| |

আজ হলি আর্টিজানে হামলার রায় : কঠোর নিরাপত্তায় আদালত প্রাঙ্গণ

আপডেটঃ ১০:১০ পূর্বাহ্ণ | নভেম্বর ২৭, ২০১৯

Ad

গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্টুরেন্ট অ্যান্ড বেকারিতে জঙ্গি হামলার ঘটনায় সন্ত্রাসবিরোধী আইনে করা মামলার রায় আজ বুধবার ঘোষণা করা হবে। এ উপলক্ষে আদালত চত্বরে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। পুরো আদালত প্রাঙ্গণ জুড়ে মোতায়েন করা হয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

বুধবার সকাল থেকে আদালত চত্বর ঘুরে দেখা গেছে, আদালত ভবনে প্রবেশের প্রত্যেক গেটে প্রবেশের সময় প্রত্যেকের ব্যাগ তল্লাশি করছে পুলিশ। এ ছাড়া নারী-পুরুষ উভয়েরই আদালতে আসার কারণ ও বিস্তারিত পরিচয় নিশ্চিত হওয়ার পরই তাকে আদালতে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হচ্ছে।

একই ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা আদালতের বাইরেও দেখা গেছে। মূল ফটকের বাইরে এবং আদালতে আশেপাশের সড়কগুলোতে অতিরিক্ত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের মোতায়েন করা হয়েছে।

জানা গেছে, আজকের রায় ঘোষণাকে কেন্দ্র করে গতকাল মঙ্গলবার থেকেই ব্যাপক নিরাপত্তা-প্রস্তুতি নিয়েছে পুলিশ-র‌্যাব। মঙ্গলবারই পুরান ঢাকার আদালতপাড়ার নিরাপত্তা জোরদার শুরু করে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। আদালত ও এর আশপাশের পুরো এলাকায় নিরাপত্তা তল্লাশিও শুরু করা হয়েছে।

এদিকে, আজ সকাল থেকেই আদালত প্রাঙ্গণে আর্চওয়ে, মেটাল ডিটেকটর ও ডগ স্কয়াড মোতায়েন রয়েছে। পুলিশের বিশেষায়িত ইউনিট সোয়াত টিমের সদস্যদেরও মোতায়েন করা হয়েছে।

এ ছাড়া র‌্যাব পুলিশের বিপুল সংখ্যক সদস্য ছাড়াও সাদা পোশাকে চালানো হবে গোয়েন্দা নজরদারি। রায় ঘিরে রাজধানীসহ সারা দেশের নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। ঢাকার কূটনীতিকপাড়া-গুলশান, বনানী, বারিধারার নিরাপত্তায় কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে গতকাল সন্ধ্যার পর থেকেই।

হলি আর্টিজান হামলায় ১৭ বিদেশি নাগরিকসহ ২৩ জন নিহত হয়েছিলেন। ২০১৬ সালের ১ জুলাই রাতের ওই হামলায় স্পষ্ট হয়ে ওঠে বাংলাদেশে জঙ্গিবাদের বিপজ্জনক বিস্তার। এ ছাড়া বেরিয়ে আসে শুধু নিম্ন বা মধ্যবিত্ত নয়, উচ্চবিত্ত পরিবারের সন্তানদের জঙ্গিবাদে জড়ানোর বিষয়টি।

হামলায় সরাসরি যে পাঁচজন অংশ নিয়েছিল, তাদের সবাই ছিল উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী। মূলত বহির্বিশ্বের কাছে বাংলাদেশকে জঙ্গিরাষ্ট্র প্রমাণ করতেই এ হামলা হয়েছিল। ওই জঙ্গি হামলায় নিহতদের স্বজনরা আশা করছেন, আজ আদালতে আসামিদের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ শাস্তির রায় আসবে

ব্রেকিং নিউজঃ