| |

রেলমন্ত্রীর জন্য ট্রেন ছাড়তে পৌনে দুই ঘণ্টা অপেক্ষা

আপডেটঃ 5:18 pm | October 03, 2019

Ad

রেলমন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন দেরিতে পৌঁছায় জামালপুর রেল স্টেশনে বুধবার দুপুরে আন্তনগর তিস্তা এক্সপ্রেস ট্রেন পৌনে দুই ঘণ্টা পর ছেড়েছে। ট্রেনটি বিকাল চারটায় ছাড়ার কথা ছিল। জনসভা শেষ না হওয়ায় নির্ধারিত সময়ে স্টেশনে পৌঁছতে পারেনি তিনি। মন্ত্রী স্টেশনে না পৌঁছায় প্রায় দুই ঘণ্টা স্টেশনে দাঁড়িয়ে ছিল ট্রেনটি। বিকাল ৫টা ৩৫ মিনিটে তিনি স্টেশনে পৌঁছেন। এরপর ৫ টা ৪৫ মিনিটে জামালপুর রেল স্টেশন ছাড়ে তিস্তা এক্সপ্রেস।
এদিকে দেরিতে ট্রেন ছাড়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন যাত্রীরা। তারা অভিযোগ করেন, মন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে যেখানে যাত্রীসেবা বাড়ানোর কথা সেখানে উল্টো যাত্রীদের দুর্ভোগ বেড়েছে। দেওয়ানগঞ্জ থেকে ঢাকাগামী যাত্রী গিয়াস উদ্দিন বলেন, ‘অসুস্থ মাকে নিয়ে ঢাকায় ডাক্তার দেখাতে যাচ্ছি। কিন্তু পৌনে দুই ঘণ্টা দেরি হওয়ায় আজকে আর ডাক্তার দেখাতে পারবো না। জামালপুর থেকে ঢাকাগামী যাত্রী মিলন বলেন, সকালে আমার একটি চাকরির পরীক্ষা আছে। রাতে পৌঁছতে দেরি হলে সকালে ঠিকমতো পরীক্ষা দিতে সমস্যা হবে। মনিরা বেগম নামে আরেকজন বলেন, ‘আমার ঢাকায় বাসা। জামালপুরে চাকরি করি। এখন ট্রেন দেরি হওয়ায় বাসায় পৌঁছতে অনেক বিপদে পড়তে হতে পারে।’
জামালপুর রেলওয়ের স্টেশন মাস্টার মো. শাহাবুদ্দিন বলেন, ‘আন্তনগর তিস্তা এক্সপ্রেস চারটায় জামালপুর স্টেশন ছেড়ে যাওয়ার কথা থাকলেও বুধবার ৫টা ৪৫ মিনিটে ছেড়েছে। দেওয়ানগঞ্জ থেকে ৩০ মিনিট দেরিতে ছেড়ে আসার পর জামালপুরে মন্ত্রীর জন্য সেলুন সংযোজন ও তার আগমন উপলক্ষে বিলম্ব হয়েছে।’
জানা গেছে, রেলমন্ত্রী বুধবার দুপুরে ঢাকা থেকে ট্রেনে জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলার মতিয়র রহমান তালুকদার স্টেশনে পৌঁছেন। সেখানে স্টেশন পরিদর্শন করেন তিনি। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন স্থানীয় সংসদ সদস্য তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানসহ রেলের ঊর্ধতন কর্মকর্তারা। স্টেশন পরিদর্শন শেষে সেখানে স্থানীয় আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন। মন্ত্রী পরে বিকালে সরিষাবাড়ী রেল স্টেশনে স্থানীয় আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। সেখানে জনসভা শেষে বিকাল ৩ টা ৪৫ মিনিটে জামালপুর স্টেশনে যাওয়ার কথা থাকলেও তিনি ৫টা ৩৫ মিনিটে সেখানে পৌঁছেন।

ব্রেকিং নিউজঃ