| |

সরকারি চাকুরিতে আবেদন ফি কামানোর দাবিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ব্যাপক আন্দোলন চলছে।

আপডেটঃ 2:41 pm | January 29, 2020

Ad

সরকারি চাকুরিতে আবেদন ফি কামানোর দাবিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ব্যাপক আন্দোলন চলতেছে, সকল চাকুরীতে অতিরিক্ত আবেদন ফি লক্ষ কোটি বেকারের মাথার উপর এক পাহাড়ের সমান। পাহাড়সম এ মহাবিপদ দ্রুত সরানোর দাবিতে ঢাবি ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ শুরু হয়েছে।

হাতে টাকা নেই, ইনকাম নেই ,চাকরির নিত্য নতুন সার্কুলার আছে কিন্তু আবেদন করার আর্থিক সামর্থ নাই । বর্তমান বাংলাদেশের বেকারদের সবচেয়ে বড় সমস্যা এটা।

২০২০ বছরের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত কিছু চাকরির যে সার্কুলারগুলো এসেছে তার মধ্যে অন্যতম কিছু চাকরির খবর গুলো হলঃ

১। বাংলাদেশ ব্যাংকে ৭৭১ জন ২। এনআরবিসি ব্যাংকে ১০০ জন ৩। ইস্টার্ন ব্যাংকে চাকরি ৪। জনতা ব্যাংকে চাকরি ৫। গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ে ৭১জন ৬। কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনে ১০৪ জন ৭। উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ে ৪৯ জন ৮। পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে ১৭ জন ৯। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে চাকরি ১০। বন অধিদপ্তরে ১৪৫ জন ১১। উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়, খুলনায় ৩৭জন ১২। মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরী অথরিটিতে চাকরি

বাংলাদেশে লক্ষ্য লক্ষ্য যেসব বেকার রয়েছে তাদের অনেকেরই এগুলো প্রিয় চাকরি। বর্তমান বাজারে এই চাকরি গুলো সহজ বধ্য নয়। এক এক টি চাকরির পেছনে অনেকেই ছুটছে। কে কোন চাকরিতে টিকবে সেটা বলা খুব কঠিন। তাই বাধ্য হয়েই এক চাকরিতে না টিকলে অন্য টির জন্য আবেদন করতে হয়।

কিন্তু এই চাকরি গুলোর কোন টির ই আবেদন ফর্ম মূল্য ৫০০ এর কম নয়। কিছু কিছু গুলোতো ১০০০ এর উপর। এক জন বেকার এর পক্ষ্যে একটি চাকরিতে ব্যর্থ হলে বার বার এত টাকা খরচ করে ফর্ম পূরণ করা সম্ভব নয়।

তাই সেই সব বেকারদের পাশে দাড়ানোর জন্য ও চাকরি ফি কমানোর দাবিতে অথ্যাৎ চাকরি প্রত্যাশীদের কথা বিবেচনা করে
চাকরির আবেদন ফি কমানো নিয়ে শীঘ্রই আন্দোলনে যাবে ছাত্র অধিকার পরিষদ। এমনটাই জানিয়েছিল ছাত্র অধিকার পরিষদ এর নেতারা।

ব্রেকিং নিউজঃ