| |

খোকার মৃ’ত্যুতে পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানালেন প্রধানমন্ত্রী

আপডেটঃ ৭:৩৬ অপরাহ্ণ | নভেম্বর ০৪, ২০১৯

Ad

স্টাফ রিপোর্টারঃ বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও ঢাকার সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকা মৃ’ত্যুবরণ করেছেন। নিউ ইয়র্কে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বাংলাদেশ সময় সোমবার বেলা ১টা ৫০ মিনিটে তিনি মা’রা যান। বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইং সদস্য শায়রুল কবির খান গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বর্ণাঢ্য জীবনের অধিকারী এই রাজনীতিবিদের মৃ’ত্যুতে তার পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
এছাড়া লন্ডনে পলাতক থাকা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান এবং দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরও শোক প্রকাশ করেছেন বলে জানান তিনি।

সং’কটাপন্ন অবস্থায় যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়ার্কে ম্যানহাটনের মেমোরিয়াল স্লোয়ান ক্যাটারিং ক্যান্সার সেন্টারে নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন ছিলেন এই গেরিলা মুক্তিযো’দ্ধা। সেখানকার চিকিৎসকরা সাদেক হোসেন খোকার শারীরিক অবস্থা পরিবর্তনের আশা ছেড়ে দিয়ে সব চিকিৎসা বন্ধ করে দেন।

তবে খোকার জীবনের শেষ ইচ্ছানুযায়ী অ’ন্তিম সময়ে তাকে দেশে আনা পরিবারের পক্ষে সম্ভব হয়নি। পাসপোর্ট না থাকায় দেশে ফিরতে পারেননি তিনি। যদিও এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী ব্যবস্থা নিয়েছিল পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যমে তাকে দেশে আনার অনুমতি দেয়া হয়। ক্যান্সার চিকিৎসার জন্য ২০১৪ সালের ১৪ মে সপরিবারে নিউ ইয়র্ক চলে যান সাদেক হোসেন খোকা। তার পর থেকে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী নিউ ইয়র্ক সিটির কুইন্সে একটি বাসায় দীর্ঘদিন ধরে থাকছিলেন বিএনপির এ নেতা।

হাসপাতালে খোকার পাশে আগে থেকেই আছেন তার স্ত্রী ইসমত হোসেন, মেয়ে সারিকা সাদেক, ছেলে ইশফাক হোসেন। বাবার সং’কটাপন্ন অবস্থার খবর পেয়ে ঢাকা থেকে তার বড় ছেলে ইশরাক হোসেনও নিউ ইয়র্কে ছুটে যান।

২০০২ সালের ২৫ এপ্রিল ঢাকা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র নির্বাচিত হন খোকা। ২৯ নভেম্বর ২০১১ সাল পর্যন্ত টানা ১০ বছর বিএনপি ও আওয়ামী লীগের শাসনামলে ঢাকা মহানগরের মেয়র ছিলেন তিনি।

২০১৪ সালের ১৪ মে মাসে সাদেক হোসেন খোকা চিকিৎসার জন্য যুক্তরাষ্ট্র যান। সেখানেই চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় দেশে তার বিরুদ্ধে’ কয়েকটি দুর্নীতি মামলা হয়। এর কয়েকটিতে তাকে সাজাও দেয়া হয়েছে।

ব্রেকিং নিউজঃ