| |

অচিরেই যাতে ব্রম্মপুত্র নদ খনন করা যায় সেই চেষ্টা করা হবে- নৌ পরিবহন মন্ত্রী

আপডেটঃ 12:20 pm | February 15, 2016

Ad

মো: নাজমুল হুদা মানিকঃ ময়মনসিংহ চেম্বার অব কমার্স এর উদ্যোগে জেলা পরিষদ ভাষা শহীদ আ: জব্বার মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত “নতুন অর্থনৈতিক ভাবনা ও ব্রম্মপুত্র খনন” শীর্ষক সভায় নৌ পরিবহন মন্ত্রী মো: শাহজাহান খান বলেছেন, অচিরেই যাতে ব্রম্মপুত্র নদ খনন করা যায় সেই চেষ্টা করা হবে। ব্রম্মপুত্র নদ খননের পরিকল্পনা বর্তমান সরকারের আছে। তিনি বলেণ, গত মেয়াদে ১৪টি ড্রেজার ছিল, বর্তমান মেয়াদে আরো ২০টি ড্রেজার নির্মান করা হয়েছে। মন্ত্রী আরো বলেন, হালুয়াঘাটে কড়ইতলী ও গোবরাকুড়া পাশাপাশি ২টি স্থলবন্দর করার কোন যুক্তিকতা ছিলনা। উভয় এলাকার জনগন বন্দর করার দাবী জোরালো ভাবে তুলে ছিলেন, যার কারনে সেটি করা সম্বব হয়েছে। ২টি স্থল বন্দর মিলে ৪০ কোটি টাকার প্রকল্প নেয়া হয়েছে। আগামী জুন মাসের মধ্যে স্থল বন্দরের কাজ শুরু হবে ইনশাল্লাহ। ময়মনসিংহ পৌরসভার মেয়র ও ময়মনসিংহ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রিজ এর সভাপতি মো: ইকরামুল হক টিটু‘র সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ময়মনসিংহ জেলা পরিষদ প্রশাসক এডভোকেট আলহাজ্ব জহিরুল হক খোকা, জেলঅ প্রশাসক মুস্তাকীম বিল্লাহ ফারুকী, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন সমিতি, ঢাকা বিভাগীয় পরিচালক, ময়মনসিংহ জিলা মটর মালিক সমিতির প্রতিষ্ঠাতা মহাসচিব, উত্তরাঞ্চলীয় মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদের আহবায়ক ও এফ বি সি সি আই এর পরিচালক আলহাজ্ব মো: আমিনুল হক শামীম, ঢাকা জেলা বাস, কোচ, মিনিবাস, সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন ঢাকা এর সহ-সভাপতি ও ঢাকা বিভাগীয় উত্তরাঞ্চলীয় আঞ্চলিক কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব সাদেকুর রহমান হিরু,ময়মনসিংহ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রিজ এর পরিচালক প্রদীপ ভৌমিক, ময়মনসিংহ জেলা নাগরিক আন্দোলনের সাধারন সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার নুরুল আমীন কালাম, মানবাধীকার কর্মী রোকেয়া প্রাচী প্রমুখ।  ময়মনসিংহ পৌরসভার মেয়র ও ময়মনসিংহ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রিজ এর সভাপতি মো: ইকরামুল হক টিটু বলেন, হালুয়াঘাট স্থল বন্দর ২টি পরিপুর্ন ভাবে চালু করা হোক। ব্যবসায়িক পরিধি বৃদ্ধি করার স্বার্থে হালুয়াঘাট ময়মনসিংহ চারলেন করা জরুরী হয়ে পরেছে। তিনি বলেন, ব্রম্মপুত্র নদ খনন ময়মনসিংহবাসীর প্রানের দাবীতে পরিনত হয়েছে। তিনি নৌ পরিবহন মন্ত্রীকে জরুরী ভিত্তিতে ব্রম্মপুত্র নদ খননের জন্য অনুরোধ করেন। কড়ইতলী স্থল বন্দরের সভাপতি আলহাজ্ব মো: সুরোজ মিয়া বলেন, ২০১২/১৩ সালে০নৌ পরিবহন মন্ত্রী স্বশরীরে স্থলবন্দর ভিজিট  করেছেন। সমাজকল্যান প্রতিমন্ত্রী মহোদয়ও স্থলবন্দর ২টির উন্নয়নের জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছেন। তিনি বলেণ, ১টি উপজেলায় ২টি স্থলবন্দর, এটি আমাদের জন্য ভাগ্যের ব্যাপার। তিনি বলেন, ভুটানের ট্রানজিট যদি হালুয়াঘাট দিয়ে হয় তবে হালুয়াঘাট হবে আধুনিক উপজেলা। অচিরেই ভুটানের সাথে ট্রানজিট করার প্রত্যাশা ব্যাক্ত করে বলেন, এটি চালু হলে সিরামিক, সুটকি, চিনামাটি সহ বিভিন্ন সামগ্রী রপ্তানী করা যাবে।

ব্রেকিং নিউজঃ