| |

ময়মনসিংহে তৃণমূল আঃলীগের আস্থা ও ভালবাসার নাম অধ্যক্ষ মতিউর রহমানঃ জিলু

আপডেটঃ 2:06 pm | November 25, 2019

Ad

আলহাজ্ব অধ্যক্ষ মতিউর রহমান একটি নাম নয়- একটি ইতিহাস। ময়মনসিংহে এক নামেই সবার কাছে তিনি পরিচিত। দুঃসময়ে, দুর্দিনে তিনি ময়মনসিংহে আওয়ামী লীগকে সুসংগঠিত করেছেন ও নেতৃত্ব দিয়েছেন। অধ্যক্ষ মতিউর রহমানের নাম মানুষের হৃদয়ের স্পর্শকাতর জায়গায় অবস্থান করছে। মহানগর আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ গতকাল একথা বলেন।

রবিবার সন্ধ্যায় শিববাড়িস্থ দলীয় কার্যালয়ে ময়মনসিংহের মাটি ও মানুষের নেতা, সাবেক ধর্মমন্ত্রী, ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব অধ্যক্ষ মতিউর রহমানের আশু রোগমুক্তি কামনায় দিনব্যাপী কোরআন তেলাওয়াত ও বাদ মাগরিব দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

ময়মনসিংহ মহানগর আওয়ামী লীগের ৩৩টি ওয়ার্ড কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকদের যৌথ আয়োজনে এ অনুষ্ঠান হয়।

এতে বক্তব্য রাখেন মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অধ্যাপক গোলাম ফেরদৌস জিলু ও সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হোসাইন জাহাঙ্গীর বাবু। অনুষ্ঠানটি সঞ্চলনা করেন ৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জুলহাস উদ্দিন।

অনুষ্ঠানে দেয়া বক্তব্যে অধ্যাপক গোলাম ফেরদৌস জিলু ময়মনসিংহের সর্বজন শ্রদ্ধেয় বর্ষীয়ান জননেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব অধ্যক্ষ মতিউর রহমানের বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনের ত্যাগ-তিতিক্ষা ও ভূমিকার উপর আলোকপাত করেন। আবেগঘন বক্তব্যে তিনি বলেন, অধ্যক্ষ মতিউর রহমান একটি নাম নয় একটি প্রতিষ্ঠান। তার ইতিহাস বললে সারা রাত লাগবে। অধ্যক্ষ মতিউর রহমানের স্থান মানুষের হৃদয়ের স্পর্শকাতর জায়গায়।

এসময় তিনি বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ডাকে সাড়া দিয়ে তিনি বীরত্বের সাথে মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিয়ে ১০ ডিসেম্বর মুক্ত ময়মনসিংহে পদার্পন করেন। এই ইতিহাস মুছে ফেলা যাবে না। কেউ যদি চায় তবে তা হাস্যকর। বালতি দিয়ে বঙ্গোপসাগরের পানি সেচা যেমন দুঃসাধ্য, কোদাল দিয়ে হিমালয় কাটা যায় না। তেমনি অধ্যক্ষ মতিউর রহমান ময়মনসিংহের সিংহ-পুরুষ।

তিনি বলেন, আজকে রাজনীতি যারা করেন, তারা দুঃসময় দেখেন নাই। জননেতা মতিউর রহমানকে ময়মনসিংহবাসী দেখেছে। গাঙ্গিনারপাড় মোড়ে লুঙ্গি পড়ে বসে থেকে আওয়ামী লীগের হরতাল-আন্দোলন কর্মসূচির নেতৃত্ব দিয়েছেন। তখন বিধ্বস্ত আওয়ামী লীগ রাস্তায় নামতে পারতো না। অথচ তিনি এসে বাঘের মত গর্জন করে তিনি বলতেন- মিছিল হবে। সেই বিশাল শক্তির নাম অধ্যক্ষ মতিউর রহমান।

