| |

১ম বারের মত ময়মনসিংহ শিক্ষা বোর্ডের এস এস সি ফল প্রকাশ। শেরপুর জেলায় পাশের হার সবোর্চ্চ

আপডেটঃ 7:52 pm | May 31, 2020

Ad

ইব্রাহিম মুকুট ঃ ময়মনসিংহ মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডে ২০২০ সালে প্রথম এসএসসি পরীক্ষায় ৮০.১৩ শতাংশ পরীক্ষার্থী পাশ করেছে, তন্মধ্যে জিপিএ ৫ পেয়েছে ৭হাজার ৪৩৪জন। অল্প সময়ে সীমিত জনবল দিয়ে ভর্তি ও দুটি পাবলিক পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করায় বোর্ডের কর্মকর্তাসহ অন্য যারা সগহযোগীতা করেছেন তাদের সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান ময়মনসিংহ মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. গাজী হাসান কামাল। এই বোর্ডকে একটি সেবাধর্মী ডিজিটাল বোর্ডে রূপান্তর করার প্রত্যয় ব্যক্ত করে ড. গাজী হাসান কামাল জানান আগামীতে ফলাফল আরো ভালো করার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে। এজন্য তিনি শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকসহ সকলের আন্তরিক সহযোগীতার কামনা করেন।
ময়মনসিংহ শিক্ষা বোর্ডের কন্ট্রোলার মোঃ শামসুল ইসলাম জানান, দেশের সর্বকনিষ্ট ময়মনসিংহ শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ময়মনসিংহ. জামালপুর, নেত্রকোণা ও শেরপুর জেলায় মোট ১৩১টি পরীক্ষা কেন্দ্রে ১হাজার ২৮১টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মোট ১ লাখ ২৪ হাজার ৯৫৯জন পরীক্ষার্থী ২০২০ সালের এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয়। তন্মধ্যে পাস করেছে মোট ১লাখ ১২৫জন পাশের হার ৮০.১৩ শতাংশ। বোর্ডে ফেল করেছে ২৪ হাজার ৮৩৪ জন ফেল করেছে। বোর্ডে পাস করেছে ছেলে ৫০ হাজার ৯৯৪ এবং মেয়ে ৪৯ হাজার ১৩১জন। জিপিএ -৫ পাওয়া ক্ষেত্রে মেয়েরা এগিয়ে রয়েছে। ৩ হাজার ৭৮৮জন মেয়ে জিপিএ ৫ পেয়েছে এবং ৩হাজার ৬৩৬ জন ছেলে জিপিএ ৫ পেয়েছে। ছেলের চেয়ে ১৪২জন মেয়ে বেশী জিপিএ ৫ পেয়েছে।
বোর্ডের কন্ট্রোলার মোঃ শামসুল ইসলাম আরো জানান, বোর্ডে ২১টি প্রতিষ্ঠানে শতভাগ পাস করেছে এবং ২টি প্রতিষ্ঠান শতভাগ ফেল করেছে। ৪টি জেলার মধ্যে শেরপুর জেলায় পাশের সর্বোচ্চ ৮৩.১৭। ময়মনসিংহ জেলা ৮০.০৫। নেত্রকোনা জেলায় ৭৯.৭৪। ও সর্ব নিম্ন পাশের হার জামালপুর জেলা ৭৮.৯৯।
ময়মনসিংহ জেলার সেরা স্কুলগুলোর মধ্যে ফলাফল করেছে, ময়মনসিংহ গার্লস ক্যাডেট কলেজ ৫১ জনের মাঝে জিপিএ -৫ পেয়েছে ৫০জন, পাশ হার শতভাগ। বিদ্যাময়ী সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ৩২১ জনের মাঝে পাস করেছে ৩১৯জন তন্মধ্যে জিপিএ -৫ পেয়েছে ২৬৭জন। ময়মনসিংহ জিলাস্কুলের ২৮১ জনের মাঝে পাস করেছে ২৭৩ জন তন্মধ্যে জিপিএ -৫ পেয়েছে ২৩০জন। গভর্ণমেন্ট ল্যাবরেটরী হাইস্কুরের ৩৩৪ জনের মাঝে ২২৯জন পাস করেছে তন্মধ্যে জিপিএ -৫ পেয়েছে ১৫৭জন। ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুলের ১৮৩ জনের মাঝে সবাই পাস করেছে তন্মধ্যে জিপিএ -৫ পেয়েছে ১৪১জন। প্রিমিয়ার আইডিয়াল হাইস্কুলের ৩২৩ জনের মাঝে ৩২০জন পাস করেছে তন্মধ্যে জিপিএ -৫ পেয়েছে ১৩৩জন। কে.বি স্কুলের ২৫৭ জনের মাঝে ২৩৫জন পাস করেছে তন্মধ্যে জিপিএ -৫ পেয়েছে ৫১জন। মুকুল নিকেতন উচ্চবিদ্যালয়ে ৭৭৪ জনের মাঝে ৬৫৭জন পাস করেছে তন্মধ্যে জিপিএ -৫ পেয়েছে ১০৩জন। কান্টনমেন্ট বোর্ড হাউস্কুলের ১১৩ জনের মাঝে ১০৬জন পাস করেছে তন্মধ্যে জিপিএ -৫ পেয়েছে ১৭জন। মুসলিম গার্লস স্কুল এন্ড কলেজের ১৭৭ জনের মাঝে ১৫৫ জন পাস করেছে তন্মধ্যে জিপিএ -৫ পেয়েছে ১৯জন। প্রগ্রেসিভ মডেল স্কুলের ৩৪৪ জনের মাঝে ৩৩৪জন পাস করেছে তন্মধ্যে জিপিএ -৫ পেয়েছে ৯৩জন। মহিলা সমিতি উদয়ন হাইস্কুলের ১৫৭ জনের মাঝে ১২৬জন পাস করেছে।

ব্রেকিং নিউজঃ