| |

কেন্দ্রীয় কমিটির নির্দেশে দ্বিতীয় দিনেও ধান কেটে দিলেন ময়মনসিংহ মহানগর কৃষক লীগ

আপডেটঃ 3:55 pm | April 24, 2020

Ad

 

মো: নাজমুল হুদা মানিক ॥ কৃষক বাঁচাও, দেশ বাঁচাও এই শ্লোগানকে সামনে রেখে করোনাভাইরাসের এ সময়ে শ্রমিক সংকট নিরসনে কৃষকের পাশে দাঁড়িয়েছে ময়মনসিংহ মহানগর কৃষক। কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির নির্দেশে কৃষকের ধান কেটে ঘরে তুলে দিলেন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সহ নেতাকর্মীরা।
২৪ এপ্রিল (শুক্রবার) দ্বিতীয় দিনে ময়মনসিংহ নগরীর শিকারীকান্দা এলাকার কৃষক মীর লাল মিয়া’র ৩৫ শতাংশ ও মো: নূর ইসলামের ৪০ শতাংশ জমির ধান কেটে দিলেন।
এসময় ময়মনসিংহ মহানগর কৃষক লীগের সভাপতি এ.বি ছিদ্দিক, সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম রায়হান, সহ-সভাপতি নূর আলী তালুকদার, যুগ্ম সম্পাদক খোকন তালুকদার, সাংগঠনিক সম্পাদক সোহেল রানা, দপ্তর সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক শফিউল আলম খান আখি, অর্থ সম্পাদক শুভ, ভূমি বিষয়ক সম্পাদক মো: ফুলন মিয়া, মহানগর কৃষক লীগ নেতা বাবু নন্দন চক্রবর্তী, ৯নং ওয়ার্ড কৃষকলীগের সভাপতি মাসুদ রানা সহ নেতা-কর্মীরা এ ধান কাটায় অংশগ্রহণ করেন।
কৃষকরা বলেন, করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে ঘোষিত লকডাউন থাকায় শ্রমিক সঙ্কট দেখা দিয়েছে। মাঠে ধান পাকলেও সেই ধান কাটার কোনো ব্যবস্থা করতে পারছিলাম না। এ সময় আমাদের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন ময়মনসিংহ মহানগর কৃষক লীগের সভাপতি এ.বি ছিদ্দিক ও সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম রায়হান সহ নেতাকর্মীরা।
এ সময় কৃষক লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বলেন, করোনা ভাইরাসের কারণে চলতি মৌসুমে অন্য জেলা থেকে শ্রমিক না আসায় বিপাকে পড়েছেন সাধারণ কৃষকরা। েেত ধান পেকে গেলেও শ্রমিকের অভাবে তা ঘরে তোলা নিয়ে বিপাকে পড়েছেন তারা। এ অবস্থায় কৃষকলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির নির্দেশনায় কৃষকদের ধান কেটে ঘরে তুলে দেওয়ার ব্যবস্থা করছি আমরা। আমরা দ্বিতীয় দিনে ময়মনসিংহ নগরীর শিকারীকান্দা এলাকার কৃষক মীর লাল মিয়া’র ৩৫ শতাংশ ও মো: নূর ইসলামের ৪০ শতাংশ জমির ধান কেটে দিয়েছি। এতে করে কৃষকদের অনেক উপকার হয়েছে। আমাদের এ কার্যক্রম চলমান থাকবে।
এ সময় তারা আরও বলেন, শুধু ধান কাটা নয়, যে সমস্ত হতদরিদ্র কৃষক আছেন মাননীয় সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো: ইকরামুল হক টিটুকে বলে তাদের ত্রান সামগ্রীর ব্যবস্থাও করে দিবো আমরা।

ব্রেকিং নিউজঃ