| |

তারাকান্দায় সম্পত্তির লোভে বিধবা নারীকে নির্যাতন

আপডেটঃ 4:36 pm | May 07, 2020

Ad
তানভীর হোসাইন, ময়মনসিংহঃ
ময়মনসিংহের তারাকান্দায় এক বিধবা নারীকে সন্তানসহ হত্যার হুমকি ও নির্যাতন করে সম্পত্তি আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে শ্বশুরবাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে।
খাদিজা পারভীন(৩৫) নামের নির্যাতিতা এ নারী ময়মনসিংহ জেলার তারাকান্দা থানার গোপালপুর এলাকার আব্দুল হাকিমের মেয়ে। ১৫ বছর আগে তার বিয়ে হয় একই থানার পূর্বতালদিঘী গ্রামের ফজলুল হক এর সাথে। ২ বছর আগে এক বিদ্যুৎ দুর্ঘটনায় মারা যান তার স্বামী।
খাদিজা জানান, তার স্বামী বেঁচে থাকাকালীন সময়ে স্বামীর পৈতৃক জমির ওপর পাঁকা বাড়ি নির্মান করা হয়। এছাড়া তিনি পৈতৃক সূত্রে পাওয়া জমিজমা পুকুর ও গাছের বাগান রেখে গেছেন। ২০১৭ সালে স্বামী মারা যাওয়ার পর তার ভাশুর বজরুল ইসলাম, আব্দুর রশিদ এবং তার ছেলেরা মিলে স্বামীর রেখে যাওয়া সম্পত্তি জোড় করে বেদখল করার পায়তারা করছে। এছাড়া আমাকে বাড়িঘর ছেড়ে চলে যাওয়ার জন্য প্রতিনিয়ত হুমকি ধামকি দিয়ে যাচ্ছে। গত ২ মাসে আমার উপর কয়েকবার হামলা হয়েছে। পরে প্রতিবেশীদের হস্তক্ষেপে প্রানে বেচে যাই। ইদানীং তারা আমাকে হত্যার হুমকি দিয়ে আসছে।
প্রতিবেশী ফারুখ মিয়ার সাথে কথা বলে জানা যায় বজরুল ইসলাম ও তার ছেলেরা মিলে এই বিধবা নারীকে নানাভাবে উত্তক্ত করে আসছে। স্বামীহারা মহিলার বাড়ির বারান্দায় খড়কুটো রেখে যাতায়াতে বাধা সৃষ্টি করেছে। এছাড়া জমির ফসল নষ্ট করা, গাছপালা ভেঙে ফেলা সহ বিভিন্ন ধরনের ক্ষতি করে আসছে।
নির্যাতিতা এ নারীর ভাই জুয়েল কবির বলেন, আমার ভগ্নিপতির মৃত্যুর পর থেকে আমার বোনের সংসারের সমস্ত খরচ আমি বহন করছি। তবুও শ্বশুর বাড়ির কতিপয় লোকজন আমার বোনের উপর শারিরীক ও মানসিক ভাবে অত্যাচার করছে।
নির্যাতিতা এই নারী আরো বলেন তার স্বামীর কাছ থেকে ২ বছর আগে ধার নেয়া টাকা চাইতে গেলে বজরুল ও আল আমীন মিলে আমার ৮ বছরের ছেলেকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। তিনি আরো বলেন, স্থানীয়ভাবে সুবিচার না পেয়ে থানায় অভিযোগ দায়েরের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।
এ ব্যাপারে তারাকান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল খায়ের জানান, বিষয়টি শুনেছি, লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনি ব্যাবস্থা নেয়া হবে।

 

ব্রেকিং নিউজঃ