| |

ময়মনসিংহে ১৫ লাখ লোকের নমুনা সংগ্রহের দায়িত্বে এক টেকনিশিয়ান

আপডেটঃ 8:39 pm | June 08, 2020

Ad

ময়মনসিংহে ১৫ লাখ লোকের নমুনা সংগ্রহের দায়িত্বে এক টেকনিশিয়ান

ময়মনসিংহে নমুনা সংগ্রহের প্রয়োজনীয় সামগ্রীর সরবরাহ নেই সরকারিভাবে। ল্যাব টেকনিশিয়ানরা পকেটের টাকা খরচ করে বাজার থেকে উচ্চমূল্যে নমুনা সংগ্রহের প্রয়োজনীয় সামগ্রী ক্রয় করে রোগীর কাছ থেকে নমুনা সংগ্রহ করতে বাধ্য হচ্ছেন।
খোলা বাজারে প্রতি ১০০টি সফটস্টিকের প্যাকেটের দাম ছিলো একশত টাকা, আর এখন কিনতে হচ্ছে ৫ শতাধিক টাকায়, জিপ্লক ব্যাড দেড়শত টাকায় এবং ১০০ টাকার এমপটি স্ক্রও ক্যাপ্ট টিউব কিনতে হচ্ছে সাড়ে ৫ শত টাকা করে। ময়মনসিংহ সদর উপজেলার জনসংখ্যা পৌনে ৭ লাখ এবং ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের জনসংখ্যা সোয়া ৮ লাখসহ মোট ১৫ লাখ লোকের করোনার নমুনা সংগ্রহের দায়িত্বে মাত্র একজন ল্যাব টেকনিশিয়ান।
সম্প্রতি আরো একজনকে ডিপুটেশনে দেয়া হয়েছে। ইদানিং করোনা রোগীর সংখ্যা ব্যাপক বৃদ্ধি পাওয়ায় ল্যাব টেকনিশিয়ানরা বিশাল এলাকায় রোগীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে নমুনা সংগ্রহ করতে হিমসীম খাচ্ছেন। আরো কমপক্ষে ৫জন ল্যাব টেকনিশিয়ান নিয়োজিত করা প্রয়োজন ও কমপক্ষে ৪টি নমুনা সংগ্রহের বুথ স্থাপন করার জন্য জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট জালাল উদ্দিন খান সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহবানা জানিয়েছেন।
এ ব্যাপারে ময়মনসিংহের সিভিল সার্জন ডাঃ এবিএম মসিউল আলম জানান, পর্যপ্ত বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। সরকারিভাবে সরবরাহ সামগ্রীর সংকট দেখা দিলে বরাদ্দের টাকা হতে খোলা বাজার থেকে সামগ্রী ক্রয় করে নিবেন। অথচ করোনা সংক্রান্ত ব্যাপারে সিভিল সার্জন অফিস থেকে এক টাকাও বরাদ্দ দেয়া হয়নি বলে বিশ্বস্তসূত্রে জানা গেছে। বাৎসরিক এমএসআর খাতে কিছু টাকা ছিলো, তা থেকে খরচ করার মৌখিকভাবে নির্দেশ দিয়েছে মাত্র সিভিল সার্জন। অথচ ময়মনসিংহ সদর উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ এপর্যন্ত প্রায় লাখ টাকা খরচ করে ফেলেছে বিভিন্ন সামগ্রী ক্রয় করে।
এ ব্যাপারে ময়মনসিংহ সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পণা কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ শাহজাহান কবীর জানান, নমুনা সংগ্রহ সামগ্রীর সংকট এবং নিজস্ব টাকায় সামগ্রী ক্রয় সংক্রান্ত কোনো প্রশ্নের জবাব দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন। এবং তিনি বলেন এ বিষয়ে তার কিছু জানা নেই।
স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের প্রশাসন অনুবিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোঃ হাবিবুর রহমান খান স্বাক্ষরিত গত ১মার্চ তারিখের এক প্রজ্ঞাপণে ময়মনসিংহ জেলা কমিটি গঠন করা হয়। কার্যপরিধিতে বলা হয়, জেলা কমিটি করোনা ভাইরাস প্রতিরোধের লক্ষ্যে সচেতনতা সৃষ্টি, প্রয়োজনে কোয়ারেনটাইনসহ প্রয়োজনীয় আর্থিক ও লজিস্টিক সহায়তার বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহন করবে। করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত যে কোন তথ্য পাওয়া গেলে তাৎক্ষণিক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনসহ জাতীয় কমিটির পরামর্শ গ্রহন করবে।
জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি ও জেলা প্রশাসক মোঃ মিজানুর রহমানকে এ বিষয়টি সম্পর্কে অবহিত করা হয়েছে। তিনি জানান, খোজ নিয়ে এ সমস্যার সমাধান করা হবে।
কেন্দ্রীয় বি.এম.এ করোনা মনিটরিং সেল ময়মনসিংহ বিভাগীয় প্রতিনিধি ও সাবেক ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডাঃ মতিউর রহমান ভূঁইয়া বিভাগের ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনসহ প্রতিটি উপজেলা ও পৌর এলাকায় নমুনা সংগ্রহের প্রয়োজনীয় সামগ্রী, যানবাহনসহ অন্যান্য সাপোর্ট সরকারিভাবে সরবরাহ দেয়ার জন্য জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি ও সদস্য সচিবদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।

ব্রেকিং নিউজঃ