| |

বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি পুনর্বিবেচনা করুন: ময়মনসিংহ জেলা নাগরিক আন্দোলন

আপডেটঃ 7:49 pm | February 29, 2020

Ad

ময়মনসিংহ জেলা নাগরিক আন্দোলন উন্নয়ন সংগ্রাম পরিষদ সভাপতি ও মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান খান ও সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা ইঞ্জিনিয়ার নুরুল আমিন কালাম এক বিবৃতিতে জানান, বাংলাদেশে মোট উৎপাদিত বিদ্যুতের ৫৮ শতাংশই ব্যবহৃত হচ্ছে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতিতে। অথচ পল্লী এলাকায় বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির কারণে মরার ওপর খাঁড়ার ঘা-তে পরিণত হয়েছে। এমনিতেই বর্তমানে পেয়াঁজ, চাল, তরিতরকারিসহ নিত্য পণ্যের দাম বৃদ্ধি রোধ করা যাচ্ছেনা। হঠাৎ বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির কারণে নিম্নবিত্তের লোকজনের কষ্ট আরো বেড়ে যাবে। পরিবহন ভাড়া, বাসা ভাড়া থেকে অনেক কিছুর দাম বাড়ার আশংকা রয়েছে । এতে সাধারণ মানুষের অনেক কষ্ট হবে। সরকারের কাছে অনুরোধ করব, এই মূল্যবৃদ্ধির আদেশ পুনর্বিবেচনা করার জন্য। নাগরিক আন্দোলন উন্নয়ন সংগ্রাম পরিষদ চায় সাধারণ মানুষ যেন কষ্টে না থাকে।

বিবৃতিতে ময়মনসিংহ জেলা নাগরিক আন্দোলন উন্নয়ন সংগ্রাম পরিষদ সভাপতি অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান খান ও সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল আমিন কালাম আরো জানান, বর্তমান সরকারের দুর্বল মনিটরিং এর কারণে এবং সঠিক পরিসংখ্যানের অভাবে দেশে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি পাচ্ছে। পেয়াজ-রসুন, চাল, ডাল, গম, আদাসহ অন্যান্য নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য প্রতিবছর বিদেশ থেকে প্রচুর পরিমাণে আমদানি করে বিদেশে প্রচুর দেশী মুদ্রা চলে যাচ্ছে। তাই দেশে এসব পণ্য উৎপাদনের প্রয়োজনীয় কার্যকর পদক্ষেপের জন্য প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে জাতীয় মনিটরিং কমিটি ও টাস্কফোর্স গঠন করার আহবান জানিয়েছেন জেলা নাগরিক আন্দোলন উন্নয়ন সংগ্রাম পরিষদ।
ময়মনসিংহ জেলা নাগরিক আন্দোলন উন্নয়ন সংগ্রাম পরিষদের প্রচার সম্পাদক মোঃ নজরুল ইসলাম স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আরো জানানো হয়, আবার বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন বা বিইআরসি। অবশ্য এবার বাড়ছে শুধু দেশটির পল্লী বিদ্যুৎ সমিতিগুলোর গ্রাহকদের জন্য। আগামী মার্চ থেকে বাংলাদেশের গ্রামীণ এলাকার ব্যবহারকারীদের প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের জন্য অতিরিক্ত ৩৬ পয়সা করে গুনতে হবে। বিইআরসি’র তথ্যমতে, এর ফলে পল্লী বিদ্যুৎ ইউনিট প্রতি বিদ্যুতের দাম দাঁড়াচ্ছে তিন টাকা ৭৫ পয়সা।
এতদিন পল্লী বিদ্যুৎ ব্যবহারকারীদের যাদের বিল ২১৫ টাকা থেকে ২১৯ টাকার মধ্যে হতো, এখন তাদের বিল হবে ২২০ থেকে ২২৫ টাকা।

অন্যদিকে যাদের বিল ৭৫৯ টাকা হতো সেটা বেড়ে হবে ৮০৩ টাকা। আর এতদিন ধরে যারা ১৯৫২ টাকা পর্যন্ত বিল পরিশোধ করতেন এখন তাদের ২০৬৬ টাকা পরিশোধ করতে হবে। মার্চ মাসের এক তারিখ থেকে নতুন এই দাম কার্যকর হবে। বিইআরসির চেয়ারম্যান দাবি করছেন যে, তারা বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি করার ক্ষেত্রে মধ্যবিত্ত শ্রেণীকে গুরুত্ব দিয়েছেন। তিনি আরও জানিয়েছেন, বাংলাদেশে মোট উৎপাদিত বিদ্যুতের ৫৮ শতাংশই ব্যবহৃত হয় পল্লী বিদ্যুৎ সমিতিতে।

ব্রেকিং নিউজঃ