| |

বাংলাদেশ থেকে কর্মী নিতে চায় কুয়েত

আপডেটঃ 7:28 pm | February 24, 2016

Ad

সংসদ ভবন থেকে : বর্তমানে বিপুল সংখ্যক বাংলাদেশি কর্মী কুয়েতের বিভিন্ন কর্মক্ষেত্রে নিয়োজিত আছে উল্লেখ করে সে দেশের অর্থনীতির চাকাকে গতিশীল করতে বাংলাদেশ থেকে আরো জনশক্তি আমদানির আগ্রহ প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত কুয়েতের রাষ্ট্রদূত আদেল মোহাম্মদ হায়াত।

বুধবার জাতীয় সংসদের স্পিকার এবং সিপিএ নির্বাহী কমিটির চেয়ারপারসন ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সঙ্গে সংসদ ভবনে তার নিজ কার্যালয়ে সাক্ষাৎকালে এ বিষয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেন তিনি।

সাক্ষাৎকালে তারা বাংলাদেশের নারী নেতৃত্ব, পুরুষ ও মহিলা সংসদ সদস্য সংখ্যা, কুয়েত সংসদে নারী নেতৃত্বের অবস্থা, দুদেশের সংসদীয় কার্যক্রম, সংসদে বিরোধী দলের ভূমিকা, দুদেশের ব্যবসা-বাণিজ্য, জনশক্তি, নিরাপত্তা ব্যবস্থা, পর্যটন ও বিনিয়োগ ইত্যাদি বিষয়ে আলোচনা করেন।

কুয়েতের রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘জ্বালানি তেল সমৃদ্ধ কুয়েতের অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড অনেকাংশে বিদেশি জনশক্তির ওপর নির্ভরশীল। বাংলাদেশের সাথে কুয়েতের সম্পর্ক অনেক পুরোনো। স্বল্প সময়ের মধ্যে কুয়েতের আমির বাংলাদেশ সফরে আসার সম্ভাবনা রয়েছে। তার সফরের মাধ্যমে বাংলাদেশ ও কুয়েতের মধ্যে ব্যবসা-বাণিজ্যসহ দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরও জোরদার হবে।’

সাক্ষাৎকালে স্পিকার শিরীন শারমিন বলেন, ‘বাংলাদেশে বর্তমান জনসংখ্যার সবচেয়ে বড় অংশ যুব সমাজ। কর্মক্ষম এ যুব সমাজকে সঠিকভাবে কাজে লাগানোর মাধ্যমে দেশকে দ্রুত অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে নেয়া সম্ভব। মধ্যপ্রাচ্যসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে নিয়োজিত জনগণের পাঠানো রেমিটেন্স বাংলাদেশের অর্থনীতিতে ভূমিকা রাখছে।’

তিনি বাংলাদেশের জনসংখ্যাকে সম্পদ হিসেবে আখ্যায়িত করে এদেশ থেকে কুয়েতে জনশক্তি নেয়ার আহ্বান জানান।

স্পিকার বাংলাদেশ ও কুয়েতের মধ্যে সংসদীয় প্রতিনিধি বিনিময়ের মাধ্যমে দুদেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরো সুদৃঢ় করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। এসময় কুয়েতের রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশকে একটি বিকাশমান অর্থনীতির দেশ হিসেবে আখ্যায়িত করেন।

স্পিকার শিরীন শারমিন এসময় কুয়েতের আমির ও স্পিকারকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান এবং রাষ্ট্রদূত আদেল মোহাম্মদ হায়াতকে জাতীয় সংসদে আসার জন্য ধন্যবাদ জানান।

ব্রেকিং নিউজঃ