তিনি আরো বলেন, ৭৫ এর ১৫ আগস্ট সপরিবারে বঙ্গবন্ধু হত্যার পর ঘাতক  চক্র তাকে শিক্ষা মন্ত্রী করার প্রস্তাব দিলে তিনি তা প্রত্যাখান করে বলেছিলেন, বঙ্গবন্ধু রক্তের উপর পাড়া দিয়ে মন্ত্রীত্ব চাই না। এর পরিনামে পরদিন কোমড়ে দড়ি দিয়ে বেঁধে তাকে প্রকাশ্যে দিবালোকে হাটিয়ে থানায় নিয়ে কারান্তরীন করা হয়। সেদিন যারা তাকে হেয় করতে চেয়েছিল, তারা চেয়েছিল আওয়ামী লীগকে হেয় করতে। সেদিনের অপমান, জেল-জুলুম, হুলিয়া অধ্যক্ষ মতিউর রহমানকে আদর্শচ্যূত করতে পারেনি। তিনি ময়মনসিংহে দলকে শক্তিশালী করেছেন, শত শত নেতা তৈরী করেছেন। তিনি সবার নেতা।

এসময় তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু তনয়া প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা মতে তৃণমূল আমার শক্তি, যারা বেঈমানী করে না। ময়মনসিংহে সেই তৃণমূলের আস্থা ও ভালবাসার নাম অধ্যক্ষ মতিউর রহমান। দক্ষ, ত্যাগী, নিষ্ঠাবান ও স্বচ্ছ রাজনীতির জন্য তিনি নেত্রীর বিশ্বাসভাজন। যারা সরকারের উন্নয়নকে ব্যাহত করতে চায়, সেসব অপশক্তি নানান পায়তারা করছে। এদের বিরুদ্ধে সতর্ক থাকতে হবে।

আলোচনায় সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হোসাইন জাহাঙ্গীর বাবু বলেন, ময়মনসিংহে এক নামে সবার কাছে পরিচিত প্রিন্সিপাল মতিউর রহমান ময়মনসিংহের মাটি ও মানুষের নেতা। দলের দুঃসময়ে তিনি লড়াই সংগ্রাম করেছেন। তার আশু রোগমুক্তি কামনায় মহানগরের ৩৩ ওয়ার্ড সহ আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতা-কর্মীরা ঐক্যবদ্ধ।

তিনি বলেন, মানুষের পাশে দাড়ানো ক্ষমতাসীন দলের নৈতিক দায়িত্ব। আওয়ামী লীগ সব সময় এজন্য প্রস্তুত। দলের সদস্য সংগ্রহ ও নবায়নের কাজে তাই চলছে উৎসাহ-উদ্দীপনা।

তিনি আরো বলেন, আর যারা দেশ ও দলকে বেকায়দায় ফেলার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত, তাদের কোন ষড়যন্ত্র সফল হবে না। এজন্য আওয়ামী লীগের ঐক্য অটুট রাখতে হবে।

দোয়া মাহফিলে মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অধ্যাপক গোলাম ফেরদৌস জিলু, এডঃ ফারুক আহমেদ খান, এডঃ আব্দুর রহমান আল হোসাইন তাজ, শাহজাহান পারভেজ, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হোসাইন জাহাঙ্গীর বাবু, সাংগঠনিক সম্পাদক শাকিল রানা চৌধুরী প্রবাল, দপ্তর সম্পাদক সেলিম শেখ কাজল, কোষাধ্যক্ষ মাহাবুবুর রহমান বিপ্লব, সদস্য বাবুল রায়, মাসুদ আহমেদ, রাফিউল আদনান প্রিয়ম প্রমুখ নেতৃবৃন্দ ছাড়াও ময়মনসিংহ মহানগরের প্রতিটি ওয়াডের্র সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সহ আওয়ামী লীগের অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

ব্রেকিং নিউজঃ