| |

খাদ্য গুদামে অভিযান, গুদাম সিলগালা ও অবৈধভাবে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে জমাকৃত চাল জব্দ

আপডেটঃ 12:12 pm | May 27, 2020

Ad
ঈশ্বরগঞ্জের আঠারবাড়ি খাদ্য গুদামে অবৈধ পন্থায় প্রায় চার টন চাল মজুদ করা হয় গোপন সূত্রে এমন খবর আসে। নান্দাইল উপজেলায় ১০ টাকা কেজি দরে বিতরণের জন্যে বরাদ্দের চাল হাত বদল হয়ে সিন্ডিকেট চক্র খাদ্য গুদামে জমা প্রদান করে। অভ্যন্তরীণ বোরো সংগ্রহ অভিযানের চাল হিসেবে সে গুলো জমা প্রদান করা হয়। মঙ্গলবার বিকেলে খাদ্য গুদামটি পরিদর্শনে দিয়ে অবৈধ পন্থায় চাল মজুদের সত্যতা পান উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ জাকির হোসেন। প্লাস্টিক ও অন্যন্য বস্তায় প্রায় ৩৯৫০ কেজি চাল পাওয়া যায়।
১০ টাকা কেজি দরে নান্দাইল উপজেলায় বিতরণের চাল সিন্ডিকেট চক্র ক্রয় করে তা খাদ্য গুদামে মজুদ রাখে। গত রোববার খাদ্য গুদামের এক নম্বর ভবনে প্লাস্টিক ও অন্যান্য বস্তায় রাখা হয়। খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আশরাফ আলীর জোগসাজসে নান্দাইলের মতি মিয়া ও আঠারবাড়ির গলকুন্ডা গ্রামের মিলন মিয়া তালিকাভুক্ত মিল মালিক মেসার্স ফরিদা রাইস মিলের নাম ব্যবহার করে খাদ্য গুদামে জমা দেয়। ফরিদা রাইস মিলের নামে অবৈধ চাল গুলোর বিল উত্তোলন করা হতো।
অবৈধ ভাবে চাল গুদামে মজুদ রাখায় চাল গুলো জব্দ ও গুদামটি সিলগালা করা হয়। মিলটিকে কালোতালিকা ভুক্ত, জড়িত সকলের বিরুদ্ধে মামলা, খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে প্রতিবেদন পাঠানো হয়েছে।

ব্রেকিং নিউজঃ