| |

স্বামীর বাড়িতেই প্রেমিকের সঙ্গে বিয়ে হলো নববধূর!

আপডেটঃ 8:16 pm | February 19, 2016

Ad

স্টাফ রিপোর্টার ঃ ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার দাতারাটিয়া গ্রামে বিয়ের দুই মাস পার না হতেই স্বামীর ঘরে প্রেমিককে নিয়ে ধরা খান নববধূ। গত বৃহস্পতিবার রাতে দুইজনকে ঘরে আটকে রাখেন বাড়ির লোকজন। শুক্রবার বিকেলে সালিসি দরবারে হাজির করে স্বামীর সঙ্গে তালাক প্রাপ্তির পর প্রেমিকের সঙ্গেই বিয়ে দেওয়া হয় ওই নববধূকে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দুই মাস আগে ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার ঝাটিয়া ইউনিয়নের সুটিয়া এলাকার মাহরগাফ গ্রামের মো. আয়নাল হকের মেয়ে বিনুকে (ছদ্ম নাম) অনুষ্ঠানিকভাবে বিয়ে করেন পাশের নান্দাইল উপজেলার দাতারাটিয় গ্রামের আক্কাছ আলীর ছেলে রিপন মিয়া (ছদ্ম নাম)।
বিনুর স্বামী জানান, গত বৃহস্পতিবার সকালে তাঁর স্ত্রী জানান, বাবার বাড়ি থেকে তার এক খালাতো ভাই বেড়াতে আসবে সন্ধ্যার পর। এ জন্য ভালমন্দ খাবার খাওয়ানোর জন্য কিছু বাজারের তাগাদাও দেন তিনি। এ অবস্থায় তিনি কেনাকাটা করতে এলাকার বাজারে যান। রাতে বাজার নিয়ে বাড়িতে এসে জানতে পারেন অনৈতিক কাজের দায়ে দুইজনকে আটকে রাখা হয়েছে ঘরে। আটককৃত কথিত খালাতো ভাইয়ের বাড়ি পাশের গ্রামে। তার সঙ্গেই প্রেমের সর্ম্পক ছিল তাঁর স্ত্রীর।
এ ঘটনার পর দুইজনকে আটকে রেখে শুক্রবার জুমার নামাজের পর স্বামীর বাড়িতেই সালিসি বৈঠকের আয়োজন করা হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন নান্দাইল উপজেলা সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন কাজল, ঈশ্বগঞ্জের ঝাটিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. হাবিবুর রহমান হলুদ এবং দুই ইউনিয়নের সদস্যসহ নববধূ ও ধৃত প্রেমিকপক্ষের লোকজন। দুই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জানান, দীর্ঘ সালিসের পর স্বামী রিপন স্ত্রীকে পুনরায় ঘরে তুলে নিতে অস্বীকৃতি জানালে তালাকের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সেই সঙ্গে ছেলেকে দেওয়া নগদ ৪০ হাজার টাকা মেয়েকে দেওয়া স্বর্ণালংকার ফেরত নেওয়া হয়। পরে আগের বিয়ের কাজী হোসেন আলীকে দিয়ে তালাকের কাজ ও নতুন কাজী শামসুদ্দিন আহম্মেদকে দিয়ে তালাকপ্রাপ্ত নববধূকে তাঁর প্রেমিকের কাছে নতুন করে বিয়ে দেওয়া হয়।

ব্রেকিং নিউজঃ