| |

আগামী সপ্তাহ থেকে অনলাইন নিবন্ধন দেয়া শুরু

আপডেটঃ ১০:১৪ অপরাহ্ণ | ডিসেম্বর ০২, ২০১৯

Ad

আগামী সপ্তাহ থেকেই অনলাইন পত্রিকাগুলোর নিবন্ধন দেওয়া শুরু হবে বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ড হাছান মাহমুদ। তিনি বলেছেন, এই প্রক্রিয়া বেশ কিছুদিন চলবে। কারণ প্রায় সাড়ে তিন হাজারেরও বেশি অনলাইন পত্রিকা ইনভেস্টিকেশন এত সহজ কাজ নয়।
সোমবার সচিবালয়ে তার নিজ দপ্তরে সমসাময়িক বিষয় আলাপকালে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা অনলাইন পত্রিকাগুলোর নিবন্ধনের জন্য দরখাস্ত আহবান করেছিলাম। এরপর ৩ হাজার ৫১৭ টি আবেদন পড়েছিল। সেগুলো আমরা পরবর্তীতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের কাছে কাছে তদন্তের জন্য পাঠিয়েছিলাম। তৎপরবর্তী সময়ে আমরা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়, টেলিকম মিনিস্ট্রি ও আইসিটি মিনিস্ট্রি একাধিক সভা করেছি। এরপর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ করেছিলাম যতদ্রুত সম্ভব তদন্ত করে অনলাইন পত্রিকা গুলোর সার্বিক চিত্র আমাদের কাছে জানানোর জন্য যাতে করে আমরা নিবন্ধন এর কাজ শুরু করতে পারি।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে তারা আগামীকালের মধ্যে যে কয়েকশো অনলাইনের তদন্তকাজ শেষ করেছে সেগুলো আমাদের কাছে পাঠিয়ে দেবে। আমরা আগামী সপ্তাহ থেকে অনলাইন গুলোর নিবন্ধন দেওয়া শুরু করব। তবে এই প্রক্রিয়া শেষ করতে কিছুটা সময় লেগে যাবে। এখানে কয়েকটি সংস্থা কাজ করছে তদন্তের জন্য। তবে আমরা আজকালের মধ্যে যে কয়টি হাতে পাব গুলোকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে আমরা নিবন্ধন দেওয়া শুরু করব।

মন্ত্রী বলেন, নিবন্ধন প্রক্রিয়া শেষ হওয়ার পর যেগুলো নিবন্ধিত হবে না সেগুলোর বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। তবে ভবিষ্যতেও কেউ অনলাইন চালু করতে পারে। তবে ভবিষ্যতে কেউ অনলাইন চালু করতে চাইলে সেটি একটি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে অনুমোদন নিয়েই করতে হবে। এখন যেমন একটি দৈনিক পত্রিকা বের করতে নামের ক্লিয়ারেন্স এবং একটি অনুমতি নিতে হয় ঠিক একই প্রক্রিয়া অনুসরণ করে আগামীতেও কেউ অনলাইন পত্রিকা করতে চাইলে সেই নিয়মের মধ্যে দিয়ে আসতে হবে। অনেক সময় দেখা যায় কেউ কেউ একটি ঘরের মধ্যে বসে কয়েকজন মিলে একটা অনলাইন পত্রিকা চালায়। এভাবে আর অনলাইন পত্রিকা চালানো যাবে না বলেও জানান তথ্যমন্ত্রী।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ৯ নভেম্বর এক তথ্য বিবরণীতে তথ্য অধিদফতর জানায়, সরকারি সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত ও অপসাংবাদিকতা রোধে অনলাইন পত্রিকাগুলোকে নিবন্ধনের আওতায় আনা হবে। এজন্য নির্ধারিত নিবন্ধন ফরম ও প্রত্যয়নপত্র বা হলফনামা পূরণ করে তথ্য অধিদফতরে জমা দিতে হবে। নিবন্ধন-সংক্রান্ত আবেদন জমা দেয়ার পর এগুলো যাচাই-বাছাই ও পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চের সন্তোষজনক রিপোর্ট পাওয়ার পর তথ্য অধিদফতর চিঠির মাধ্যমে নিবন্ধনের বিষয়ে আবেদনকারীদের জানিয়ে দেবে।

চলমান সব অনলাইন পত্রিকাকে ওই বছরের ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যে আবেদন করতে বলা হয়। এরপর সময় আরও কয়েক দফা বাড়ানো হয়। নিবন্ধন পেতে দুই হাজারেরও বেশি অনলাইন গণমাধ্যম আবেদন করে বলে তথ্য অধিদফতর থেকে জানা গেছে।

ব্রেকিং নিউজঃ