| |

ময়মনসিংহের কৃতি সন্তান রফিক উদ্দীন ভূঁইয়া : : : : : মান্নান ফরিদী

আপডেটঃ 10:28 am | June 18, 2020

Ad

ময়মনসিংহের একটি কিংবদন্তী নাম রফিক উদ্দীন ভূঁইয়া। পঞ্চাশের দেশকের ভাষাসৈনিকদের মাঝে তিনি ছিলেন অন্যতম। জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর ঘনিষ্ঠ সহচর হিসেবে ৬ দফা আন্দোলনের বিপ্লবী নেতা ছিলেন রফিক উদ্দিন ভূঁইয়া।
ময়মনসিংহ জেলার নান্দাইল উপজেলার মেরেঙ্গা গ্রামে ১৯২৮ সালের ২৫ জানুয়ারি এই মহান পুরুষ জন্মগ্রহণ করেন।
তিনি ছিলেন ১৯৭১-এর মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে ময়মনসিংহ অঞ্চলের অন্যতম সংগঠক।
রফিক উদ্দিন ভূঁইয়া সাহেবকে আমি প্রথম দেখেছিলাম ১৯৬৯ সালে (সম্ভবত) আমার নিজ এলাকায় গফরগাঁওয়ের দৌলতপুর প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে এক জনসভায়। যে বিদ্যালয় থেকে আমি প্রাথমিক শিক্ষা গ্রহণ করি। সুঠাম দেহের অধিকারি সুদর্শন এক পুরুষ। মন্ত্রমুগ্ধের মতো শুনেছিলাম তাঁর ভাষণ।
আশির দশকে আনন্দ মোহন কলেজে ছাত্র থাকাকালীন সময়ে বহুবার উনার সান্নিধ্য লাভ করেছি। রাজনৈতিক আদর্শের মিলের কারণেই সময় সময় তাঁর বাসায় আমাদের ছাত্রবন্ধুদের যাতায়াত ছিল। নিবিড় পরিবেশে তাঁর সাথে কথা বলেছি, জানতে পেরেছি অনেক অজানা কথা ও তথ্য।
দেশ স্বাধীনতা লাভের পর ১৯৭৩ সালে রফিক উদ্দিন ভূঁইয়া নান্দাইল থেকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। তিনি দীর্ঘকাল ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ওয়াকিং কমিটির অন্যতম সদস্য ছিলেন।
তিনি ১৯৫৬ থেকে ১৯৫৯ সাল পর্যন্ত ময়মনসিংহ জেলা বোর্ডের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন।
ভাষাসৈনিক ও বীরমুক্তিযোদ্ধা রফিক উদ্দিন ভূঁইয়া নান্দাইল সদরে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে বীর শহীদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এলাকাবাসীর সহযোগিতায় ১৯৭২ সালে শহীদ স্মৃতি আদর্শ (সম্প্রতি সরকারিকরণকৃত) কলেজ প্রতিষ্ঠাতা করেন।
নীতিতে অটল ও খুব সাদাসিধে মানুষ হিসেবে বহুল পরিচিত জননেতা রফিক উদ্দিন ভূঁইয়া বার্ধ্যকজনিত কারণে ১৯৯৬ সালের ২৩ মার্চ ইন্তেকাল করেন।
* অগ্নিঝরা মার্চ মাস স্বাধীনতা ঘোষণার মাস। জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মের মাস। উদ্দিন ভূঁইয়ার মৃত্যুর মাস। এমনকি আমরা নগন্য দম্পতি আমাদেরও জন্মের মাস তন্মধ্যে আমার স্ত্রীর আজ জন্মদিন। বৈচিত্র্যময় মার্চ মাস অমর হোক।
৩ মার্চ ২০১৮, ময়মনসিংহ

ব্রেকিং নিউজঃ