| |

“শরিফ আহমদের প্রতি খোলা চিঠি”

আপডেটঃ 3:36 pm | June 04, 2020

Ad

প্রদীপ ভৌমিক :
আমরা যারা মুজীব আদর্শের বিশ্বাসী তাদের অগ্রজ ভাষাসৈনিক বীরমুক্তি যোদ্ধা প্রয়াত শামসুল হক এপির উত্তরাধীকারি গৃহায়ন ওগনপূর্ত মন্ত্রী শরীফ আহমেদ আপনার উদ্দেশ্যে কিছু কথা লিখছি।আপনি নিশ্চই শুনেছেন আপনার গনপূর্ত মন্ত্রনালয় ময়মনসিংহে জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের শহীদের মূরাল নির্মান ও সার্কিট হাউস মাঠকে দেয়াল পরিবেষ্টিত করে সৌন্দর্য করনের পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে।এব্যাপারে ৭কোটি টাকা ব্যায় হবে শুনা যাচ্ছে। আমরা যারা মুজীব আর্দশের সৈনিক তাদের জন্য এর চাইতে সুখকর খবর আর কিছু হতে পারে না। কিন্তুু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখলাম বিপুল সংখ্যক ছাত্র,যুবক,শ্রমীক,ব্যাবসায়ী,খেলোয়ার,ক্রীড়া সংগঠক,সাংস্কৃিতিক কর্মী,স্হানীয় সরকারি বেসরকারি কর্মকর্তা,কর্মচারি, বিভিন্ন পেশাজীবি ও রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীরা এমনকি আমার আপনার দলেরনেতা কর্মীরাও এর একটি ব্যাপারে দ্বীমত পোষন করছে তা হল সার্কিট হাউজ মাঠকে দেয়াল দিয়ে ঘেড়াও করার ব্যাপারটি।এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ময়মনসিংহের সর্বস্হরের মানুষ সর্কিট হাউজ মাঠে প্রতিবাদ জানিয়ে মানব বন্ধন করেছে।ময়মনসিংহের সিংহ ভাগ মানুষ চায় তাদের চিরচেনা সার্কিট হাউজ মাঠ দেয়াল দিয়ে ঘেড়াও নয় মুক্ত থাকুক। তৈরী হউক বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের শহীদদের মূরাল। তারা মনে করে দেয়ালে আবদ্ধ থাকলে শিশু কিশোররা এখানে এসে অবাধে খেলতে পারবে না। তৈরি হবে না রাম চাঁদ গোয়ালা,হারুন রশীদ লিটন,মীর বেলায়েত হুসেন বেলাল,সাইফুল ইসলাম খান,জাকির হুসেন,সানোয়ার হুসেন,মোহাম্মদ উল্লার মত দেশসেরা ক্রিকেটারা।পরিকল্পনা অনুযায়ী সার্কিট হাউজ মাঠ গড়ে তুললে স্হানাভাবে বন্ধহয়ে যাবে শিশু কিশোরদের খেলা ধোলা প্রশিক্ষন। বিভিন্ন সুত্র জানা যায় কতিপয় আমলা তাদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পরিকল্পনাটি করেছে। ময়মনসিংহ জেলার সন্মানিত এমপিরা, ও জন প্রতিনিধীবৃন্দও পুরোপুরি এব্যাপারে জানেন না।এমনকি ময়মনসিংহের প্রসাশনের কাছের দুই একজন সংবাদ কর্মীছাড়া বাকিরা ছিল অন্ধকারে।জানত না ময়মনসিংহের সুধী ও বিশিষ্ট জনেরা সার্কিট হাউজ মাঠের মত একটি ঐতিহ্যবাহী আবেগের জায়গাটি নিয়ে সিদ্বান্ত নেওয়ার আগে নাগরিকদের মতামত নেওয়া উচিৎ ছিল। ময়মনসিংহ সিটিকর্পোরেশনে মেয়র,কাউন্সিলরা এ ব্যাপারে পুর্ব থেকে জানতেন না। এব্যাপারে মুষ্টিমেয় সীমিত আকারে য়ে মিটিংটি হয়েছিল তাতে উপস্হিত অনেকেই দেয়ালের ব্যাপারে আপত্তি জানিয়েছিল বলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে জনৈক ব্যাক্তি জানিয়েছেন। তার মধ্য জেঃ আঃলীগ সভাপতি এড,জহিরুল হক খোকা, ইউসুফ খান পাঠান পাঠান,আমিনুল হক শামিম,ইঃ নুরুল আমিন কালামের নাম শুনা যায়।ইতিমধ্য ময়মনসিং মহানগর আঃলীগের সাঃ সন্পাদক মোহিতুর রহমান শান্ত মাঠটিকে মুক্ত রাখার পক্ষে ষ্টেটাস দিয়েছে।সর্বশেষ যে ব্যাপারটি আমাদের বিব্রত করেছে তা হল যেহেতু প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে গনপূর্ত বিভাগ আপনার নিজ শহরে যার সাথে আপনার অনেক স্মৃতী জড়ানো সেটির ভিত্তি প্রস্তর আপনাকে দিয়ে ঊদ্ধোধন করালে অধীক মর্যাদাকর হত বলে ময়মনসিংহ বাসী মনে করে। টেন্ডার প্রক্রিয়া শেষ হওয়ার পূর্বেই একজন আমলাকে দিয়ে ভিত্তি প্রস্তর উদ্ধোধন করা এক ব্যাতিক্রম ধর্মী কর্মকান্ড।এক মাত্র মহামান্য রাষ্টপতি ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ছাড়া কেউ টেন্ডার প্রক্রিয়া শেষ হওয়ার পূর্বে কাজের ভিত্তি প্রস্হর কেউ অদ্যাবধী করেছে বলে জানা নাই। যাই হউক আপনি ময়মনসিংহের সন্তান আপনার কাছে আমাদের প্রত্যাশা আপনি সার্কিট হাউজ মাঠকে দেয়াল দিয়ে আবদ্ধ না করে মুক্ত রেখে উন্নয়নের ব্যাবস্হা করবেন।

ব্রেকিং নিউজঃ