| |

‘লাহোর প্রস্তাব পাকিস্তান অতঃপর বাংলাদেশ’- অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান

আপডেটঃ 9:14 pm | December 18, 2019

Ad

প্রদীপ ভৌমিকঃ বিজয়ের মাসেই মোড়ক উন্মচিত হবে এড. আনিসুর রহমান খানের ‘লাহোর প্রস্তাব পাকিস্তান অতঃপর বাংলাদেশ’ নামের পুস্তকটি। বইটি আমি উৎসাহি হয়ে মোড়ক উন্মোচনের পূর্বেই পড়ে নিয়েছি সেই আলোকে আজকের এই লেখা। আনিসুর রহমান একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। মহান মুক্তিযোদ্ধে তিনি যোগদান করে ভারতের মেঘালয় রাজ্যের গারো হিলস ডিস্ট্রিক্ট এর মহাদেও ইয়ূথ ক্যাম্পের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

তিনি ময়মনসিংহ বারের একজন বিশিষ্ট আইনজীবি। ১৯৬৪ সালে বাংলাদেশ আঃলীগে যোগদান করে অদ্যাবধী আওয়ামীলীগ রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত। প্রবীন আইনজীবি আনিসুর রহমান খান ‘লাহোর প্রস্তাব পাকিস্তান অতঃপর বাংলাদেশ’ গ্রন্থটি রচনা করেছেন।

বইটিতে তিনি পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার প্রেক্ষাপট পূর্ববাংলার ভাষা আন্দোলন, যুক্তফ্রন্টের একুশ দফা ও ঐতিহাসিক ছয় দফাসহ সকল আন্দোলন পাকিস্তান রাষ্ট্রের অধীনে পূর্ব বাংলার ভাষা আন্দোলনসহ স্বাধীকার আন্দোলনের ঘটনাবলি তুলে ধরেছেন।

পাকিস্তান নামক রাষ্ট্রে পূর্ব পশ্চিমাংশে বৈষম্যমূলক নীতির নানা গুরুত্বপূর্ন তথ্য এবং এ প্রেক্ষিতে স্বাধীকার ও স্বায়িত্বশাসন আন্দোলনের ও বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের মূল দাবি ও দফাগুলি সুস্পষ্টভাবে তুলে ধরেছেন। গ্রন্থটি অধ্যায়ন করলে ‘আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা’ ও মুক্তিযোদ্ধকালীন মুজীবনগর সরকারের প্রধান মূলনীতি ও বিদেশে অবস্থানরত কূটনীতিকদের সম্পর্কে জানা যায়।

এই গ্রন্থটি স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাসের একটি অন্যতম প্রামান্য রচনা হিসেবে বিবেচিত হয়েছে আমার কাছে।

বইটিতে লাহোর প্রস্তাব পাকিস্তান, পূর্ব পাকিস্তানের প্রতি বৈষম্য ও শোষণ, যুক্তফ্রন্ট গঠন ও ১৯৫৪ সালের সাধারন নির্বাচন ঐতিহাসিক ছয় দফা, ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের এগারো দফা, আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা, জেনারেল ইয়াহিয়ার ক্ষমতা গ্রহন ও ১৯৭০ এর সাধারন নির্বাচন, রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা আঃলীগের কাছে হস্তান্তর না করার ষড়যন্ত্র, বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ, ২৫ই মার্চের গনহত্যা ও বঙ্গবন্ধু কর্তৃক স্বাধীনতা ঘোষনা, স্বাধীনতার ঘোষনাপত্র, স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম সরকার, বাংলাদেশের প্রতি আনুগত্য প্রকাশকারী কূটনীতিকদের তালিকা, মুক্তিযোদ্ধের সামরিক কমান্ড, বেসামরিক মুক্তিযোদ্ধা (গনবাহিনী), আঞ্চলিক কাউন্সিল ও ইউথ ক্যাম্প, প্রবাসে মুক্তিযোদ্ধ, পাকিস্তান দখলদার বাহিনীর আত্মসমর্পন, বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন ও মন্ত্রী পরিষদ শাষিত সরকার প্রবর্তন, ১০ জানুয়ারী ১৯৭২ সালে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ভাষন, আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে দলীয় কর্মীদের উদ্দেশ্যে ভাষন, পাকবাহিনীর প্রতি বঙ্গবন্ধুর নির্দেশ, ঢাকা স্টেডিয়ামে মুক্তিবাহিনীর অস্ত্র সমর্পন উপলক্ষে ভাষণ, সরকারি কর্মচারীদের উদ্দেশ্যে ভাষন, কলকতা ব্রিগেড প্যারেড গ্রাউন্ডে প্রদত্ত ভাষন, ভারতীয় মিত্র বাহিনীর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন উপলক্ষে ভাষন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর বাংলাদেশ সফরে বঙ্গবন্ধুর ভাষন, সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে ভাষণ ও প্রত্যাশা শিরোনামে তার এই গ্রন্থে অত্যন্ত সাবলীল ও সহজ ভাষায় পাকিস্তান ও বাংলাদেশের রাজনীতিকে তুলে ধরেছেন।

 

বাংলাদেশের রাজনৈতিক নেতাকর্মী, জনগন ও শিক্ষিত মানুষ কিংবা ছাত্র যুবক প্রত্যেকের সঠিক ইতিহাস জানা থাকা প্রয়োজন। এড. আনিসুর রহমান খানের লিখিত ‘লাহোর প্রস্তাব পাকিস্তান অতঃপর বাংলাদেশ’ গ্রন্থটিতে লেখক ইতিহাস তুলে ধরার চেষ্ঠা করেছেন। অত্যান্ত স্বল্প পরিষরে এমন তথ্যনির্ভর গ্রন্থ ময়মনসিংহ থেকে অতীতে আর প্রকাশ হয়েছে বলে আমার মনে পরেনা। এই গ্রন্থটি মুন্সিয়ানার সহিত সম্পাদনা করেছেন এড. নজরুল ইসলাম চুন্নু।

‘লাহোর প্রস্তাব পাকিস্তান অতঃপর বাংলাদেশ’ গ্রন্থটি অধ্যায়নে এ প্রজন্মের রাজনীতিবীদ ও জ্ঞ্যান পিপাসুরা তৃপ্ত হবে বলে আমি মনে করি।

ব্রেকিং নিউজঃ