| |

প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে বিজয়ের এই পতাকাকে বহন করে নিয়ে যাব

আপডেটঃ 9:17 pm | December 31, 2019

Ad

ইব্রাহিম মুকুটঃ ৩১ ডিসেম্বর রেলওয়ে কৃষ্ণচূড়া চত্ত্বর থেকে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ময়মনসিংহ জেলা শাখার উদ্যোগে বিজয় পতাকা মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত মিছিলের উদ্ধোধন করেন ময়মনসিংহ জেলা আঃলীগের সভাপতি এড. মোঃ জহিরুল হক খোকা, প্রধান অতিথি ছিলেন ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোঃ ইকরামুল হক টিটু। মিছিলপূর্ব সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন এড. মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল। বঙ্গবন্ধু পরিষদ ময়মনসিংহ শাখার সাধারন সম্পাদক কবি আল মাহমুদ আল মামুনের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন জেলা আঃলীগের সহ সভাপতি এড. কবির উদ্দিন ভূইয়া, ময়মনসিংহ জেলা আঃলীগের সহ সভাপতি মমতাজ উদ্দিন মন্তা, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক কাজী আজাদ জাহান শাহীন, যুগ্ম সম্পাদক এম এ কুদ্দুস, জেলা আঃলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সামিউল আলম লিটন, জেলা আঃলীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান ভাষানী, সওকত জাহান মুকুল, আবুল কালাম রাসেলসহ জেলা আঃলীগের অপরাপর নেতৃবৃন্দ জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক শাহরিয়ার খান রাহাত ও শওকত উসমান লিটন, স্বেচ্ছাসেবকলীগের ময়মনসিংহ জেলার সভাপতি নুরুজ্জামান খোকন প্রমুখ। আলোচনা সভায় উদ্ধোধক এড. মোঃ জহিরুল হক খোকা বলেন, এই লাল সবুজের পতাকাটির জন্য ৩০ লক্ষ শহীদের রক্ত ঢেলে দিতে হয়েছে। রক্তের ঋণ আমাদের এই বিজয়ের পতাকা। আমরা এই পতাকার মর্যাদা রক্ষার জন্য জীবন উৎসর্গ করতে প্রস্তত। প্রধান অতিথি ইকরামুল হক টিটু তার বক্তেব্য বলেন, আমরা মুক্তিযোদ্ধ করিনি কিন্তু মুক্তিযোদ্ধে বাঙ্গালী জাতির ত্যাগ ও তিতীক্ষার গল্প শুনেছি। আমরা যারা এ প্রজন্মের সন্তান তারা প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে বিজয়ের এই পতাকাকে বহন করে নিয়ে যাব। তিনি আরও বলেন, স্বাধীনতার বীর সৈনিকদের যথাযোগ্য মর্যাদা প্রদানের চেষ্ঠা করব। কারন তাদের ত্যাগের বিনিময়ে আমরা এই লাল সবুজের পতাকাটি পেয়েছি। সভাপতি এড. মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল বলেন, বঙ্গবন্ধুর নির্দেশে বাঙ্গালী জাতি মুক্তিযোদ্ধে অংশগ্রহন করেছিল। স্বাধীন বাংলার পতাকা বাঙ্গালী জাতিকে মুক্তিযোদ্ধের প্রেরণা দিয়েছে। আমরা যতদিন বেঁচে থাকব লাল সবুজের পতাকার মর্যাদা রক্ষার জন্য সচেষ্ঠ থাকব। যারা এই পতাকার অমর্যাদা করবে বাংলাদেশের মাটিতে তাদের স্থান হবেনা। বিকাল ২.০০ টায় সমাবেশ ও মিছিলের নির্ধারিত সময় থাকলেও দুপুর ১২টা থেকে শহরের বিভিন্ন এলাকা ও উপজেলা থেকে নেতাকর্মীরা পতাকা হাতে নিয়ে সমাবেশস্থলে উপস্থিত হতে থাকে। ২টায় পূর্বেই সমাবেশস্থল জনসমুদ্রে পরিণত হয়। সে এক অভ্যতপূর্ব দৃশ্য যা ময়মনসিংহ শহরে আর কোন দিন দেখা যায়নি। বঙ্গবন্ধু জন্মশত বার্ষিকী উৎযাপন পরিষদ, বঙ্গবন্ধু পরিষদ মহানগর শাখা, বাংলার মুখ, বঙ্গবন্ধু শিশু একাডেমী, অনাসাম্বল থিয়েটার, স্বাধীনতা ব্যাংকার্স পরিষদ (সোনালী ব্যাংক), বঙ্গবন্ধু জন্মশত বার্ষিকী উৎযাপন পরিষদ, আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, শ্রমিকলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, মহিলালীগ, কৃষকলীগ, তাতিলীগ, ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন পতাকা হাতে নিয়ে সমাবেশস্থলে যোগদেন। সবচেয়ে দর্শনীয় ছিল জেলা আঃলীগ সদস্য এমদাদুল হক সেলিমের নেতৃত্বে পতাকার আদলে পোষাক পরিহিত ছাত্রীদের এক বিশাল পতাকা মিছিল। যা উপস্থিত সকলের মন কেড়ে নিয়েছে। কৃঞ্চচূড়া চত্তর থেকে মিছিলটি বের হয়ে টাউনহলে শেষ হয়। বঙ্গবন্ধু জন্মশত বার্ষিকী উৎযাপন পরিষদ ময়মনসিংহ জেলা শাখার পতাকা মিছিলটির নেতৃত্ব দেন ড. সিরাজুল ইসলাম, নাগরিক আন্দোলনের সাধারন সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার নুরুল আমিন কালাম, প্রদীপ ভৌমিক এই মিছিলটি একটি বিশাল আকৃতির দর্শনিয় পতাকা বহন করে সভাস্থলে
উপস্থিত হয়। মিছিলটিতে আরও অংশগ্রহন করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা হযরত আলী, সাবেক চেয়ারম্যান মোর্শেদুল আলম জাহাঙ্গীর, অধ্যক্ষ আশরাফ উদ্দিন রেজবী, ডা. মোহিদুল হক, সাদেকুল ইসলাম, এড. হযরত আলী, সাইদুল হক মাষ্টার, মুজীবুর রহমান সরকার, শহিদুর রহমান শহিদ, ব্যাংকার এম.কে আলম তুহিন ও আবুল মনসুরসহ অপরাপর নেতৃবৃন্দ। মিছিলটি টাউনহলে পৌছে বীর মুক্তিযোদ্ধা শামসুল হক মঞ্চে গিয়ে শেষ হয়।

ব্রেকিং নিউজঃ