| |

জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক ড. সামীউল আলম লিটন নিজ অর্থায়নে গৌরীপুরে নির্মান করছেন পাঁকা সড়ক

আপডেটঃ ৮:১৯ অপরাহ্ণ | জুলাই ২২, ২০২০

Ad

মো: নাজমুল হুদা মানিক ॥ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রকৃত খাটি সৈনিক হিসাবে নিজেকে প্রমান করলেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ও বর্তমানে জেলা আওয়ামীলীগের নেতা ড. সামীউল আলম লিটন। এলাকাবাসীর দু:খ দুর্দশায় নিজেকে নিয়োজিত করলেন জনগনের সেবক হিসাবে। জাতির জনকের সোনার বাংলার স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে জনগনের মঙ্গলের কথা চিন্তা করে বিলিয়ে দিলেন নিজের উপার্জিত অর্থ। ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার ভাংনামারী ইউনিয়নে নিজস্ব অর্থায়নে এক কিলোমিটার পাঁকা সড়ক নির্মাণ করে ব্যতিক্রমী নজির সৃষ্টি করেছেন জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কৃষিবিদ ড.সামিউল আলম লিটন। এতে করে স্থানীয় বাসিন্দাদের জনদূর্ভোগ লাগব হবে বলে জানান এলাকাবাসী।
স্থানীয়রা জানায়, প্রতি বছর গ্রামীণ সড়ক উন্নয়নে টিআর, কাবিখাসহ উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নে কর্মসৃজন প্রকল্পে প্রায় পৌনে এক কোটি টাকার মত বরাদ্ধ থাকলেও র্দীঘদিন ধরে ভাংনামারী ইউনিয়নের বারুয়ামারী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে স্থানীয় দক্ষিণপাড়া পর্যন্ত সড়কটির বেহাল দশা। বর্ষা মৌসুমে সড়কটিতে বড় বড় গর্ত সৃষ্টি হয়ে ব্যাপক কাঁদাযুক্ত অবস্থার সৃষ্টি হয়। এতে চলাচলে অসহনীয় দূর্ভোগের সৃষ্টি হয়েছে স্থানীয় শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসীর। সম্প্রতি বিষয়টি ওই আওয়ামীলীগ নেতার দৃষ্টিগোচর হলে এলাকার জনগনের দূর্ভোগ লাগবের চিন্তা করে প্রায় ১০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে এই সড়কটির কার্পেটিং করার ব্যতিক্রমী উদ্যোগ গ্রহন করেছেন তিনি।


জনদুর্ভোগ লাগবের মহতি এই উদ্যোগটির ঘটনাটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছবিসহ ভাইরাল হলে কমেন্ট বক্সে শত শত ব্যক্তি প্রশংসা সুচক মন্তব্য করেছেন। তাদের ভাষ্য, সরকারী উন্নয়ন হরিলুটে আওয়ামীলীগ নেতাদের সম্পৃক্ততার খবর নিত্যদিনের ঘটনা থাকলেও ব্যতিক্রমী এ উদ্যোগটি সত্যিই প্রশংসনীয়।
এবিষয়ে ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ব বিদ্যালয়ের সাবেক ভিপি কৃষিবিদ ড.সামিউল আলম লিটন বলেন, স্থানীয় শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসীর দূর্ভোগের কথা চিন্তা করে সড়কটি নির্মানে উদ্যোগ নিয়েছি। আশা করছি এতে দূর্ভোগ কিছুটা হলেও লাগব হবে। করোনাসহ বিভিন্ন সময়ে উপজেলার সর্বত্রই অসহায় ও দূর্গত মানুষের কল্যাণে র্দীঘদিন ধরে কাজ করে যাচ্ছেন আওয়ামীলীগ নেতা ড. সামিউল আলম লিটন।


ড. সামীউল আলম লিটনের নিজ অর্থায়নে রাস্তা পাঁকা করণের উদ্যোগকে এলাকার জনগন স্বাগত জানিয়েছে। ড. সামীউল আলম লিটন এর মহতি উদ্যোগে তারা ব্যাপক পুলকিত ও আনন্দিত। তাদের এলাকায় এমন একজন জনদরদী নেতার জন্ম হয়েছে সেজন্য তারা নিজেদের গৌরভান্তিত মনে করছেন অনেকেই।
ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিপি ময়মনসিংহ- ৩ ( গৌরীপুর) সংসদীয় আসনের আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ড. সামীউল আলম লিটন তার নিজ এলাকায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, মসজিদ, মাদ্রাসা সহ অবকাঠামো গত উন্নয়নে স্ব উদ্যোগে ব্যাপক প্রসংশনীয় ভূমিকা রেখেছেন। এমনি একটি উন্নয়ন মূলক অসাধারণ উদ্যোগ নিজ অর্থায়নে ১ কিলোমিটার কাঁচা রাস্তাকে পাঁকা করণের খবর ইতিমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। ড. লিটন সরকারী, বেসরকারী ও নিজ অর্থায়নে এলাকার একমাত্র উচ্চ বিদ্যালয় এর ব্যাপক উন্নয়নের পরিকল্পনা বাস্তবায়ননাধীন রেখেছেন। বারুয়ামারী উচ্চ বিদ্যালয়ের সংযোগ সড়কটি বারুয়ামারী দক্ষিণ পাড়া হতে লক্ষীপুর রাস্তাটি পাঁকা করে দেওয়া হচ্ছে। ড. সামীউল আলম লিটন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা। তিনি শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্বাচিত ভি.পি ছিলেন। তারপর কেন্দ্রীয় যুব লীগের ( নানক- আজম) কমিটির সদস্য ছিলেন। বর্তমানে ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হিসাবে কাজ করছেন। ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগের যে কোন কর্মসূচিতে লিটনের সরব উপস্থিতি দলের সকল পর্যায়ের নেতা কর্মীদের নজর কেড়েছে। ব্যবসায়ীক কাজের শত ব্যস্ততার মাঝেও কোন রাজনৈতিক কর্মসূচিতে নিজেকে সরিয়ে রাখেন না।


ড. সামীউল আলম লিটনের একজন শুভাকাঙ্ক্ষী জানান, লিটনের এই সরব উপস্থিতি আমাদের মাঠ পর্যায়ের কর্মীদের উজ্জ্ববিত ও সাহসী করেছে। রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ যারা নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি উনারাই সাধারণত নিজের নির্বাচনী এলাকায় সরকারি অর্থায়নে উন্নয়ন মুলক কাজ গুলো করে থাকেন আর বাদ বাকি নেতৃবৃন্দ যদি উন্নয়ন মুলক কাজ করতেও চান তাহলে কেন্দ্রে আর মন্ত্রণালয়ে ঘুরে সরকারি অনুদানের মাধ্যমেই করে থাকেন।

কিন্তু এই ক্ষেত্রে বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে যাচ্ছে ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগের সংগ্রামী সাংগঠনিক সম্পাদক ড. সামীউল আলম লিটন।

ব্রেকিং নিউজঃ