| |

বীর মুক্তিযোদ্ধা ওমর আলী শেখ ও ঘোড়াঘাট উপজেলার নির্বাহী অফিসার ওয়াহিদা খানমের উপর সন্ত্রাসীদের হামলা প্রতিবাদে ময়মনসিংহে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত

আপডেটঃ 4:55 pm | September 06, 2020

Ad


মো: নাজমুল হুদা মানিক ॥ দিনাজপুর জেলার ঘোড়াঘাট উপজেলার উপজেলা নির্বাহী অফিসার বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ওয়াহিদা খানম ও তার পিতা বীর মুক্তিযোদ্ধা ওমর আলী শেখ উপর সরকারি বাসভবনে গভীর রাতে সন্ত্রাসীদের হামলা প্রতিবাদে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সাংসদ ময়মনসিংহ বিভাগীয় কমিটির উদ্যোগে ৬ সেপ্টেম্বর সকাল ১১টায় ময়মনসিংহ বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংসদ ময়মনসিংহ বিভাগের সভাপতি শেখ মোঃ রেজাউল করিম রনি‘র সভাপতিত্বে ও সার্বিক পরিচালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ময়মনসিংহ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল, ময়মনসিংহ মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রব, ময়মনসিংহ মহানগর আওয়ামীলীগের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক বীর মুক্তিযুদ্ধা সৈয়দ রফিকুজ্জামান, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান ময়মনসিংহ বিভাগের উপদেষ্টা মোঃ মোনায়েম হোসেন ভূঁইয়া, কেন্দ্রীয় সংসদ ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা রুহুল আমিন ফরাজী, সাধারণ সম্পাদক এমডি লিটন বাদশা, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংসদ ময়মনসিংহ বিভাগ মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক আল-আমিন, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংসদ ময়মনসিংহ জেলার সভাপতি এনামুল হক, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সাংসদ ময়মনসিংহ মহানগর কমিটির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হান্নান, মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা শাহিনুর বেগম, সহ- সম্পাদিকা তানিয়া আক্তার, উপদেষ্টা আসাদুজ্জামান মিয়া সম্মানিত সদস্য আবদুর রশিদ, মোঃ শুভ, মোঃ খোকন মিয়া, সুশীল সরকার সহ অনেকেই। বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংসদ ময়মনসিংহ বিভাগের সভাপতি ও বঙ্গবন্ধু আদর্শ ঐক্য পরিষদ ময়মনসিংহ বিভাগের সভাপতি শেখ মোঃ রেজাউল করিম রনি মানববন্ধনে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যরা অংশগ্রহণ করায় কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন। তিনি বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের একমাত্র গার্জিয়ান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনি হামলাকারী সন্ত্রাসীদের বিচার করুন। আবারও মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের উপর হামলা হয়েছে। এটি ন্যাক্কার জনক। সন্ত্রাসীদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি দাবী করছি। সম্প্রতি দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটের ইউএনও বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ওয়াহিদা খানমের উপর গভীর রাতে হামলা হয়। রাত আড়াইটার দিকে সরকারি বাসভবনে ইউএনও ও তাঁর মুক্তিযোদ্ধা বাবা ওমর আলী শেখকে কুপিয়ে আহত করে দুর্বৃত্তরা। পরে সকালে তাঁদের রংপুর কমিউনিটি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে ইউএনওকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) রাখা হয়। রংপুর কমিউনিটি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নিউরো সার্জারি বিভাগের প্রধান ডা. রাজকুমার নাথ জানান, ইউএনও ওয়াহিদা খানমের মাথার বাঁ পাশে যে ধারালো আঘাত রয়েছে তা অত্যন্ত গুরুতর। তিনি সঙ্গাহীন অবস্থায় রয়েছেন। তাঁর বড় ধরনের অপারেশন করা দরকার। এজন্য দ্রুত ঢাকায় নিতে বলা হয়েছে। ঘোড়াঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিরুল ইসলাম জানিয়েছেন, রাত আনুমানিক আড়াইটার দিকে একদল দুর্বৃত্ত মই বেয়ে ইউএনওর সরকারি বাসায় প্রবেশ করে। তারা ইউএনও ওয়াহিদা খানমকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপাতে শুরু করে। এ সময় ইউএনওর চিৎকার শুনে ঘরে থাকা বাবা ছুটে এসে মেয়েকে বাঁচানোর চেষ্টা করলে দুর্বৃত্তরা তাঁকেও কুপিয়ে জখম করে। পরে অন্য কোয়ার্টারের বাসিন্দারা টের পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। এরপর বাবা-মেয়ে দুজনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে ঘোড়াঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাঁদের রংপুরে পাঠানো হয়। এদিকে হামলার ঘটনার ঘোড়াঘাট উপজেলা পরিষদ চত্বর ঘিরে রেখেছে প্রশাসন। দিনাজপুর-৬ আসনের সংসদ সদস্য শিবলী সাদিক, দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল আলম, পুলিশ সুপার আনোয়ার হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। জেলা প্রশাসক মাহমুদুল আলম জানান, হত্যার উদ্দেশ্যেই ইউএনওর ওপর এ হামলা চালানো হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। জানা গেছে, নওগাঁ থেকে মাঝে মধ্যে মেয়ে ওয়াহিদা খানমের বাসায় বেড়াতে আসেন বীর মুক্তিযোদ্ধা বাবা ওমর আলী শেখ। ওয়াহিদা খানমের স্বামী রংপুরের পীরগঞ্জে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত।

ব্রেকিং নিউজঃ