| |

ময়মনসিংহে ডিবি’র ওসি শাহ কামাল এক বছরে সফল ॥ গুরুত্বপূর্ণ ১৫ মামলার রহস্য উদঘাটনসহ মাদক উদ্ধারে আপোষহীন

আপডেটঃ 11:07 pm | September 03, 2019

Ad

আ:আজিজ: ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) ওসি শাহ কামাল আকন্দ গত এক বছরে ব্যাপক সফলতা অর্জন করেছেন। এর মধ্যে হত্যা, খুনসহ ডাকাতি ও বিদ্যুতের তার চুরি মামলার রহস্য উদঘাটনে দায়িত্বশীল ও দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন। এ সময়ে ডিবি পুলিশের সাথে ১৩ অপরাধী বন্ধুযুদ্ধে নিহত হন। ডিবি পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, ওসি শাহ কামাল গত বছরের ৩ সেপ্টেম্বর ময়মনসিংহ ডিবি পুলিশের ওসি হিসাবে দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। গত ২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ পর্যন্ত এক হিসাবে দেখা গেছে, চাঞ্চল্যকর ১০টি হত্যা মামলা, ২টি খুনসহ ডাকাতি, একটি অপহরণ করত হত্যা, কোটি টাকার বিদ্যুতের তার চুরি ও একটি ডিজিটাল মামলাসহ ১৫টি গুরুত্বপুর্ণ মামলার রহস্য উদঘাটনসহ খুনী ও অপরাধীদের গ্রেফতার করে পুলিশ প্রশাসনে ব্যাপকহারে প্রশংসিত হয়েছেন। এ সকল মামলার মধ্যে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি রাসেল হত্যা, মুক্তাগাছায় মাথাবিচ্ছিন্ন করে ভ্যানচালক হত্যা, গফরগাওয়ে স্কুল ছাত্র হত্যা, ফুলবাড়িয়ার উজলহাটিতে হাফেজ হত্যা, ত্রিশালে ধান ব্যবসায়ী হত্যা, পাগলা থানায় অটোবাইক চালক হত্যা, গৌরীপুরে জনি হত্যা, মুক্তাগাছার পল্লীবিদ্যুতের আলোচিত কোটি টাকার তার চুরি মামলা, পদ্মা সেতুতে মাথা লাগবে এরূপ গুজব রটনাকারীকে গ্রেফতার ও ঈশ্বরগঞ্জে ট্টিপল হত্যা মামলা বহুল আলোচিত ও গুরুত্বপূর্ণ। পুলিশ আরো জানায়, ডিবি পুলিশের ওসি শাহ কামাল একজন দক্ষ, মেধাবী ও দায়িত্বশীল পুলিশ কর্মকর্তা। তার সঠিক ও দায়িত্বশীল মনোভাব এবং ন্যায় পরায়নতার ফলে পুরো ডিবি পুলিশ একটি গ্রুপে আবদ্ধ হয়ে সম্মিলিতভাবে কাজ করে আসছে। তার সঠিক, দায়িত্বশীল ও ন্যায় পরায়নতায় সকল অফিসার ও পুলিশ সদস্যগণ নিজ নিজ দায়িত্বে অটল থেকে সাহসিকতার সাথে কাজ করছেন। ফলে গত এক বছরে ৯৮৪জন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়েছে। এ সময় মাদক আইনে ৫৪৬টি মামলা করা হয়। এ সব মামলায় ৪৪ হাজার ৫৬৩ পিচ ইয়াবা, ৭১১ গ্রাম,হেরোইন, ১১১ কেজি ৫শত গ্রাম গাজা, ৮৪ বোতল মদ ও ৬৫৯ লিটার চোলাই মদ, ৩৫৭ বোতল ফেন্সিডিল, ৬৬৪টি ইনজেকশন,৮০টি বিয়ার উদ্ধার করা হয়। এছাড়া ১৪টি অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। এ আগ্নেয়ান্ত্রের মধ্যে পাইপগান ৯টি, এলজি একটি, পিস্তল ২টি, রিভলভার ২টি, গুলি ৪ রাউন্ড ও কার্তুজ ১১টি। এছাড়া ২৬টি দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। একই সাথে ১১৮টি চোরাই মোবাইল উদ্ধার, নগদ ১ লাখ ৭৮ হাজার,৪৬০ টাকা উদ্ধারসহ ৮৬টি ডলার, ২০টি এক হাজার টাকার জাল নোট,২১টি চোরাই মোটর সাইকেল উদ্ধার ও ২টি প্রাইভেট কার উদ্ধার করা হয়। একই সাথে ডিবি পুলিশ সরকারী সম্পদ রাবার পাচারকালে ৪ হাজার ৮৬০ কেজি কাচা রাবার উদ্ধার করে। অপরদিকে ফুলপুরের নিখোজ জমজ তিনকন্যাকে উদ্ধারসহ ধোবাউড়ায় গণধর্ষণ মামলার রহস্য উদঘাটনে ব্যাপক দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন সফল ওসি শাহ কামাল আকন্দ। পুলিশ বিভাগে খোজ নিয়ে জানা গেছে পুলিশ পরিদর্শক শাহ কামাল আকন্দ একজন বিনয়ী ও ভদ্রচিত্ত মানুষ। তার আচরণে জেলাবাসি ও পুলিশ বিভাগ খুশি। পুলিশের অনেকেই দাবী করেছেন, তিনি তার নম্রতা ও ভদ্রতা দিয়েই পুরো ডিবি পুলিশকে একমুঠোতে রেখে ন্যায়নীতি বজায় রেখে কাজ করছেন। পুরো ডিবি পুলিশ একমুঠোতে রেখে দায়িত্বশীল ও দক্ষতার সাথে কাজ করার ফলে ওসি শাহ কামাল বার বারই জেলায় এবং রেঞ্জে শ্রেষ্ট পুলিশ পরিদর্শক ওসি ডিবি হিসাবে পুরস্কার প্রাপ্ত হন। রেঞ্জ ও জেলা পুলিশ ময়মনসিংহ ডিবি পুলিশকে নিয়েও গর্বিত বলে জানা গেছে।

ব্রেকিং নিউজঃ