| |

পাটুরিয়ায় গাড়ির চাপ, দৌলতদিয়ায় নেই

আপডেটঃ ২:২৯ অপরাহ্ণ | আগস্ট ০৯, ২০১৯

Ad

ঈদে ঘরমুখী বাড়তি যাত্রী ও গাড়ির চাপে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে ধীরগতিতে যানবাহন চলছে। এতে গন্তব্য পৌঁছাতে নির্ধারিত সময়ের চেয়ে দ্বিগুণ সময় লাগছে। মানিকগঞ্জের শিবালয়ের পাটুরিয়া ঘাট এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, ঘরমুখী মানুষ ও গাড়ির বেশ চাপ রয়েছে। বেলা ১১টা ৪৫ পর্যন্ত পাটুরিয়া ঘাট এলাকায় শতাধিক যাত্রীবাহী বাসকে নদী পারের অপেক্ষায় থাকতে দেখা গেছে।

পুলিশ ও বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন সংস্থার (বিআইডব্লিউটিসি) আরিচা কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ঈদের আগে শেষ কার্যদিবস ছিল গতকাল। বৃষ্টির কারণে অনেক যাত্রী আজ সকাল থেকে ঢাকা–আরিচা মহাসড়ক হয়ে পাটুরিয়ায় আসছেন। এতে ঢাকা আরিচা মহাসড়কে মানিকগঞ্জ অংশের পুকুরিয়া থেকে উথলি পর্যন্ত দুই পাশের যানবাহনের দীর্ঘ সারি আছে। এসব যানবাহন অত্যন্ত ধীরগতিতে চলছে।

এই মুহূর্তে পাটুরিয়া–দৌলতদিয়া ফেরিঘাটে ১৮টি ফেরি চলছে। তবে এই ফেরি বাড়তি যাত্রী ও যানবাহনের জন্য পর্যাপ্ত নয়। ঈদ যত এগিয়ে আসছে, যাত্রী ও যানবাহনের চাপ ততই বাড়ছে। ঈদের আগে ২০টি ফেরি চলাচলের সিদ্ধান্ত হয়েছিল।

মানিকগঞ্জ পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম বলেন, ঢাকা–আরিচা মহাসড়কের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে গাড়িগুলো সুশৃঙ্খলভাবে চলাচলের জন্য কাজ করছেন পুলিশ সদস্যরা।

বিআইডব্লিউটিসির আরিচা কার্যালয়ের ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) মো. সালাহ উদ্দীন বলেন, নদীতে তীব্র স্রোত রয়েছে। এতে ফেরিগুলো চলাচলে সময় বেশি লাগছে। তবে যে কটি ফেরি আছে, সেগুলো নিয়মিত চলাচল করলে যানবাহন পারাপারে সমস্যা হবে না।

অন্যদিকে কিছুটা উল্টো চিত্রই দেখা গেছে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া ঘাটে। ঢাকামুখী যানের তেমন চাপ নেই ঘাটে। বেলা সোয়া ১১টায় সরেজমিনে দেখা যায়, বেশির ভাগ গাড়িই ঘাট পার হয়ে গেছে। ঢাকা থেকে দক্ষিণমুখী মানুষেরা বিভিন্ন উপায়ে নদী পার হয়ে সরাসরি বাসে উঠে গন্তব্যে চলে যাচ্ছেন। প্রচুর খালি গাড়ির লম্বা লাইন। এরা যাত্রী নিয়ে চলে যাচ্ছে।

কয়েকজন বাসচালক জানালেন, দৌলতদিয়া ঘাট থেকে দিনে আট থেকে নয়টি করে দক্ষিণের দিকের ট্রিপ দিচ্ছেন তাঁরা। ঢাকামুখী গাড়ির চাপ না থাকায় খালি ফেরি যাচ্ছে পাটুরিয়ার দিকে।

ব্রেকিং নিউজঃ