| |

বিশিষ্ট পরমাণু বিজ্ঞানী ডঃ এম এ ওয়াজেদ মিয়ার ১১তম মৃত্যুবার্ষিকীতে বঙ্গবন্ধু শিশু একাডেমী ময়মনসিংহ জেলা শাখার বিনম্র শ্রদ্ধা

আপডেটঃ 2:04 pm | May 09, 2020

Ad

মো: নাজমুল হুদা মানিক ॥ বঙ্গবন্ধু শিশু একাডেমীর প্রতিষ্ঠাতা ক্ষণজন্মা সূর্যসন্তান, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার স্বামী ও উপমহাদেশের বিশিষ্ট পরমাণু বিজ্ঞানী ডঃ এম এ ওয়াজেদ মিয়ার ১১তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ ৯ মে। সহজ, সরল, মেধাবী, সত্যভাষী এবং রাজনৈতিক প্রজ্ঞায় অনন্য ছিলেন তিনি। রাজনীতিক পরিবারের সদস্য হয়েও নিজেকে আলাদা করে নিজের পরিচয়ে ভাস্বর হয়ে ছিলেন বিশিষ্ট পরমাণু বিজ্ঞানী ডঃ এম এ ওয়াজেদ মিয়া। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র ছিলেন। থাকতেন ফজলুল হক মুসলিম হলে। ১৯৬১-৬২ শিক্ষা বছরে তিনি হলের ভিপি ছিলেন। তখনই তিনি বঙ্গবন্ধুর সান্নিধ্যে আসেন। ১৯৬৭ সালে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের ডারহাব বিশ্ববিদ্যালয় থেকে নিউক্লিয়ার এন্ড হাই এনার্জি পার্টিকেল ফিজিকম এ পিএইচডি করেন। ১৯৬৭ সালের ১৭ই নভেম্বর তিনি বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনাকে বিয়ে করেন। তিনি বাংলাদেশ আণবিক শক্তি বিজ্ঞানী সংঘের আজীবন সদস্য ছিলেন। তিনি বাংলাদেশ শক্তি কমিশনের চেয়ারম্যান ছিলেন। ১৯৯৯ সালে তিনি চাকুরী থেকে অবসর নেন। বঙ্গবন্ধু শিশু একাডেমীর প্রতিষ্ঠাতা ক্ষণজন্মা এই সূর্যসন্তানের মৃত্যু বার্ষিকীতে বঙ্গবন্ধু শিশু একাডেমী ময়মনসিংহ জেলা শাখার সম্মানিত সভাপতি অধ্যাপক দিলরুবা সারমীন ও সাধারন সম্পাদক কবি শরীফুল ইসলাম সরকার উনার রুহের শান্তি কামনা করেছেন এবং গভীর শ্রদ্ধাঞ্জলি জ্ঞাপন করে বিনম্র শ্রদ্ধা জানিয়েছেন। নেতৃবৃন্দ সহজ, সরল, মেধাবী, সত্যভাষী এবং রাজনৈতিক প্রজ্ঞাবান অনন্য ব্যাক্তিত্বের অধিকারী ডঃ এম এ ওয়াজেদ মিয়ার আত্নার শান্তি ও বেহেস্ত নসিব কামনা করেন। মহান

ব্রেকিং নিউজঃ