| |

মুজিব বর্ষে মেয়র টিটুর অঙ্গীকার ‘অন্ধকার ঠেলে আলোকিত ময়মনসিংহ গড়বো’

আপডেটঃ ১:২৩ পূর্বাহ্ণ | মার্চ ১৭, ২০২০

Ad

মো: মেরাজ উদ্দিন বাপ্পী, ময়মনসিংহঃ শুরু হলো জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ঘোষিত ‘মুজিববর্ষে’র। স্বাধীনতার মহানায়ক ও বাংলাদেশের স্থপতি শেখ মুজিবকে স্মরণ করে রাখতে এ বছরই উদযাপিত হচ্ছে স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি ও প্রথম রাষ্ট্রপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী। ২০২০ খ্রিস্টাব্দকে ‘মুজিব বর্ষ’ হিসেবে ঘোষণা করে রেখেছিলো ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০২০ খ্রিস্টাব্দকে ‘মুজিব বর্ষ’ হিসেবে ঘোষণা করায় ময়মনসিংহ মহানগর আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো: ইকরামুল হক টিটু অঙ্গীকার করেছেন “মুজিব বর্ষে যুক্তির পথে সত্যকে জানাবো, অন্ধকার ঠেলে আলোকিত ময়মনসিংহ গড়বো”

উল্লেখ্য, ১৯২০- স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি ও প্রথম রাষ্ট্রপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তিনি ভারতীয় উপমহাদেশের একজন অন্যতম প্রভাবশালী রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব। ১৯২০ সালের ১৭ মার্চ তদানীন্তন ভারতীয় উপমহাদেশের বঙ্গ প্রদেশের ফরিদপুর জেলার গোপালগঞ্জ মহকুমার পাটগাতি ইউনিয়নের টুঙ্গীপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। অর্থাৎ ইতিহাসের এই দিনে শতবর্ষে বাঙালির মহানায়ক।

১৯৪৭ সালে ভারত বিভাগের সময় শেখ মুজিব ছিলেন তরুণ ছাত্রনেতা। পরবর্তীকালে তিনি মাওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী প্রতিষ্ঠিত আওয়ামী লীগের সভাপতি হন। সমাজতন্ত্রের সমর্থনকারী একজন অধিবক্তা হিসেবে তিনি তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের জনগোষ্ঠীর প্রতি সব ধরনের বৈষম্যের বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে তোলেন। জনগণের স্বাধীকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে তিনি একসময় ছয় দফা স্বায়ত্ত্বশাসন পরিকল্পনা প্রস্তাব করেন। তারই নেতৃত্বে স্বাধীনতা সংগ্রামের জন্য উদ্বুদ্ধ হয় বাংলাদেশের জনগণ। ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা সংগ্রামের সময় তাকে গ্রেফতার করে পশ্চিম পাকিস্তানে নিয়ে যাওয়া হয়। ১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারি তিনি পাকিস্তানের কারাগার থেকে মুক্ত হয়ে স্বদেশে প্রত্যাবর্তন করেন এবং বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন শুরু করেন। পরে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট সেনাবাহিনীর একদল কর্মকর্তা তাকে সপরিবারে হত্যা করে।

ব্রেকিং নিউজঃ