্দ করে, ১৬ টি মামলায়, ১৯ জনকে গ্রেফতার করেছে।
সেপ্টেম্বর/১৫, ৩০ হেরোইন, ৩১০ ইয়াবা, ৫৬ বোতল ফেন্সিডিল, ৩৯ বোতল বিদেশী মদ, ২ টি মোটর সাইকেল, ১টি ছুড়া ও ২ টি জব্দ করে ১৪ মামলায়, ২১ জনকে গ্রেফতার করেছেন।
অক্টোবর/১৫, ১৯ গ্রাম হেরোইন, ৮৫ পিস ইয়াবা, ২ কেজি ৩’শ গ্রাম গাঁজা, ৯২ টি এক হাজার জাল নোট, বিভিন্ন ইসলামী জেহাদী বই জব্দ করে, ১৫ টি মামলায়, ৪৭ জনকে গ্রেফতার করে।
নভেম্বর/১৫, ১৯ গ্রাম হেরোইন, ৩০১ পিস ইয়াবা, ৩ কেজি ৩’শ গ্রাম গাঁজা, ২৬ বোতল ফেন্সিডিল, ১টি পাইপ গান, ৩ রাউন্ড কার্তুজ, ১ টি চাইনিজ কুড়াল, ২ টি বিদেশী পিস্তল, ৮ রাউন্ডগুলি, ৩ টি ম্যাগজিন জব্দ করে, ২৯ জনকে গ্রেফতার করে। এ সংক্রান্ত বেশ কয়েকটি নিয়মিত মামলা হয়েছে।
ডিসেম্বর/১৫, ২০৫০ পিস ইয়াবা, ৩২ গ্রাম হেরোইন, ২১ বোতল হেরোইন, বিভিন্ন জেহাদী বাই, ২ টি বিদেশী পিস্তল, ৯ রাউন্ডগুলি ও ২ টি ম্যাগজিন উদ্ধার করেছেন। এব্যাপারে বিভিন্ন সময়ে নিয়মিত মামলা হয়েছে।
জানুয়ারী/১৬, ২২ গ্রাম হেরোইন, ৩১ বোতল ফেন্সিডিল, ১২৫ পিস ইয়াবা, ১০ রাউন্ড গুলি, ২ টি পিস্তলের বডি, ১ টি চাইনিজ পিস্তল ও অস্ত্র তৈরীরি বিভিন্ন যন্ত্রপাতি জব্দ করে পৃথক পৃথক ঘটনায় মামলা করে সংশ্লিষ্ট ব্যাক্তিদের গ্রেফতার করেন। পুলিশ সুপারে দিক নির্দেশনায় বিভিন্ন সময়ে ডিবি পুলিশ এসকল দুঃসাহসিক অভিযান চালায়। আর প্রতিটাই সফলতার মুখ দেখেছে।
অপরদিকে ময়মনসিংহ কোতোয়ালী মডেল থানার পুলিশ উল্লেখ যোগ্য ভুমিকা রেখেছেন। শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম কলেজের ছাত্র শাকিল হত্যার মুল আসামি ৩ জনকে দ্রুত গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। সেই সাথে রহস্য উন্মোচন করে গ্রেফতার কৃতরা আদালতে ১৬৪ দ্বারায় জবান বন্ধি প্রদান করেন।
উল্লেখ্য, অনুষন্দানে আরও দেখা যায় দলমতের উর্দ্বেথেকে রাজনৈতিক কোন চাপের মুখে নতি স্বীকার না করে জেলা পুলিশ প্রশাসন আইন শৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে স্বক্ষম হয়েছে।

ব্রেকিং নিউজঃ